এখন পড়ছেন
হোম > বিশেষ খবর > মুখ্যমন্ত্রীর নাম ‘মমতাজ বেগম’? পিছনে আসল সত্যিটা কি?

মুখ্যমন্ত্রীর নাম ‘মমতাজ বেগম’? পিছনে আসল সত্যিটা কি?

গত দুদিন ধরে সোশ্যাল মিডিয়ায় হঠাৎ করে ভাইরাল হয়ে গেছে একটি ছবি। যেখানে দেখা যাচ্ছে রাজ্যের শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেসের মহিলা কর্মীরা আন্তর্জাতিক মহিলা দিবস পালনের সমর্থনে দলীয় পতাকা ও একটি ব্যানার নিয়ে একটি মিছিল করছেন। সেই ব্যানারে তৃণমূল নেত্রী মমতা ব্যানার্জীর ছবির সঙ্গে ‘সভানেত্রী মমতাজ বেগম’ কথাটি জ্বলজ্বল করছে। এমনিতেই বিরোধীরা মুখ্যমন্ত্রীর বিরুদ্ধে বারবার অভিযোগ আনেন তাঁর ‘সংখ্যালঘু উন্নয়নের’ নামে ‘সংখ্যালঘু তোষন’ করার প্রবণতা নিয়ে। এমনকি কিছুদিন আগেই রাজ্যের অন্যতম বিরোধী দল বিজেপি ‘তৃণমূল তোষন ছাড়ো’ নামে একটি কর্মসূচিও পালন করে ফেলে। আর ২ এ ২ যোগ করে ৪ করে ফেলতে এই ছবি পাওয়ার পর তৃণমূল বিরোধী মানুষজন দেরি করেননি, ঝড়ের বেগে ফেসবুক ও হোয়াটস্যাপে শেয়ার হতে থাকে এই ছবি, মুখ্যমন্ত্রীর ‘সংখ্যালঘু তোষণের’ নমুনা প্রমানে!

এই ছবি আমাদের হাতে আসার পর, প্রিয়বন্ধু বাংলার তরফে খতিয়ে দেখা শুরু হয় আসল সত্যটা কি। কেননা ছবিটা দেখেই প্রাথমিকভাবে আমাদের সন্দেহ হয়। শাসকদলের কোনো ব্যানারে বা পোস্টারে দলনেত্রী মমতা বান্দ্যেপাধ্যায়ের নাম লেখা হয় ‘দলনেত্রী’, ‘মুখ্যমন্ত্রী’ বা ‘প্রধান বক্তা’ হিসাবে – কিন্তু আশ্চর্য রকম ভাবে এই পোস্টারে লেখা আছে ‘সভানেত্রী’! দ্বিতীয়ত, পোস্টারটিতে স্পষ্ট দেখা যাচ্ছে, হরিশ্চন্দ্রপুরের মহিলা তৃণমূল কমিটির নাম, সেখানে আগামী ৮ ই মার্চ আন্তর্জাতিক নারী দিবস উপলক্ষে মুখ্যমন্ত্রীর সভা করার কথা কোনো খবর আমাদের কাছে নেই। আর তাই স্থানীয়স্তরে খোঁজ নিতে শুরু করেন আমাদের সাংবাদিক। সেখান থেকেই স্পষ্ট হয় পুরো ব্যাপারটি। আমাদের প্রাথমিক অনুমানই সঠিক ছিল। হরিশ্চন্দ্রপুর ২ নম্বর ব্লক মহিলা তৃণমূল কংগ্রেস কমিটির সভানেত্রীর নাম মমতাজ বেগম। তাঁর নামেই এই পোস্টার বানানো হয়েছে, তার সঙ্গে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কোনো যোগ নেই। তার থেকেও বড় কথা তৃণমূল কংগ্রেসের অঘোষিত নিয়ম, দলের নামে কোনো পোস্টার, ব্যানার তৈরি হলে তাতে দলনেত্রীর ছবি রাখতেই হবে। ফলে নামে কিছুটা মিল ও তার সঙ্গে মুখ্যমন্ত্রীর ছবি একসাথে ব্যবহৃত হওয়াতেই এই বিভ্রান্তি সৃষ্টি হয়েছে। মুখ্যমন্ত্রীর নামও বদলায়নি, মুখ্যমন্ত্রী নিজেও যে সর্বধর্ম সমন্বয়ের বিশ্বাসে পথ হাঁটেন, সেখান থেকেও তিনি বিচ্যুত হন নি। উল্টে আন্তর্জাতিক নারী দিবসের মাহাত্ম্য বাংলার নারীদের কাছে তুলে ধরতে এক অনন্য পদক্ষেপ নিয়েছেন আন্তর্জাতিক মঞ্চে কন্যাশ্রীকে বিশ্বসেরা করা তৃণমূলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও তাঁর দলীয় কর্মী-সমর্থকরা।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!