এখন পড়ছেন
হোম > বিশেষ খবর > নেতাইকে ‘ভুলে’ গেছে শাসকদল, ক্ষোভ গুলি খেয়ে প্রতিবন্ধী হওয়া স্থানীয়দের

নেতাইকে ‘ভুলে’ গেছে শাসকদল, ক্ষোভ গুলি খেয়ে প্রতিবন্ধী হওয়া স্থানীয়দের

রাজ্যে বাম সরকারের ৩৪ বছরের জমানা শেষ করে তৃণমূল কংগ্রেসের সরকার প্রতিষ্ঠার পিছনে নেতাই-কাণ্ডের ‘অবদান’ কম নয়। অথচ সেই নেতাইকেই নাকি ভুলে গেছে শাসকদল বলে অভিযোগ স্থানীয়স্তরে। ২০১১ সালের ৭ জানু্য়ারি লালগড়ের নেতাই গ্রামে ‘সিপিএমের হার্মাদদের’ ছোঁড়া গুলিতে চার মহিলা সহ নজন গ্রামবাসী নিহত হন, আহত হন অন্তত ২৯ জন বলে স্থানীয়দের অভিযোগ। নিহতদের পরিজনরা পাঁচ লক্ষ টাকা ক্ষতিপূরণের পাশাপাশি প্রতি পরিবারে এক বা একাধিক সদস্যা চাকরি পেয়েছেন, আহতরা ৫০ হাজার টাকা থেকে এক লক্ষ টাকা করে ক্ষতিপূরণ পেয়েছেন পেয়েছেন। কিন্তু নেতাই কাণ্ডের পর সাত-সাতটা বছর পেরিয়ে গেলেও, নেতাই গ্রামের তাপস মণ্ডল ও তরণী ঘাঁটা গুলিতে জখম হয়ে প্রতিবন্ধী হয়ে বাড়িতেই বসে আছেন। রাজ্যে তৃণমূল কংগ্রেস ক্ষমতায় আসার পর তাঁদের চাকরি দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দেওয়া হলেও বাস্তবে কিছুই হয় নি।
ফলে ক্ষোভ বাড়ছে দুই পরিবারে। তাঁদের পরিবারের তরফে দাবি, প্রতি বছর নেতাই দিবস পালন করে, আর আমরা শুধু পাই প্রতিশ্রুতি। অসহনীয় জীবন কাটাচ্ছি। আজ আবার আর একটা নেতাই দিবস পালিত হতে চলেছে, যেখানে উপস্থিত থাকবেন স্বয়ং রাজ্যের পরিবহণ মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী। আর তাই আশায় বুক বাঁধছেন নতুন করে হতভাগ্য তাপস মণ্ডল ও তরণী ঘাঁটা। শাসকদলের স্থানীয় ও জেলা নেতৃত্ত্ব নতুন করে কথা দিয়েছেন তাঁদের চাকরির কথা মন্ত্রীর সঙ্গে নতুন করে আলোচনা করে শীঘ্রই তাঁদের কিছু একটা সুরাহা করে দেওয়া হবে। ‘হার্মাদদের’ বিরুদ্ধে আন্দোলন করে প্রতিবন্ধী হয়ে যাওয়া লালগড়ের দুই যুবক সেই আশাতেই নেতাই দিবসের দিকে মহা উৎসাহে তাকিয়ে।

Top
error: Content is protected !!