এখন পড়ছেন
হোম > বিশেষ খবর > বাড়ছে আত্মপ্রত্যয়, ২০১৯ এর লক্ষ্যে ‘এলাকা’ বাড়াচ্ছেন মুকুল রায়

বাড়ছে আত্মপ্রত্যয়, ২০১৯ এর লক্ষ্যে ‘এলাকা’ বাড়াচ্ছেন মুকুল রায়

২০১৯ কে ‘টার্গেট’ করে কি এবার এলাকা ‘বাড়ানোর’ দিকে মন দিলেন মুকুল রায়? আত্মপ্রত্যয়ী মুকুল রায়ের কথা শুনে সেরকমই মনে হচ্ছে। দিল্লিতে বিজেপিতে যোগ দিয়ে কাঁচরাপাড়ার ‘ঘরের ছেলে’ কাঁচরাপাড়ায় পা রেখেই ভবিষ্যৎবাণী করেছিলেন ২০১৯ এর লোকসভা ভোটে তিনি যে লোকসভার অন্তর্গত এলাকায় থাকেন সেই ব্যারাকপুর তৃণমূল কংগ্রেসের হাত থেকে বিজেপির হাতে চলে যাবে।
আর গতকাল তিনি জানান ব্যারাকপুর তো বটেই তাঁর জেলা উত্তর ২৪ পরগনার বাকি দুই আসনও (দমদম ও বারাসত) পদ্মশিবিরের দখলে যাবে।আর এরফলে একদিকে যেমন মুকুল রায়ের আত্মপ্রত্যয় প্রস্ফুটিত হচ্ছে, অন্যদিকে শুরু হয়ে গেছে রাজনৈতিক গুঞ্জন। কেননা মুকুলবাবু আগেই বলেছিলেন ২০১৯ এর আগে অনেকেই শাসকদলের ছত্রছায়া ছেড়ে বিজেপিতে আসবেন। আর ব্যারাকপুরের সাংসদ দীনেশ ত্রিবেদীর সাথে দলনেত্রীর একটা দূরত্ত্ব তৈরি হয়েছিল, তাঁকে সরিয়েই কেন্দ্রে মুকুল বাবুকে রেলমন্ত্রী করেছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তখন গুঞ্জন ছিল ‘অপমানিত’ দীনেশ বাবু বিজেপির দিকে ঝুঁকে, যদিও পরবর্তীকালে তিনি প্রকাশ্যে এই নিয়ে কিছুই জানাননি। অন্যদিকে আজ আরো যে দুই সাংসদ এলাকার নাম করেছেন সেই দমদমের সাংসদ সৌগত রায় ও বারাসতের সাংসদ কাকলি ঘোষ দস্তিদার, দুজনের নামই নারদ কেলেঙ্কারিতে জড়িয়েছে। আর তাই এখন দেখার সুক্ষভাবে মুকুলবাবু শাসকদলের ভাঙনের ইঙ্গিত দিলেন নাকি জোর করে পদ্ম হওয়া তোলার চেষ্টা করলেন।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!