এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > তৃণমূল কংগ্রেসের ব্রিগেড থেকে উত্তরবঙ্গে বিজেপির সম্ভাবনা – স্পষ্ট করলেন বিজেপি নেতা মুকুল রায়

তৃণমূল কংগ্রেসের ব্রিগেড থেকে উত্তরবঙ্গে বিজেপির সম্ভাবনা – স্পষ্ট করলেন বিজেপি নেতা মুকুল রায়

আগামী ১৯ শে জানুয়ারী কলকাতার ব্রিগেড প্যারেড গ্রাউন্ডে মহাসমাবেশ করতে চলেছে রাজ্যের শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেস। সেই সমাবেশে রেকর্ড জমায়েতের পাশাপাশি – কেন্দ্র থেকে বিজেপি সরকারকে হঠাতে মরিয়া একঝাঁক আঞ্চলিক ও জাতীয় দলের শীর্ষনেতারাও হাজির থাকতে চলেছেন। তৃণমূল শিবিরের দাবি, এই সমাবেশ থেকেই ‘প্ৰথম বাঙালি প্রধানমন্ত্রী’ হিসাবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নামে সিলমোহর পরে যাবে। ফলে, সবমিলিয়ে এখন সাজো সাজো রব শাসকদলের অন্দরে।

অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় থেকে সুব্রত বক্সী, ফিরহাদ হাকিম থেকে অরূপ বিশ্বাস – কার্যত নিঃশ্বাস ফেলার সময় নেই কারোর। কিন্তু, সেই মহা সমাবেশ নিয়ে কি বলছেন বছর কয়েক আগেও যিনি নিজের হাতে সামলেছেন এই সব সেই মুকুল রায়? আপাতত তিনি শিবির বদলে বিজেপিতে নাম লিখিয়েছেন এবং মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রধানতম প্রতিপক্ষের মধ্যে অন্যতম বলে পরিগণিত হচ্ছেন। সেই মুকুল রায় আপাতত দলীয় কাজে মালদাতে।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

রাজ্যে গেরুয়া প্রভাব বিস্তারে বিজেপির তরফে রথযাত্রার পরিকল্পনা করা হয়েছিল। কিন্তু রাজ্য সরকার রাজ্যের সার্বিক আইন-শৃঙ্খলা এর ফলে লঙ্ঘিত হবে দাবি তুলে এতে বাধা দেয়। ফলে, মামলা গড়ায় সুপ্রিম কোর্ট পর্যন্ত। কিন্তু, সুপ্রিম কোর্ট শেষপর্যন্ত রাজ্যের দাবিকে মান্যতা দিয়ে রথযাত্রার অনুমতি দেয় না। ফলে পাল্টা কর্মসূচি নিয়ে বিজেপি আগামী ২০, ২১ ও ২২ শে জানুয়ারী অমিত শাহকে দিয়ে ৫ টি জনসভা করতে চলেছে। আর তারই প্রথম সভা হওয়ার কথা মালদার সাহাপুরে।

সেই সভার প্রস্তুতি নিজে সরেজমিনে খতিয়ে দেখতে গিয়ে গতকাল রাতে মুকুলবাবু তৃণমূলের ব্রিগেড প্রসঙ্গে বলেন, আজ থেকে ৪১ বছর আগে কলকাতার ব্রিগেডে একটি সার্কাস হয়েছিল, লিডার ছিলেন জ্যোতি বসু। আর ৪১ বছর পর সেই রকম একটি সার্কাস হতে চলেছে, লিডার মমতা বন্দোপাধ্যায়। ৪১ বছর আগে হওয়া সার্কাসের ফল কী হয়েছিল, মানুষ তা জানে – এই সভারও ফল কী হবে, তা সময় বলবে। এই রাজ্যের বাইরে তৃণমূল কংগ্রেস একটি সিটেও যদি জামানত রাখতে পারে, তাহলে আমাদের দল মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে প্রধানমন্ত্রী করে দেবে। আপনাদের জানিয়ে রাখি, উত্তরবঙ্গের ৮টি আসনেই আমরা জিতব।

Top
error: Content is protected !!