এখন পড়ছেন
হোম > বিশেষ খবর > ‘পিসি-ভাইপো’ নাম নিয়ে বিস্ফোরক সব অভিযোগ আনলেন মুকুল রায়

‘পিসি-ভাইপো’ নাম নিয়ে বিস্ফোরক সব অভিযোগ আনলেন মুকুল রায়

‘পিসি ম্যানেজিং ডিরেক্টর-ভাইপো ডিরেক্টর,বাকিরা এজেন্ট’ – এই ভাষাতেই নজিরবিহীন ভাবে শাসকদলের বিরুদ্ধে তোপ দাগলেন মুকুল রায় বলে এক সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমের বাংলা সংস্করণে দাবি করা হয়েছে। শাসকদলের বিরুদ্ধে প্রকাশ্য সভায় এমন মন্তব্য এর আগে বাংলার রাজ্য-রাজনীতিতে শোনা যায়নি, কিন্তু এই ভাবেই নাম না করে শাসকদলকে রীতিমত ভর্ৎসনা করলেন প্রাক্তন তৃনমূল নেতা মুকুল রায়। ওই ওয়েব পোর্টালের খবরের পরিপ্রেক্ষিতে জানা যাচ্ছে গতকালের সভায় তিনি বলেন, এই পিসি-ভাইপোর কোম্পানিতে ম্যানেজিং ডিরেক্টর হলেন পিসি ও ভাইপো হলেন ডিরেক্টর, আর কোনও ডিরেক্টর নেই। নিচুতলার কর্মীরা হলেন এই কোম্পানির এজেন্ট। এজেন্টদের মাধ্যমে টাকা তুলে ডিরেক্টরের কাছে পাঠানো হচ্ছে।

এই ভাষাতেই তৃনমূলকে আক্রমণ করলেন একসময়ের শাসক দলের ‘ক্রাইসিস ম্যানেজার’ মুকুল রায়। বিজেপিতে যোগ দেওয়ার পর থেকেই একের পর এক সভায় শাসকদলের বিরুদ্ধে চাঞ্চল্যকর মন্তব্য করেছেন তিনি, এর আগে তিনি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে তোপ দাগেন। বিশ্ববাংলা নিয়ে একাধিক তথ্য তুলে ধরে তিনি দাবি করেন বিশ্ব বাংলার মালিক অভিষেক বন্দোপাধ্যায় এবং তার প্রচারে আখেরে লাভ মুখ্যমন্ত্রীর ভাইপোর। আবারও পিসি-ভাইপো-র কোম্পানি বলেই তিনি দাবি করেন শাসক শিবিরকে। এই সরকারের পতন অবশ্যম্ভাবী বলেও মত প্রকাশ করে তিনি বলেন, নির্ধারিত সময়ের আগেই মমতার সরকারকে বিদায় নিতে হবে। ১০ বছর পূর্ণ করতে পারবে না এই সরকার। বাংলার মানুষ পিসি-ভাইপোর কোম্পানির সরকারকে ছুঁড়ে ফেলে দেবে।

ওই ওয়েব পোর্টালের খবরের পরিপ্রেক্ষিতে আরো জানা যাচ্ছে এমনকি তাঁর নিশানা থেকে বাদ যাননি রাজ্য পুলিশের ডিজি সুরজিৎ কর পুরকায়স্থও। তিনি অভিযোগ করনে, স্বয়ং রাজ্য পুলিশের ডিজিও চিটফাণ্ডে জড়িত, রোজভ্যালিতে তিনি ওতপ্রোতভাবে জড়িত। আর রাজ্যে যাঁদের কোম্পানি সরকার চালাচ্ছে, তাঁদেরই এক শেয়ার হোল্ডার ভাইপো। তাঁর কাছে ঢোকে কয়লা পাচারের টাকা। এদিন জঙ্গলমহল থেকে চাঁছাছোলা ভাষায় আক্রমণ শানালেন মুকুল রায়। বীরভূমে তিনি যে ভাষায় পুলিশকে আক্রমণ করেছিলেন, এদিন পুরুলিয়াতেও একই সুরে তীব্র আক্রমন করেন ওসি ও পুলিশ সুপারকে। পুলিশ সুপারের দিকে তিনি অভিযোগ তুলে বলেন, তিনি কয়লা পাচারকারীদের কাছ থেকে টাকা তুলে যুবরাজের কাছে পাঠান। এইসব অপকর্মের জবাব চাইবে মানুষ, শুধু পরিবর্তনের অপেক্ষা। তারপরই মানুষের কাছে জবাবদিহি করতে হবে আপনাদের। এছাড়াও তিনি তাঁর ঘনিষ্ট শিক্ষক নেতা শুভজিৎ মাহাতোকে গ্রেফতারের প্রসঙ্গ তুলে বলেন, মিথ্যা মামলায় ফাঁসিয়ে তাঁকে গ্রেফতার করা হয়েছে, পুরো ঘটনাটাই সাজানো। যদিও এই খবরের সত্যতা বা সূত্র সম্পর্কে ওই ওয়েব পোর্টালে কিছু লেখা নেই, প্রিয়বন্ধু বাংলার তরফেও এই খবরের সত্যতা যাচাই করে দেখা সম্ভব হয় নি। এই প্রবন্ধ সম্পূর্ণরূপে ওই পোর্টালে প্রকাশিত খবরের পরিপ্রেক্ষিতে করা, কোনোভাবেই রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত নয় বা কোনো ব্যক্তি বা দলের সম্মানহানির উদ্দেশ্যে রচিত নয়।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!