এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > “সবে তো ট্রেলার। সিনেমার এখনও অনেক বাকি।” দলবদল নিয়ে মুকুল রায়ের মন্তব্যে জল্পনা

“সবে তো ট্রেলার। সিনেমার এখনও অনেক বাকি।” দলবদল নিয়ে মুকুল রায়ের মন্তব্যে জল্পনা

লোকসভা নির্বাচনে রাজ্যে বিজেপি ভালো ফলাফল করার পরে শাসক দল তৃণমূলের অন্দরমহল ভাঙতে শুরু করে। একাধিক বিধায়ক এবং একাধিক পৌরসভার কাউন্সিলর তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেন। আর এবার গতকাল দিল্লিতে বিজেপির সদর দপ্তরে উত্তরবঙ্গের হেভিওয়েট তৃণমূল নেতা তথা দক্ষিণ দিনাজপুরের তৃণমূলের প্রাক্তন সভাপতি বিপ্লব মিত্রের হাত ধরে রাজ্যের প্রথম জেলা পরিষদ হিসেবে দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা পরিষদ নিজেদের দখলে আনল গেরুয়া শিবির। যার ফলে দক্ষিণ দিনাজপুর জেলায় তৃণমূলের ভাঙ্গন ব্যাপক আকার ধারণ করল বলেই মনে করছে বিশ্লেষকদের একাংশ।

প্রসঙ্গত, 18 আসন বিশিষ্ট এই দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা পরিষদের মধ্যে 18 টি তৃণমূলের দখলে থাকলেও এদিন বিপ্লব মিত্রের সাথে জেলা পরিষদের সভাধিপতি লিপিকা রায় সহ 10 জন সদস্য বিজেপিতে যোগ দেন। পাশাপাশি এদিন কালচিনির তৃণমূল বিধায়ক উইলসন চম্প্রামারিও বিজেপিতে যোগ দেন। আর এরপরই রীতিমতো উজ্জীবিত হতে দেখা যায় বঙ্গ বিজেপির হেভিওয়েট নেতা মুকুল রায়কে।

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর আরও সহজে হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের যে কোনও এক্সক্লুসিভ সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপে। ক্লিক করুন এখানে – টেলিগ্রাম, হোয়াটস্যাপ, ফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউবফেসবুক পেজ

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

এদিন তিনি বলেন, “এটা তো সবে ট্রেলার। সিনেমার এখনও অনেক বাকি রয়েছে।” বস্তুত, লোকসভা নির্বাচনের প্রচারপর্বেই মুকুল রায় দাবি করেছিলেন যে, ফলাফল প্রকাশের পর তৃণমূল ভেঙে সকলে বিজেপিতে যোগ দেবে এবং তৃণমূলের কোনরূপ অস্তিত্ব থাকবে না। যেমন কথা তেমনি কাজ একের পর এক বিধায়ক কাউন্সিলরদের যোগদান করার পর এবার উত্তরবঙ্গের হেভিওয়েট তৃণমূল নেতা বিপ্লব মিত্র এবং দক্ষিণ দিনাজপুরের জেলা পরিষদ দখল করল বিজেপি। তবে এখানেই যে শেষ নয়, তা “সিনেমার এখনও অনেক বাকি রয়েছে” বলে মুকুল রায়ের মন্তব্যে ছড়িয়ে পড়েছে জল্পনা।

এদিন এই যোগদান পর্বে বিজেপির সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক কৈলাস বিজয়বর্গীয় বলেন, “আমি আগেই বলেছিলাম লোকসভা নির্বাচনের মতো বিজেপিতে যোগদান পর্ব সাত দফা ধরে চলবে। এখন প্রথম দফা চলছে।” একইভাবে বঙ্গ বিজেপি চাণক্য মুকুল রায় বলেন, “মমতা ব্যানার্জির সরকার পতনের আগে পর্যন্ত এই যোগদান পর্ব চলতেই থাকবে। সাত দফা শেষ হলে দেখা যাবে যে রাজ্যে তৃণমূলের সরকার তাদের ক্ষমতা হারিয়ে ফেলেছে।”

রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের মতে, একের পরে এক শাসকদলের হেভিওয়েট নেতা, বিধায়কদের বিজেপিতে যোগদান করিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও তৃণমূল কংগ্রেসের প্রতিনিয়ত ঘুম উড়িয়ে দিচ্ছেন মুকুল রায়। সোমবার রাজ্যের প্রথম দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা পরিষদ দখল করে সেই শাসকদলের অস্বস্তিকে আরও বাড়িয়ে দিলেন বঙ্গ বিজেপির চাণক্য বলে মনে করছে ওয়াকিবহাল মহলের একাংশ।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!