এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > নদীয়া-২৪ পরগনা > মমতাদেবী, আপনার কুকীর্তির কথা মানুষ জানতে পারলে আপনাকে আস্তাকুঁড়ে ছুড়ে ফেলে দেবে: মুকুল রায়

মমতাদেবী, আপনার কুকীর্তির কথা মানুষ জানতে পারলে আপনাকে আস্তাকুঁড়ে ছুড়ে ফেলে দেবে: মুকুল রায়

আজ ব্যারাকপুরে বিজেপি নেতা মুকুল রায় রেল স্টেশন সংলগ্ন মঞ্চে বিজেপির গণতন্ত্র বাঁচাও সমাবেশ কর্মসূচি উপলক্ষে উপস্থিত হয়ে রাজ্যের শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেস ও তৃণমূল কংগ্রেসের শীর্ষনেতাদের তীব্র আক্রমন করেন। মুকুলবাবু বলেন, বিজেপির তরফ থেকে ২৯ শে অক্টোবর থেকে রাজ্য সরকারকে বারবার জানানো হয়েছে এই রথযাত্রা উপলক্ষে তাঁরা রাজ্য সরকারের সঙ্গে আলোচনা করতে চান।

মুকুলবাবুর অভিযোগ, কিন্তু বিজেপির তরফ থেকে বারবার আবেদন জানানো হলেও রাজ্য সরকার কোনোরকম আলোচনায় বসতে চায় নি। শেষপর্যন্ত আদালতের নির্দেশে বিজেপির তিন সদস্যের প্রতিনিধি দলের সঙ্গে আলোচনায় বসতে বাধ্য হয় রাজ্য প্রশাসন। কিন্তু, সেই আলোচনার পর রাজ্যে ‘আইনশঙ্খলার অবনতি’ হতে পারে – এই যুক্তিতে রাজ্য সরকার আবারো অনুমতি দেয় না। মুকুলবাবু এর পরিপ্রেক্ষিতে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে তীব্র আক্রমন করেন।

মুকুল রায়ের স্পষ্ট দাবি, ভারতবর্ষের ফেডারেল স্ট্রাকচার অনুযায়ী এইভাবে কোন রাজনৈতিক দলের কর্মসূচি আটকানো যায় না। আর যদি আইনশৃঙ্খলার অবনতির কথা বলা হয় – তাহলে আর এক মুহূর্তও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ক্ষমতায় থাকা উচিত নয়। এরপরেই তিনি জানান, ব্যারাকপুরের যিনি পুলিশ কমিশনার তিনি ন্যায়ের পথেই চলেন বলে তাঁর জানা আছে। সুতরাং, এই ব্যাপারেও তিনি ন্যায়ের পথেই তিনি থাকবেন বলেই মুকুলবাবুর বিশ্বাস।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

আপনার মতামত জানান -

এরপরেই বিজেপির পার্টি অফিস তৃণমূল কংগ্রেস দখল করে নিচ্ছে বলে অভিযোগ জানিয়ে মুকুলবাবু বলেন, ইতিহাসের পুনরাবৃত্তি হয়। আপনারা দেখেছেন বাম জামানের ৩৪ বছরের শাসন – জ্যোতিবাবু, বুদ্ধবাবুর আমলে গণতন্ত্রের ‘শ্লীলতাহানি’ হয়েছে! কিন্তু মমতা ব্যানার্জির আমলে গণতন্ত্রের ‘গণধর্ষণ’ হচ্ছে! এরপর মুকুলবাবু রাজ্য গোয়েন্দা দপ্তরের রিপোর্ট প্রসঙ্গে জানান – তাহলে কি পঞ্চায়েত নির্বাচনের সময় গোয়েন্দা রিপোর্ট ছিল ১০০ মানুষ মারা যাবেন?

এরপর মুকুলবাবুর অভিযোগ, বর্তমানে প্রশাসনের কাজ হচ্ছে কিভাবে ভারতীয় জনতা পার্টির কর্মীদের রাজনৈতিকভাবে ‘হ্যারাস’ করা যায় তা নিশ্চিত করা! কিভাবে তাঁদের মিথ্যা মামলায় ফাঁসানো যায়! আমি নিজে ব্যারাকপুর লোকসভার ছেলে – বর্তমানে দিল্লিতে থাকি। কিন্তু এখানে আমি দীর্ঘ ৪০ বছর ধরে রাজনীতি করছি – আমার নামে একটি জিডিও ছিল না। আর আমি বিজেপিতে যোগ দিতেই মমতা ব্যানার্জির সরকার আমার নামে ২৭ টি মামলা করেছে।

মুকুলবাবু বলেন, তাহলেই বুঝতে পারছেন বাংলায় মমতা ব্যানার্জির নেতৃত্ত্বে কিভাবে গণতন্ত্র ধ্বংস হচ্ছে! তার বিরুদ্ধেই আমাদের এই কর্মসূচি – যার উদ্বোধন করবেন স্বয়ং বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ। আর এই কর্মসূচির শেষে বাংলার মানুষকে সম্বোধিত করবেন স্বয়ং দেশের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। একইসঙ্গে মুকুল রায়ের চ্যালেঞ্জ – রথযাত্রা হলে শুধুমাত্র ব্যারাকপুর লোকসভা থেকে ২ লক্ষ মানুষ যোগ দেবেন আর নাহলে তিনি রাজনীতি ছেড়ে দেবেন।

একইসঙ্গে তাঁর অনুযোগ, মমতাদেবী আপনি বিরোধিতার কথা শুনতে ভয় পাচ্ছেন। আপনার ভয় – আপনার কুকীর্তির কথা মানুষ জানতে পারলে আপনাকে আস্তাকুঁড়ে ছুড়ে ফেলে দেবে – তাই আপনি আটকাতে চাইছেন। কিন্তু এইভাবে আটকাতে পারবেন না – আমরা গণতন্ত্র বাঁচাও যাত্রা করব এবং নিশ্চিত করব যাতে লোকসভা নির্বাচনে মানুষ তাঁর নিজের ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পারে। শেষপর্যন্ত গণতন্ত্রের জয় হবেই।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!