এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > জন্মদিনে নেতাজি সুভাষকে “মেরে ফেলে” কংগ্রেসিদের জন্য বাংলা লড়াই কঠিনতর করে ফেললেন রাহুল গান্ধী?

জন্মদিনে নেতাজি সুভাষকে “মেরে ফেলে” কংগ্রেসিদের জন্য বাংলা লড়াই কঠিনতর করে ফেললেন রাহুল গান্ধী?

রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল এবং কেন্দ্রের শাসক দল বিজেপি যখন নেতাজিপ্রেমে নিজেদের প্রকাশ করতে উদ্যোগী ঠিক তখনই সোশ্যাল মিডিয়ায় সেই নেতাজির জন্মজয়ন্তী নেই কংগ্রেসের সর্বভারতীয় সভাপতি রাহুল গান্ধীর পোস্টকে ঘিরে ছড়াল তীব্র বিতর্ক। কিন্তু হঠাৎ কি এমন পোস্ট করলেন কংগ্রেসের এই সর্বভারতীয় সভাপতি?

সূত্রের খবর, নেতাজির 122 তম জন্মজয়ন্তী উপলক্ষে সোশ্যাল মিডিয়ায় টুইট করে রাহুল গান্ধী নেতাজির জন্ম তারিখের সাথে সাথে মৃত্যু তারিখকেও উল্লেখ করেছেন। যার তারিখ হিসেবে তিনি 18 ই আগস্ট 1945 সালে নেতাজীর মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছেন। আর কংগ্রেস সভাপতির এহেন পোস্টেই তীব্র বিতর্ক ছড়িয়ে পড়েছে সর্বত্র।

কেননা ভারতবর্ষে এই নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুই এমন একজন ব্যক্তিত্ব যার জন্মদিন মহাসমারোহে পালন করা হলেও এখনও পর্যন্ত তাঁর মৃত্যুদিন সম্পর্কে বা আদৌ তাঁর মৃত্যু হয়েছে কিনা সেই সম্পর্কে কোনোরূপ রহস্য উদঘাটন হয়নি। আর এহেন বীরপুরুষের জন্মদিনে তাঁর মৃত্যু দিন প্রকাশ করে দেওয়ায় বেঁধেছে তুমুল বিতর্ক। অন্যদিকে কংগ্রেসের সর্বভারতীয় সভাপতি এহেন ট্যুইটে যে অনেকটাই চাপে পড়তে চলেছে রাজ্যের প্রদেশ কংগ্রেস তা মনে করছে রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরাও।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

আপনার মতামত জানান -

কেননা দীর্ঘদিনের দাবি অনুযায়ী এই নেতাজি সংক্রান্ত গোপন ফাইল মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের হাত দিয়ে প্রকাশ হয়েছে। এমনকি কেন্দ্রের নরেন্দ্র মোদি সরকারও নেতাজির গোপন ফাইল প্রকাশ করেছে। তবে শুধু ফাইল প্রকাশই নয়, আজাদ হিন্দ সরকারের 75 তম বর্ষপূর্তি উপলক্ষেও কিছুদিন আগে দিল্লির লালকেল্লায় জাতীয় পতাকা তুলেছে কেন্দ্রের বিজেপি সরকার। এমনকি নেতাজির জন্মদিন উপলক্ষে আজ নেতাজী মিউজিয়ামেরও উদ্বোধন করার কথা রয়েছে প্রধানমন্ত্রীর।

তাই সেদিক থেকে কেন্দ্র এবং রাজ্য এই দুই সরকারই যখন নেতাজিকে নিয়ে বিভিন্ন রকম কর্মসূচিতে ব্যস্ত ঠিক তখনই সেই নেতাজির জন্মদিনকে বেছে নিয়ে কংগ্রেসের সর্বভারতীয় সভাপতি রাহুল গান্ধীর এহেন পোস্ট রাজ্য রাজনীতিতে তুমুল বিতর্কের সৃষ্টি করল।

একাংশের মতে, এতে আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে রাজ্যে কংগ্রেসের ভোটব্যাঙ্ক অনেকটাই ধাক্কা খাবে। কেননা যে নেতাজিকে রাজ্যের মানুষের এখনও বীরপুরুষ হিসেবে শ্রদ্ধা জানান, সেই নেতাজির মৃত্যুর দিন কি করে জানলেন রাহুল গান্ধী! চাপে পড়ে রাজ্য কংগ্রেসের তরফেও এই গোটা টুইটটিকে ভুলবশত করা হয়েছে বলে জানানো হয়েছে।

অন্যদিকে কংগ্রেসের সর্বভারতীয় সভাপতির এহেন মন্তব্যে ক্ষুব্ধ হয়েছেন নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুর পরিবারের সদস্যরাও। এক সর্বভারতীয় সংবাদ মাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে চন্দ্র বসু জানিয়েছেন যে, রাহুল গান্ধী যেন তাঁর টুইটটি তুলে নেন। সব মিলিয়ে এবার লোকসভা নির্বাচনের আগে নেতাজির জন্মজয়ন্তী দিনে নেতাজি সুভাষের মৃত্যুর দিন প্রকাশ করে এ যেন আখেরে নিজেদের বিপদই ডেকে আনলেন কংগ্রেসের সর্বভারতীয় সভাপতি।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!