এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > মুকুলের প্রশংসা, তৃণমূলের হেভিওয়েট নেতার মুখে – জেনে নিন বিস্তারিত

মুকুলের প্রশংসা, তৃণমূলের হেভিওয়েট নেতার মুখে – জেনে নিন বিস্তারিত

 

গত 2016 সালের বিধানসভা নির্বাচনে খড়্গপুরে দাঁড়িয়ে বিজেপির জয় নিশ্চিত করেছিলেন দিলীপ ঘোষ। আর তারপরই সেই দিলীপ ঘোষের হাত ধরে রাজ্যে বিজেপির উত্থান ঘটতে শুরু করেছিল। যতদিন গিয়েছে, ততই বিভিন্ন জায়গায় ফুটেছে পদ্মফুল। তবে এবার দিলীপ ঘোষ এই আসন ছেড়ে মেদিনীপুর লোকসভা কেন্দ্রের সাংসদ হওয়ায় আগামী 25 নভেম্বর এই খড়গপুর বিধানসভা কেন্দ্রের উপনির্বাচনের অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

যেখানে বিজেপি চেষ্টা করছে, এই কেন্দ্র ফের তাদের দখলে নিয়ে আসার। তবে তৃণমূল তাদের হেভিওয়েট নেতা তথা মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারীকে পর্যবেক্ষক করে এই কেন্দ্র দখলের ব্যাপারে আত্মপ্রত্যয়ী হয়ে উঠেছে। আর এই পরিস্থিতিতে প্রায় প্রতিদিনই খড়গপুর বিধানসভা উপনির্বাচনে শাসক-বিরোধী তরজা লক্ষ্য করা যাচ্ছে।

সম্প্রতি সেই খড়গপুর বিধানসভা কেন্দ্রে বিজেপি প্রার্থীর হয়ে প্রচারে গিয়ে তৃণমূলের শুভেন্দু অধিকারীকে কড়া ভাষায় আক্রমণ করেন প্রাক্তন তৃণমূল নেতা তথা বর্তমান বঙ্গ বিজেপির চাণক্য মুকুল রায়। যেখানে তিনি বলেন, “শুভেন্দু অধিকারী যেখানে গিয়েছে, সেখানেই তৃণমূল হেরেছে। মালদা, মুর্শিদাবাদ, উত্তর দিনাজপুরের পর খড়্গপুরেও তৃণমূল হারবে।” তবে মুকুল রায়ের এই মন্তব্যের পর শুভেন্দু অধিকারী তাকে কড়া ভাষায় আক্রমণ করবে বলে মনে করেছিল রাজনৈতিক মহল।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

 

কিন্তু নিজের দলের প্রাক্তন নেতা তথা বর্তমান বিজেপি নেতা মুকুল রায়ের বিরুদ্ধে তেমন কোনো মন্তব্যই করলেন না শুভেন্দু অধিকারী। বরঞ্চ তাকে “বড় নেতা” বলে অভিহিত করে তৃণমূলের পরিবহনমন্ত্রী জল্পনা বাড়িয়ে দিলেন বলে মত রাজনৈতিক মহলের।

সূত্রের খবর, এদিন বিজেপি নেতা মুকুল রায়ের আক্রমণ নিয়ে পাল্টা কোনো প্রতি আক্রমণ করেননি শুভেন্দুবাবু। তিনি বলেন, “উনি বিজেপির বড় নেতা উনি। এই রকম ব্যাখ্যা করতে পারেন। ব্যক্তিগত আক্রমণও করতে পারেন। কিন্তু এই নির্বাচনের ফলই কথা বলবে আমাদের হয়ে। তাই ততদিন পর্যন্ত চুপ থাকাই শ্রেয়। কে হারবে, কে জিতবে, বাংলার মানুষ সেদিনই দেখতে পাবে। তাই উপনির্বাচনের ফলাফল প্রকাশের পর যা বলার বলব।”

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, অগ্রজ হিসেবে এবং নিজের দলের প্রাক্তন হিসেবে এদিন মুকুল রায়ের মন্তব্যের কোনো পাল্টা জবাব দেননি শুভেন্দু অধিকারী। বরঞ্চ তাকে “বড় নেতা” বলে সম্মান দেওয়ার চেষ্টা করেছেন তিনি। তবে নির্বাচনের পর তার এই মন্তব্যের জবাব দেওয়া হবে বলে নিজের দল তৃণমূল কংগ্রেসের ভিতকে শক্তিশালী করার কথা বুঝিয়ে দিয়েছেন রাজ্যের পরিবহনমন্ত্রী বলে মত বিশেষজ্ঞদের।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!