এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > সত্যিই কি এবার মুকুল রায়ের হাত ধরে তৃণমূল কংগ্রেসে ভাঙ্গন শুরু হয়ে গেল? কি বলছে রাজনৈতিক মহল?

সত্যিই কি এবার মুকুল রায়ের হাত ধরে তৃণমূল কংগ্রেসে ভাঙ্গন শুরু হয়ে গেল? কি বলছে রাজনৈতিক মহল?

প্রায় এক বছর হয়ে গেল তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগদান করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের একদা ছায়াসঙ্গী বলেই পরিচিত বর্তমান বিজেপির হেভিওয়েট নেতা মুকুল রায়। গতবছর উৎসবের মরশুমের পরপরই বিজেপিতে যোগদান করে তৃণমূলের একদা সেকেন্ড-ইন-কমান্ড হিসেবে পরিচিত মুকুল রায় বলেছিলেন যে, তাঁর হাত ধরেই রাজ্যের শাসকদলের অনেক হেভিওয়েট নেতা মন্ত্রী-সাংসদেরা বিজেপিতে নাম লেখাবেন।

কিন্তু সময় তো কারো জন্য থেমে থাকে না। তাই সময়ের এই দুর্বার গতিতে বঙ্গ রাজনীতির উত্থান পতনে তেমনভাবে রাজ্যের শাসকদলের কোনো হেভিওয়েট নেতাকে তেমনভাবে বিজেপিতে যোগদান করতে দেখা যায়নি। আর এই ঘটনায় মুকুলকে দলে নেওয়ার ব্যাপারে যে সমস্ত বিজেপির নেতা কর্মীরা আগ্রহ প্রকাশ করেছিলেন তারাও অনেকটা হতাশ হয়ে পড়েছিলেন।

অনেকেই চেয়েছিলেন, বঙ্গ রাজনীতির চাণক্য বলে পরিচিত মুকুল রায় হয়তো বা সত্যিই লোকসভা নির্বাচনের আগে চমক দিয়ে তৃণমূলের কোনো হেভিওয়েটকে বিজেপির পতাকা ধরাবেন। আর দলবদলের প্রায় এক বছর হয়ে গেলেও মুকুল রায়ের হাত ধরে তেমন কোনো তৃণমূলের হেভিওয়েট নেতা গেরুয়া শিবিরের নাম লেখানোয় হতাশ সৃষ্টি হয়েছিল রাজ্য বিজেপির সদর দপ্তর মুরলীধর লেনেও।

 

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর আরও সহজে হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের যে কোনও এক্সক্লুসিভ সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপে। ক্লিক করুন এখানে – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউবফেসবুক পেজ

যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এখানে

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

তবে মুকুল রায় অবশ্য নিজের অবস্থান থেকে এক পাও না সরে বারে বারেই দৃপ্ত কন্ঠে ঘোষণা করেছেন, “অপেক্ষা করুন, অনেক চমক রয়েছে।” তাই শেষ পর্যন্ত নিজের সেই কথাকে সত্যি করে আজ তৃণমূলের বিতর্কিত সাংসদ সৌমিত্র খাঁকে বিজেপিতে নিয়ে আসলেন তিনি।

তবে শুধু সৌমিত্র খাঁ নয়, লোকসভা ভোটের আগে তৃণমূল থেকে আরও 6 – 9 সাংসদ বিজেপিতে যোগদান করবেন বলেও খবর পাওয়া গেছে। তাহলে কি অবশেষে লোকসভা ভোটের আগে আস্তিন থেকে শেষ তাসটি বের করতে চলেছেন বঙ্গ রাজনীতির চাণক্য বলে পরিচিত বিজেপি নেতা মুকুল রায়?

নির্বাচনের প্রাক্কালে রাজ্যের শাসকদলের এই হেভিওয়েট নেতা, মন্ত্রী-সাংসদদের বিজেপির পতাকা ধরিয়ে তিনি যে ঠিক বলেছিলেন তা প্রমাণ করতে মরিয়া মুকুলবাবু? শেষ পর্যন্ত কি তাহলে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের একদা প্রাক্তন ছায়াসঙ্গী মুকুলের হাত দিয়েই লোকসভা ভোটের আগে ভাঙ্গন ধরবে রাজ্যের শাসকদলে?

তৃণমূলের একাংশের মতে, মুকুল ততক্ষনই স্থায়িত্ব লাভ করে যতক্ষণ আমগাছটা থাকে। তৃনমূলে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ই হলেন সেই আমগাছ। কাজেই এখন সেই আমগাছ থেকে মুকুল ভিন্ন হয়ে যাওয়ায় সেটা ঝরা মুকুলে পরিণত হয়ে গেছে। তাই এক্ষেত্রে মুকুল ম্যাজিকের তত্ত্ব কোনো কাজেই দেবে না বলেই আত্মবিশ্বাসী রাজ্যের শাসকদলের নেতারা।

তবে শাসক বনাম বিরোধীর এই দ্বৈরথের মাঝেই রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের অবশ্য ধারনা, শেষ পর্যন্ত কি হবে তা বোঝা যাবে আগামী লোকসভা ভোটের ইভিএমের বাক্স খোলার পরই।

সামগ্রিক পরিস্থিতি দেখে অনেকেই মনে করছেন, মুকুলের হাত ধরে তৃণমূলের হেভিওয়েট নেতা মন্ত্রী বিজেপিতে যোগদান করলেও বাংলায় এখনও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কারিশমা অটুট রয়েছে। ফলে সেক্ষেত্রে ঠিক কতটা কাজে দেবে এই মুকুল ম্যাজিক এখন তার দিকেই তাকিয়ে সকলে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!