এখন পড়ছেন
হোম > বিশেষ খবর > এবার সিবিআই-ইডির তদন্তের মুখে পার্থ চ্যাটার্জী? জল্পনা বাড়িয়ে দিলেন মুকুল রায়

এবার সিবিআই-ইডির তদন্তের মুখে পার্থ চ্যাটার্জী? জল্পনা বাড়িয়ে দিলেন মুকুল রায়

রাজ্যে আসন্ন পঞ্চায়েত ভোটে বিজেপির তরফে দায়িত্ত্ব পেতেই স্বমহিমায় বিজেপি নেতা মুকুল রায়। এবার তিনি তাঁর একদা সহকর্মী রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী তথা তৃণমূলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে সিবিআই ও ইডির তদন্ত চাইলেন আর এবিষয়ে তাঁর ‘ঢাল’ হলেন আরেক প্রাক্তন সহকর্মী মদন মিত্র। পশ্চিম মেদিনীপুরের ঘাটালে যুবমোর্চার সভা থেকে মুকুল রায় বলেন, মদন মিত্র যদি চিটফান্ডের সঙ্গে সম্পর্ক রাখার কারণে এক বছরের বেশি সময় জেল খাটতে পারেন, তাহলে পার্থ চট্টোপাধ্যায় নন কেন। তিনিও তো প্রয়াগের মালিককে পাশে নিয়ে মঞ্চে দাঁড়িয়েছিলেন। ওই সংস্থাকে সাহায্য করেছিলেন। তাহলে এক যাত্রায় পৃথক ফল কেন? তিনিও যখন একই দোষে দুষ্ট, তাঁকেও সিবিআই বা ইডি-র তলব করা উচিত। সেদিন আর বেশি দূরে নয়, যেদিন লাইন দিয়ে তৃণমূল নেতানেত্রীদের সিবিআই বা ইডির কাছে যেতে হবে।

মুকুল রায়ের এই কথার পরিপ্রেক্ষিতে পার্থবাবু সংবাদমাধ্যমকে জানান, বিজেপির এই সমস্ত এলেবেলে নেতাদের কথার উত্তর দেওয়ার মতো প্রবৃত্তি হয় না। বিজেপি নেতারা আগাম জানতে পারছেন কী করে যে, কাকে ডাকবে, কাকে ডাকবে না। তাহলে কি সিবিআই বা ইডি বিজেপির কথাতেই চলছে? অর্থাত্‍ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কথাই ঠিক। এ প্রসঙ্গে আরও প্রশ্ন ছুড়ে দেন পার্থ। তিনি বলেন, যদি এমন অভিযোগই থাকে, তাহলে এতদিন কেন সিবিআই বা ইডি ডাকল না? এসব হাফ নেতাদের কথার কোনও গুরুত্ব নেই। এঁরা বলতে হয় বলে, করতে হয় করে। তাই তাঁদের কথা এড়িয়ে যাওয়াই শ্রেয়। আর এসব বাজে কথার উত্তর দেওয়ার সময়ও নেই। সময় এলে মানুষই এর উত্তর দিয়ে দেবেন।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!