এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > কলকাতা পুলিশের নতুন পদক্ষেপে নারদের পাশাপাশি এবার এই মামলাতেও চাপ বাড়ল মুকুল রায়ের!

কলকাতা পুলিশের নতুন পদক্ষেপে নারদের পাশাপাশি এবার এই মামলাতেও চাপ বাড়ল মুকুল রায়ের!

সময়টা মোটেই ভালো যাচ্ছে না বিজেপি নেতা মুকুল রায়ের! মতানৈক্যের জেরে তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে নাম লিখিয়েই নিজের রাজনৈতিক ক্যারিশমা একের পর এক নির্বাচনে দেখিয়ে গেছেন রাজ্য-রাজনীতির এই অভিজ্ঞ ও কুশলী নেতা। কিন্তু, তা সত্ত্বেও বিজেপির তরফে এখনও মেলে নি সেরকম কোনো হেভিওয়েট পদ। তার উপরে, নারদ কাণ্ডের ফাঁস ক্রমশ যেন চেপে বসছিল। এবার গোদের উপর বিষফোঁড়ার মত নতুন চাপ শুরু হল তাঁর উপর।

নারদ কাণ্ডে কিছুদিন আগেই গ্রেপ্তার হয়েছেন তাঁর ঘনিষ্ঠ বলে পরিচিত পুলিশ অফিসার মির্জা। আর গ্রেপ্তার হয়েই বিস্ফোরকভাবে তিনি জানিয়েছেন যে, মুকুল রায়ের নির্দেশেই তিনি নাকি ছদ্মবেশী সাংবাদিক ম্যাথুর কাছ থেকে ১ কোটি ৭০ লক্ষ টাকা নেন ও পরে তা মুকুল রায়কে হস্তন্তরিত করেন। এরফলে, মুকুল রায়কে মির্জার মুখোমুখি বসিয়ে জেরা করার পাশাপাশি, তাঁর ফ্ল্যাটে মির্জাকে নিয়ে গিয়ে ঘটনার পুনর্নির্মাণ ও ভিডিওগ্রাফি করা হয়।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

সূত্রের খবর, আগামীদিনে নারদ স্টিং অপারেশনের মূল কারিগর ম্যাথু স্যামুয়েলের মুখোমুখি বসিয়েও জেরা করা হতে পারে মুকুল রায়কে। আর এই সব নিয়ে যখন আশঙ্কার চোরাস্রোত বইছে মুকুল-শিবিরে, তখন তাঁর চাপ আরও বাড়িয়ে এবার রেলওয়ে বোর্ডে পদ পাইয়ে দেবার নাম করে বেহালার ব্যবসায়ীকে প্রতারণা মামলায় নতুন করে কলকাতা পুলিশের সমনের মুখোমুখি হলেন তিনি।

সূত্রের খবর, এই প্রতারণা মামলায় আবারো জিজ্ঞাসাবাদের জন্য কলকাতা পুলিশের দক্ষিণ পশ্চিম বিভাগের অ্যাসিস্ট্যান্ট কমিশনার নবকুমার গুপ্ত তাঁকে ঠাকুরপুকুর থানায় ডেকে পাঠিয়েছেন। এর আগে গত ৯ ই সেপ্টেম্বর মুকুলবাবুকে এই মামলায় ডেকে পাঠিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করে কলকাতা পুলিশ। সে সময়, মুকুলবাবুর কাছে বেশ কিছু তথ্য জানতে চাওয়া হয় – সেসব খতিয়ে দেখেই পুনরায় তাঁকে জেরার জন্য ডাকা হয়েছে।

এই মামলায় মুকুলবাবুর ঘনিষ্ঠ বলে পরিচিত বিজেপি নেতা বাবান ঘোষ সহ দুজনকে ইতিমধ্যেই গ্রেপ্তার করে কলকাতা পুলিশ। বর্তমানে তাঁরা জামিনে আছেন। দুর্গাপুজোর অষ্টমীর দিনই মুকুলবাবুকে দেখা করতে বলা হয়েছিল, কিন্তু পুজো নিয়ে ব্যস্ত থাকায় পরে যাবেন বলে নিজের আইনজীবীর মাধ্যমে কলকাতা পুলিসজকে জানান মুকুল রায়। এদিকে, এই মামলায় কলকাতা হাইকোর্টের রায়ে মুকুল রায়কে আগামী ৯ ই নভেম্বর পর্যন্ত গ্রেপ্তার করা যাবে না বলে জানানো হয়েছে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!