এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > পুরসভার অস্থায়ী কর্মীদের ছাঁটাই করার সিদ্ধান্ত তৃনমূলের জেলা সভাপতির, জোর গুঞ্জন

পুরসভার অস্থায়ী কর্মীদের ছাঁটাই করার সিদ্ধান্ত তৃনমূলের জেলা সভাপতির, জোর গুঞ্জন

এক সময় প্রচুর অস্থায়ী কর্মী বালুরঘাট পৌরসভায় নিয়োগ করেছিল তৃণমূল পরিচালিত পুরবোর্ড। কিন্তু মাঝে মধ্যেই সেই অস্থায়ী কর্মীদের বিরুদ্ধে অভিযোগ ওঠে যে, তারা কাজ না করে বসে থেকেই বেতন নিচ্ছেন। আর তাই এবার সেই সমস্ত কর্মীদের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ নিতে চলেছেন বালুরঘাট পুরসভার বোর্ড অব অ্যাডমিনিস্ট্রেটরের সদস্য অর্পিতা ঘোষ।

বস্তুত, প্রায় অল্প সময়ের বৃষ্টিতেই বালুরঘাটে হাঁটুর সমান জল জমে যায়। দীর্ঘদিন ধরে এই সমস্যা থাকলেও পুরসভা তা সমাধান করতে ব্যর্থ হয়েছে। আর শহরে জল জমার প্রধান কারণ হিসেবে বেহাল নিকাশি ব্যবস্থাকেই দায়ী করা হয়। কিন্তু বালুরঘাট পৌরসভায় পাঁচশোর বেশি অস্থায়ী কর্মী থাকলেও কেন তাদের দিয়ে এই কাজ করানো হচ্ছে না, তা নিয়ে বিভিন্ন মহলে প্রশ্ন উঠতে শুরু করে।

একাংশের অভিযোগ, শাসকদলের বিভিন্ন হেভিওয়েট নেতার অনুগামী হওয়ার জন্য খাতায়-কলমে হাজিরা থাকলেও অস্থায়ী কর্মীদের একাংশ পুরসভায় কোনো কাজ করেন না। শুধুমাত্র বসে বসেই তারা বেতন ভোগ করছেন। ফলে সেই থেকে এবার সেই সমস্ত ফাঁকিবাজ কর্মীদের চিহ্নিত করে ছাটাই করার সিদ্ধান্ত নিয়ে নতুন কর্মী নিয়োগের চিন্তাভাবনা শুরু করেছেন দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা তৃণমূলের সভানেত্রী তথা বালুরঘাট পৌরসভা বোর্ড অফ অ্যাডমিনিস্ট্রেটরের সদস্য অর্পিতা ঘোষ।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

এদিন এই প্রসঙ্গে অর্পিতাদেবী বলেন, “বালুরঘাট পৌরসভায় অনেক কর্মী আছেন। যারা কাজ না করে বেতন নিচ্ছেন। এই বিষয়ে তদন্ত শুরু হয়েছে। সেই কর্মীদের চিহ্নিত করে দ্রুত ছাটাই করা হবে। নতুন করে কর্মী নিয়োগ করা হবে। কোনোভাবেই শহরের নাগরিক পরিষেবা দিয়ে আপস করা হবে না।”

অন্যদিকে একসময় পৌরসভায় তৃণমূল পুরবোর্ড এই কর্মীদের নিয়োগ করে তারাই এখন সেই কর্মীদের ছাটাই করতে চলেছে বলে তৃণমূলকে কটাক্ষ করতেও ছাড়েনি বামেরা। এদিন এই প্রসঙ্গে বিদায়ী বিরোধী দলনেত্রী আরএসপির সুচেতা বিশ্বাস বলেন, “তৃণমূল এই কর্মী নিয়োগ করেছে। তারাই আবার ছাঁটাই করবে! শহরবাসী আর কত নাটক দেখবে! সুষ্ঠু নাগরিক পরিষেবা যাতে মেলে সেদিকে নজর না দিলে, আমরা আগামীতে আন্দোলনে নামবো।”

তবে পুরসভার বোর্ড অফ অ্যাডমিনিস্ট্রেটরের সদস্য অর্পিতা ঘোষ দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা তৃণমূলের সভানেত্রীও বটে। ফলে তার দলের এই হেভিওয়েট নেতাদের দৌলতে পৌরসভার কর্মীরা কাজে ফাঁকি দেওয়ায় তিনি সেই সমস্ত নেতাদের অনুগামীদের সেই কাজ থেকে ছাটাই করতে আদৌ কতটা সক্ষম হন, এখন সেদিকেই তাকিয়ে সকলে।

Top
error: Content is protected !!