এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > মির্জার মুখোমুখি বসিয়ে জেরার জন্য সময় চাইলেন মুকুল রায়, নারাজ সিবিআই আবার পাঠাল নোটিশ

মির্জার মুখোমুখি বসিয়ে জেরার জন্য সময় চাইলেন মুকুল রায়, নারাজ সিবিআই আবার পাঠাল নোটিশ

এতদিন কার্যত হিমঘরে থাকার পর গতকাল থেকে নতুন করে পরে গেছে নারদ কেলেঙ্কারি নিয়ে। ছদ্মবেশী সাংবাদিক ম্যাথু স্যামুয়েলের করা স্টিং অপারেশনে দেখা গিয়েছিল বহু হেভিওয়েট তৃণমূল নেতা-মন্ত্রী ও পুলিশ আধিকারিক এসএমএইচ মির্জা গোছাগোছা টাকা নিচ্ছেন। সেই তদন্তে, গতকাল প্রথম গ্রেপ্তার করা হয় পুলিশ আধিকারিক এসএমএইচ মির্জা। গ্রেপ্তারের পরেই তাঁকে পাঁচদিনের হেফাজতে পেয়েছে সিবিআই।

এদিকে সাংবাদিক ম্যাথু স্যামুয়েল ইঙ্গিত দিয়েছিলেন তৎকালীন তৃণমূলের সেকন্ড-ইন-কম্যান্ড মুকুল রায়ের নির্দেশেই টাকা নিয়েছিলেন মির্জা। যদিও, সেই টাকার ব্যাপারে মির্জা গতকাল জেরায় মুখ খুলতে না চাওয়ায় তাঁকে গতকাল গ্রেপ্তার করে সিবিআই। আর এরপরেই জল্পনা বাড়িয়ে মুকুল রায়কে ডেকে পাঠানো হয় সিবিআইয়ের তরফে। যদিও, মুকুলবাবু জানিয়েছিলেন তিনি নিজে তো কোনো টাকা নেনই নি, মীর্জাকেও টাকা নিতে বলেননি।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

মুকুলবাবুর বক্তব্য ছিল, ছদ্মবেশে ম্যাথু স্যামুয়েল তাঁর কাছে এসে বর্ধমানে ব্যবসা করার কথা বলেন। ব্যবসা করতে যেহেতু জমির দরকার পরে এবং সেই জমি সংক্রান্ত ব্যাপারে পুলিশের সাহায্য লাগতে পারে, তাই তিনি তৎকালীন বর্ধমানের পুলিশ সুপার মির্জার কাছে ম্যাথু স্যামুয়েলকে পাঠিয়েছিলেন। আর, এই ব্যাপারেই সত্যতা খুঁজে বার করতে সিবিআই পুলিশ আধিকারিক এসএমএইচ মির্জা ও বিজেপি নেতা মুকুল রায়কে মুখোমুখি জেরা করতে চায় বলে জল্পনা।

এদিকে, মুকুল রায়কে নোটিশ পাঠিয়ে আজ নিজাম প্যালেসে দেখা করতে বলা হলে, তিনি তাঁর প্রতিনিধির মাধ্যমে সিবিআইকে জানিয়ে দেন, এখন তিনি দলীয় কাজে ব্যস্ত। তাই তাঁকে যেন দু-একদিন সময় দেওয়া হয়। কিন্তু, সিবিআইয়ের হাতে যেহেতু পাঁচ দিন আছে – তাই নাছোড় সিবিআই পুনরায় মুকুলবাবুকে নোটিশ পাঠিয়ে জানিয়ে দিয়েছে – আগামীকালই তাঁকে নিজাম প্যালেসে আসতে হবে। ফলে, সিবিআইয়ের এই নাছোড় মনোভাব দেখে ক্রমশ জল্পনার পারদ চড়ছে রাজ্য-রাজনীতিতে।

প্রসঙ্গত, সিবিআইয়ের এক অসমর্থিত সূত্রে জানা গেছে, আগামী কয়েকদিনের মধ্যেই হয়ত নারদ কাণ্ডে চার্জশীট জমা পরে যাবে। যেহেতু, একাধিক হেভিওয়েট নেতা-মন্ত্রীর নাম জড়িয়ে আছে, তাই সেই চার্জশীটে কার-কার নাম থাকতে পারে তাই নিয়ে চলছে চূড়ান্ত জল্পনা। এর মাঝেই পুলিশ আধিকারিক এসএমএইচ মির্জার গ্রেপ্তারি এবং তাঁর মুখোমুখি মুকুল রায়কে বসিয়ে জেরার জন্য সিবিআইয়ের নাছোড় মনোভাব – রাজ্য-রাজনীতিতে বড়সড় ঝড় তোলার ইঙ্গিত দিচ্ছে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!