এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > প্রিয় কানন এসেছে দলে, এবার তৃণমূলের কি হাল করে ছাড়বেন মুকুল? জানলে চমকে যাবেন!

প্রিয় কানন এসেছে দলে, এবার তৃণমূলের কি হাল করে ছাড়বেন মুকুল? জানলে চমকে যাবেন!

অনেক জল্পনা কল্পনার অবসান ঘটিয়ে আজ দিল্লিতে বিজেপির কেন্দ্রীয় সদর দপ্তরে গিয়ে গেরুয়া শিবিরে নাম লেখালেন রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী তথা কলকাতার প্রাক্তন মেয়র শোভন চট্টোপাধ্যায় ও তাঁর ঘনিষ্ঠ বলে পরিচিত অধ্যাপিকা বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়। বারবারই শোভন ঘনিষ্ঠ শিবির থেকে জানা গেছে, মুখ্যমন্ত্রীর অত্যন্ত ঘনিষ্ঠ দলের এক প্রচন্ড ক্ষমতাবান যুবনেতার ‘কল্যাণে’ তৃণমূল নাকি শোভন চট্টোপাধ্যায়কে কোনঠাসা করার প্রক্রিয়া শুরু করে।

প্রচন্ড অপমানিত হয়ে সেসব দলনেত্রীকে জানিয়েও নাকি বিশেষ লাভ হয় নি বলে কোনো কোনো মহল থেকে দাবী। আর তাই নিজেকে গুটিয়ে নিয়েছিলেন শোভনবাবু। কিন্তু, লোকসভায় ঘাসফুল শিবিরের কার্যত ভরাডুবি হওয়ার পর, আবার নাকি দলের মধ্যে থেকে ‘প্রচন্ড চাপ’ আসছিল ‘ফিরে আসার’। ফলে, শোভনবাবু আর দেরি করতে রাজি ছিলেন না। গতকাল রাত্রেই দিল্লি চলে যান বৈশাখীদেবীকে নিয়ে। আর আজ অবশেষে নাম লেখালেন গেরুয়া শিবিরে।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

দীর্ঘদিন ধরেই এই যোগদান নিয়ে জল্পনা চলছিল, বিশেষ করে লোকসভা নির্বাচনের আগেই মুকুল রায়ের সঙ্গে শোভন চট্টোপাধ্যায়ের এক গোপন বৈঠক ঘিরে তা তীব্রতর হয়। আর আজ অবশেষে প্রিয় ‘কাননকে’ দলে যোগদান করিয়ে স্বভাবতই প্রচন্ড খুশি মুকুল রায়। আর প্রিয় কানন দলে আসতেই, তীব্র আক্রমণে তৃণমূলকে নাজেহাল করে দিতে শুরু করে দিলেন তিনি। শোভনবাবুকে দলে নিয়েই এমন এক হুঙ্কার ছুঁড়লেন ঘাসফুল শিবিরের দিকে, যে রীতিমত আশঙ্কিত হয়ে পড়তে পারেন ‘দিদি-বাহিনী’!

শোভনবাবুকে পাশে নিয়ে মুকুল রায়ের হুঙ্কার, শোভন চ্যাটার্জি দলে আসায় বঙ্গ-বিজেপি তো শক্তিশালী হলোই, তার সঙ্গে-সঙ্গেই নির্বাচন হলেই এবার কলকাতা পুরসভা তৃণমূলের হাতছাড়া হবে। একই সঙ্গে আপনারা (সাংবাদিকরা) লিখে রাখুন, আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনে তৃণমূল কংগ্রেসের প্রধান বিরোধী দলের তকমাও জুটবে না! ৩০ টি আসনও তৃণমূল কংগ্রেস বিধানসভায় পাবে না। আর মুকুল রায়ের এহেন তীব্র আক্রমনের পর, রীতিমত ঝড় উঠেছে রাজ্য রাজনীতিতে তা বলাই বাহুল্য।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!