এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > আর্থিক প্রতারণা মামলায় বড়সড় অস্বস্তিতে মুকুল রায়,

আর্থিক প্রতারণা মামলায় বড়সড় অস্বস্তিতে মুকুল রায়,

ফের বড়সড় অস্বস্তিতে বঙ্গ বিজেপির চাণক্য। এবার আর্থিক প্রতারণা মামলায় মুকুল রায়কে তলব করল কলকাতা পুলিশ। সূত্রের খবর, সোমবার বিকেল চারটের মধ্যে বেহালা অ্যাসিস্ট্যান্ট কমিশনারের অফিসে হাজিরার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বিজেপি নেতাকে। যা নিয়েই এবার তীব্র চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে।

বস্তুত, জোনাল রেলওয়ে ইউজার কনসালটেটিভ কমিটির সদস্যপদ পাইয়ে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে টাকা নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে মুকুল রায় ঘনিষ্ঠ বিজেপির শ্রমিক সংগঠনের রাজ্য সভাপতি বাবান ঘোষের বিরুদ্ধে। জানা যায়, গত 2015 সালের সেপ্টেম্বর মাস থেকে পরের বছর মে মাস পর্যন্ত সন্তু গঙ্গোপাধ্যায় নামে এক ব্যবসায়ীর থেকে ধাপে ধাপে ৭০ লক্ষ টাকা নিয়েছিলেন বাবান ঘোষ।

আর এরপরই প্রতারিত হয়েছেন বুঝতে পেরে সরশুনা থানায় চলতি বছরের জানুয়ারি মাসে মুকুল রায়, বাবান ঘোষ, সাদ্দাম আনসারি সহ ৪ জনের বিরুদ্ধে প্রতারণা সহ একাধিক ধারায় মামলা রুজু করেন তিনি। ইতিমধ্যেই পুলিশ সেই বাবান ঘোষকে গ্রেফতার করেছে। এদিকে বাবান ঘোষের গ্রেফতারের পরই আইনি রক্ষাকবচ চাইবার জন্য কলকাতা হাইকোর্টের দ্বারস্থ হন মুকুল রায়। সেখানে বিচারপতি শহিদুল্লা মুন্সির ডিভিশন বেঞ্চে আগাম জামিনের আর্জি জানান তিনি।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

আপনার মতামত জানান -

যেখানে মুকুল রায়ের হয়ে আইনজীবী ছিলেন বিকাশরঞ্জন ভট্টাচার্য।আর সেই সময়ই বিচারপতি শহিদুল্লা মুন্সি এবং বিচারপতি শুভাশিস দাসগুপ্তের ডিভিশন বেঞ্চ নির্দেশ দেয়, 5 সেপ্টেম্বর পর্যন্ত মুকুল রায়কে গ্রেফতার করা যাবে না। আর এরপরই গত শুক্রবার এই মামলায় বিজেপি নেতা মুকুল রায়ের গ্রেফতারির ওপর স্থগিতাদেশ বাড়ায় হাইকোর্ট। যার ফলে আগামী 16 সেপ্টেম্বর এই মামলার পরবর্তী শুনানি হবে।

তবে হাইকোর্ট স্পষ্ট নির্দেশ দিয়েছে, তদন্তে সহযোগিতা করতে হবে মুকুল রায়কে। এমনকি এই বিজেপি নেতাকে ডেকে পাঠানোর ৭২ ঘণ্টা আগেই তাঁকে নোটিস পাঠাতে হবে। তবে আজ এই ব্যাপারে উপস্থিত হওয়ার জন্য মুকুল রায়কে নির্দেশ দেওয়া হলেও তিনি সেখানে যাবেন কিনা, এখন সেদিকেই তাকিয়ে সকলে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!