এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > পুরুলিয়া-ঝাড়গ্রাম-বাঁকুড়া > বিজেপির সভা করার অনুমতি দিল না প্রশাসন, ট্রাক্টরের ডালাতেই মঞ্চ বেঁধে অভিনব সভা দিলীপ ঘোষ-মুকুল রায়ের

বিজেপির সভা করার অনুমতি দিল না প্রশাসন, ট্রাক্টরের ডালাতেই মঞ্চ বেঁধে অভিনব সভা দিলীপ ঘোষ-মুকুল রায়ের

পুরুলিয়ার কাশীপুরের কলেজ মাঠে বিজেপিকে সভা করার অনুমতি দেয়নি প্রশাসন। তার পরেও রবিবার সেই মাঠেই ট্রাক্টরের ডালায় মঞ্চ বেঁধে সভা হল। সেখান থেকে প্রশাসনের বিরুদ্ধে তোপ দাগলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ ও মুকুল রায়। গত ২০ শে ডিসেম্বর মৌতোড়ে তৃণমূল যুব কংগ্রেসের সর্বভারতীয় সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় যে বক্তব্য রেখেছিলেন তার প্রতুত্তর জানিয়েই এদিন সভায় চাঁচাছোলা মন্তব্য করেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দীলিপ ঘোষ।

একইসঙ্গে টিএমসিপির দৌরাত্ম্যকে কটাক্ষ করে তিনি বলেন, “সামনে পরিবর্তন আসছে তাই টিএমসিপির দাদারা বেশি দাদাগিড়ি দেখাবেন না। শুনলাম যে কলকাতা থেকে নাকি যুবরাজ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় এসেছিলেন। তিনি এখানেই থাকছেন আজকাল বেশিরভাগ সময়! আর আমাদের আমাদের পঞ্চায়েত সদস্যকে ভাঙাচ্ছেন, সমিতি ভাঙাচ্ছেন, জেলা পরিষদ ভাঙাচ্ছেন। বিজেপি জিতেছে সহ্য করতে না পেরে ধমকি দিচ্ছেন”!

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

আপনার মতামত জানান -

দিলীপবাবু আরও বলেন, “আরও ধমকি দিচ্ছেন যে বিদ্যাসাগর দা’র (পুরুলিয়ার জেলা সভাপতি বিদ্যাসাগর চক্রবর্তী) বাড়ি ঘেরাও করবেন! আসুন, দেখা যাক, জঙ্গলমহলে কার কত দম আছে। আপনি এখানে যখন আসবেন, গিয়ে দেখবেন আপনার কালিঘাটের বাড়ি আমরা ঘেরাও করে নিয়েছি”! দিলীপবাবুর পাশাপাশি মুকুলবাবুও চাঁচাছোলা বক্তব্য রাখেন বলে সূত্রের খবর।

অন্যদিকে, সামগ্রিক ভাবে জঙ্গলমহলের উন্নয়ন নিয়ে তৃণমূলকে তীব্র ভাষায় আক্রমন করেন বিজেপি নেতৃত্ত্বরা। জঙ্গলমহলে ১০০ দিনের টাকা , স্বচ্ছ ভারতের পায়খানার টাকা, প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনার টাকা তৃণমূল ‘খাচ্ছে’ বলে দাবি করেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি। পাশাপাশি মুকুল রায় বলেন, “পুরুলিয়ার সাতটি বিধান সভার পঞ্চায়েত ভোটে বিজেপি যা রেজাল্ট করেছে, সেই পরিসংখ্যানে তৃণমূল সাংসদ মৃগাঙ্ক মাহাত হেরেই আছেন। বিজেপির টিকিটে জয়ী সদস্যদের ভয় দেখিয়ে তৃণমূলে টানলেও ভোটাররা আমাদের সাথেই রয়েছে, যার ফল বোঝা যাবে লোকসভায়”।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!