এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > নেতাজি, রবি ঠাকুর, বিদ্যাসাগর থেকে গঙ্গার ঘাট – একগুচ্ছ বড়সড় সিদ্ধান্তের পথে কলকাতা পৌরসভা

নেতাজি, রবি ঠাকুর, বিদ্যাসাগর থেকে গঙ্গার ঘাট – একগুচ্ছ বড়সড় সিদ্ধান্তের পথে কলকাতা পৌরসভা

ক্ষমতায় আসার পরই কলকাতার সৌন্দর্যায়ন করতে উদ্যোগী হয় রাজ্যের বর্তমান তৃণমূল সরকার। বিভিন্ন এলাকা সুন্দর করে সাজিয়ে তোলার পাশাপাশি গঙ্গার ঘাটগুলি সংস্কার করার দিকে মনোযোগ দেয় তারা। কিন্তু অনেক ক্ষেত্রেই আগেভাগে না বলে আসা দুর্ঘটনা ভাবিয়েছে পৌরসভাকে। যেমন, হঠাৎই গঙ্গায় জোয়ার কিংবা বানা আসার ঘটনা।

এই সম্পর্কে ঠিকমতো পূর্বাভাস না থাকায় অনেক ক্ষেত্রেই সেই সময়ে গঙ্গায় নামা ব্যক্তিদের বিপদে পড়তে হয়। কিন্তু এবার সেই বিপদকে কাটাতে নতুন উদ্যোগ কলকাতা পৌরসভার। সূত্রের খবর, শনিবার পৌরসভার 2 নম্বর বরোর প্রশাসনিক বৈঠক করেন মেয়র ফিরহাদ হাকিম। আর সেখানে শহর কলকাতার সমস্ত ঘাটে “পাবলিক অ্যাড্রেস সিস্টেম” নামে একটি প্রকল্প চালুর কথা ঘোষণা করেন তিনি। কিন্তু এই প্রকল্প ঠিক কি! এর সাহায্যে কি সুবিধা পাওয়া যাবে!

জানা গেছে, গঙ্গার জোয়ার কিংবা বান আসার আগেই এই প্রকল্পের মাধ্যমে সাইরেন এবং সতর্কবার্তা বেজে উঠবে। যার মাধ্যমে সজাগ হয়ে যাবেন সাধারন মানুষ। পাশাপাশি গঙ্গার ঘাটে দুর্ঘটনা রোধ করতে সিসিটিভি ক্যামেরা লাগানোর কথাও বলা হয়েছে এদিনের বৈঠকে বলে জানিয়েছেন ফিরাদ হাকিম।

এছাড়াও বাংলার মনীষীদের মূর্তিকে আরও আকর্ষণীয় করে তুলতে একগুচ্ছ পদক্ষেপের ব্যাপারে এদিনের বৈঠকে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। জানা গেছে, শ্যামবাজার পাঁচ মাথার মোড়ে অবস্থিত নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুর মূর্তিতে লেজার রশ্মি ব্যবহার করে সেটাকে আরও আকর্ষণীয় করে তোলা হবে।

 

অন্যদিকে নিমতলা মহাশ্মশান লাগোয়া কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের যে সমাধিস্থল রয়েছে, সেখানেও আলো, শব্দ ব্যবহার করে তার সৌন্দর্যায়নের ব্যবস্থা করবে পৌরসভা। শুধু তাই নয়, প্রফুল্লচন্দ্র রায়ের সমাধিস্থলকে সংস্কার করে তার ভেতরে ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগরের মূর্তি বসানো, শোভাবাজারের ঐতিহ্যশালী নাট্যমন্দির সংস্কার, নিমতলা মহাশ্মশান লাগোয়া ভূতনাথ মন্দিরকে সাজিয়ে তোলার ব্যাপারেও এদিনের বৈঠকে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে খবর।

কিন্তু শুধু সৌন্দর্যায়ন করলেই তো হবে না, কলকাতাকে যানজট মুক্ত করতে এদিন এক অভিনব পদক্ষেপের কথা শুনিয়েছেন মেয়র ফিরহাদ হাকিম। সূত্রের খবর, কুমোরটুলি থেকে আহিরিটোলা এবং হাওড়া ব্রীজ পর্যন্ত রাস্তাটি সংস্কার করে সেখানে বাস এবং ছোট গাড়ি চালানোর ব্যাপারে বিস্তারিত আলোচনা হয়েছে।

এদিন এই প্রসঙ্গে কলকাতা পৌরসভার মেয়র ফিরহাদ হাকিম বলেন, “শহরের অনেক জায়গা সৌন্দর্যায়ন করা হচ্ছে। গঙ্গায় দুর্ঘটনা রোধ করতে ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। আর সংশ্লিষ্ট রাস্তা দিয়ে বাস চালানো যায় কিনা, তা নিয়ে আমি কলকাতা বন্দর কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলব।” সব‌ মিলিয়ে বিদেশ থেকে ফিরেই শহরের উন্নয়নে একগুচ্ছ পদক্ষেপের কথা শুনিয়ে শহরবাসীর মন জয় করার চেষ্টা করলেন পুরমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম বলে মত ওয়াকিবহাল মহলের।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!