এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > মুকুল রায়ের মন্তব্যের পাল্টা দিলেন না কেন তৃনমূলের প্রাক্তন সাংসদ, গুঞ্জন সর্বত্র

মুকুল রায়ের মন্তব্যের পাল্টা দিলেন না কেন তৃনমূলের প্রাক্তন সাংসদ, গুঞ্জন সর্বত্র

লোকসভা নির্বাচনে দলের ভরাডুবির পরই দলের নেতা, বিধায়ক, মন্ত্রীদের আরও বেশি করে সাধারণ মানুষের কাছে যাওয়ার পরামর্শ দিয়েছিলেন তৃণমূল নেত্রী তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তবে শুধু যে মুখের কথায় কাজ হবে না, তা বুঝতে পেরে সম্প্রতি এই ব্যাপারে একটি মোবাইল নম্বর এবং একটি ওয়েবসাইট চালু করে “দিদিকে বলো” নামে একটি কর্মসূচির সূচনা করেন তৃণমূল নেত্রী।

যেখানে সাধারণ মানুষ তাদের সমস্ত অভাব, অভিযোগ জানাতে পারবেন বলে জানিয়ে দেন তৃণমূল দলের সর্বাধিনায়কা। তবে সম্প্রতি এই ব্যাপারে তৃণমূল নেত্রীর বিরুদ্ধে তোপ দাগেন তৃণমূলের প্রাক্তন সৈনিক তথা বর্তমান বিজেপি নেতা মুকুল রায়। যেখানে তিনি বলেন, “মুখ্যমন্ত্রীর কাছে অভিযোগ জানানোর জন্য আগেও টোল ফ্রি নম্বর ছিল। কিন্তু সেখানে ফোন করলে কেউ ধরতেন না।”

অর্থ্যাৎ, মুকুল রায় বোঝাতে চেয়েছিলেন যে, “দিদিকে বলো” এই কর্মসূচিতে ফোন নম্বর দিলেও কাজের কাজ কিছুই হবে না। এদিকে মুকুল রায় এই মন্তব্য করলেও তাকে গুরুত্ব দিতে নারাজ বালুরঘাটের প্রাক্তন সাংসদ তথা দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা তৃণমূল সভাপতি অর্পিতা ঘোষ।

সূত্রের খবর, মঙ্গলবার বালুরঘাট পৌরসভার প্রশাসক হিসেবে প্রথম পৌরসভায় পা রাখেন অর্পিতা ঘোষ। আর সেখানেই আধিকারিকদের সাথে নানা আলোচনার পর এই “দিদিকে বলো” প্রকল্প প্রসঙ্গে সাংবাদিক বৈঠক করেন তিনি। যেখানে দলীয় কর্মীদের “দিদিকে বলো” কর্মসূচির পোশাক ও লোগো তুলে দেন তিনি।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

আপনার মতামত জানান -

আর এরপরই এই প্রসঙ্গে বিজেপি নেতা মুকুল রায়ের বক্তব্যের কথা তার কাছে তুলে ধরলে দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা তৃণমূল সভাপতি অর্পিতা ঘোষ বলেন, “দিদিকে বলো এই উদ্যোগ সফল করতে যে ফোন নম্বর দেওয়া হয়েছে, সেখানে কেউ ফোন করলেই বুঝতে পারবেন যে কেউ ফোন ধরছে কি না। মুকুল রায় বিজেপি নেতা। তার অভিযোগের প্রেক্ষিতে আমি বক্তব্য দিতে যাব কেন!”

কিন্তু রাজনীতিতে একে অপরের বিরুদ্ধে মন্তব্য করবে, আর তার পরিপ্রেক্ষিতে মন্তব্য করাই তো অন্যতম অঙ্গ। যখন সারা রাজ্যে বিজেপি নেতা মুকুল রায়কে আক্রমণ করছে তৃনমূল নেতারা, সেখানে তিনি “বিজেপি নেতার উত্তর দিতে যাবেন না” বলে গোটা ঘটনাটিকে কি এড়িয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলেন অর্পিতা ঘোষ!

সমালোচকদের মতে, যে যাই বলুক না কেন, তৃনমূল দলে এখনও প্রায় প্রত্যেকেই এককালে তৃনমূলের সৈনিক তথা বর্তমান বিজেপি নেতা মুকুল রায়ের সম্পর্কে মন্তব্য করতে ইতস্তত বোধ করেন।নাকি মুকুল রায়কে চটাতে না চেয়ে বিজেপির জন্য রাস্তা খোলা রাখলেন, নাকি মুকুল রায় যে অভিযোগ এনেছেন তাকেই পরোক্ষভাবে মান্যতা দিলেন নেত্রী? এই নিয়েই এখন জোর জল্পনা শুরু হয়েছে রাজনৈতিকমহলের।

অন্যদিকে তৃণমূলের অন্দরেও গুঞ্জন নেত্রীর এ হেনো মন্তব্য নিয়ে। তাদের মতে মুকুল রায়কে ভালোমতো কথা শোনানোর সুযোগ হাতছাড়া করা উচিত হলো না। ফলে সব মিলিয়ে এবার কি সিঁদুরে মেঘ দেখতে শুরু করলো শাসকশিবির প্রশ্ন রাজনৈতিকমহলের।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!