এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > মুকুল রায়ের বিরুদ্ধে বোমা ফাটালেন মির্জা, চাপ বাড়ছে বাংলার চাণক্যের

মুকুল রায়ের বিরুদ্ধে বোমা ফাটালেন মির্জা, চাপ বাড়ছে বাংলার চাণক্যের

সম্প্রতি নারদ কান্ডে প্রথম গ্রেপ্তার করা হয়েছে আইপিএস অফিসার এসএমএইচ মির্জাকে। যে ঘটনায় রাজ্য রাজনীতিতে তীব্র জল্পনা শুরু হতে থাকে যে, তাহলে হয়ত এবার ম্যাথু স্যামুয়েলের করা স্টিং অপারেশনের ভিডিওতে যেভাবে প্রকাশ্যে অনেক নেতা, মন্ত্রী, সাংসদদের টাকা নিতে দেখা গেছে, তাদের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নেওয়া হবে।কিন্তু এই ঘটনায় এখনও পর্যন্ত ভিডিওতে যাদের টাকা নিতে দেখা গিয়েছিল, তারা প্রত্যেকেই তৃণমূলের সৈনিক।

তবে একজনকে নিয়ে এখন প্রবল জটিলতা তৈরি হয়েছে। তার নাম তৎকালীন তৃণমূল নেতা তথা বর্তমান বিজেপি নেতা মুকুল রায়। সেই সময় তিনি তৃণমূলে থাকলেও এখন তিনি বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন। ফলে মুকুল রায়ের বিরুদ্ধে সেভাবে কোনো পদক্ষেপ নেওয়া হবে কিনা, তা নিয়ে প্রথম থেকেই প্রশ্ন তুলেছিল বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলো। কিন্তু প্রাক্তন পুলিশ সুপার এসএমএইচ মির্জার গ্রেপ্তারের পর সেই মুকুল রায়ের ভবিষ্যৎ নিয়ে তীব্র জল্পনা শুরু হয়।

এমনকি সম্প্রতি সিবিআইয়ের নিজাম প্যালেসে সেই মুকুল রায়কে ডেকে মির্জার মুখোমুখি বসিয়ে জেরাও করা হয় কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থার পক্ষ থেকে। তবে বরাবরই তাকে ভিডিওতে টাকা নিতে দেখা যায়নি এবং তিনি কোনো টাকা নেননি তাই এক্ষেত্রে এই ঘটনার সঙ্গে তার কোনো যোগ নেই বলে জানিয়ে দিয়েছেন মুকুল রায়।

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর আরও সহজে হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের যে কোনও এক্সক্লুসিভ সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপে। ক্লিক করুন এখানে – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউবফেসবুক পেজ

যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এখানে

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

কিন্তু বঙ্গ বিজেপির চাণক্য যে কথাই বলুন না কেন, নারদকান্ডে এবার তার অস্বস্তি অনেকটাই বাড়িয়ে দিলেন এসএমএইচ মির্জা। সূত্রের খবর সোমবার আদালতে শুনানি শেষে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে এই প্রাক্তন পুলিশ সুপার বলেন, “আমি মুকুল রায়ের নির্দেশেই টাকা নিয়েছিলাম এবং সেই টাকা ওনার হাতে তুলে দেওয়া হয়েছিল।”

কিন্তু মির্জা একথা বললেও বরাবরই মুকুল রায় দাবি করে এসেছেন, ভিডিওতে তাকে কোনোভাবেই টাকা নিতে দেখা যায়নি। কাজেই তাকে কাঠগড়ায় তোলা ঠিক নয়। এদিন মুকুলবাবুর সেই কথা তুলে ধরে তাকে আক্রমণ করেন এসএমএইচ মির্জা। তিনি বলেন, “টাকা নেওয়া ছবি দেখা যায়নি তো কি হয়েছে! ওনার ভয়েস তো শোনা যাচ্ছে। আর তদন্ত চলছে। তদন্তেই সবকিছু স্পষ্ট হয়ে যাবে। আমার পূর্ণ বিশ্বাস আছে আইনের উপর। অপেক্ষা করুন, সব জানতে পারবেন।”

এদিন তিনি আরও বলেন, সাড়ে তিন বছর ধরে তিনি মনের মধ্যে যে কথাগুলো চেপে রেখেছিলেন, আজ তা প্রকাশ করতে পেরে তিনি হালকা অনুভব করছেন। আর এখানেই একাংশের প্রশ্ন, তাহলে কি সিবিআইয়ের জেরায় বঙ্গ বিজেপির চাণক্য মুকুল রায়ের বিরুদ্ধে বিস্ফোরক কিছু তথ্য দিয়েছেন নারদকান্ডে ধৃত এসএমএইচ মির্জা!

রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের একাংশ বলছেন, যেভাবে সম্প্রতি এই মির্জাকে গ্রেপ্তারের পর তার মুখোমুখি বসিয়ে বিজেপি নেতা মুকুল রায়কে জেরা করা হয়েছিল এবং তারপর যেভাবে সেই মির্জাকে নিয়ে তার বাড়িতে গিয়ে নারদকান্ডের পুনর্নির্মাণ করেছিলেন সিবিআই কর্তারা, তারপর থেকেই মুকুল বাবুকে নিয়ে জল্পনা বৃদ্ধি পেয়েছে।

আর এবার যখন সেই মুকুল রায়কে নিয়ে নারদা-কাণ্ড সম্পর্কে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে, ঠিক তখনই সেই মুকুল রায়কে কাঠগড়ায় দাঁড় করিয়ে তার অস্বস্তিকে অনেকটাই বাড়িয়ে দিলেন এসএমএইচ মির্জা বলে দাবি বিশ্লেষকদের। তবে মির্জা মুকুল রায়ের বিরুদ্ধে তার বক্তব্য পেশ করলে এখন মির্জার এই বক্তব্য খন্ডন করতে বঙ্গ বিজেপির চাণক্য নিজের পক্ষে সওয়াল করে ঠিক কি দাবি করেন, এখন সেদিকেই তাকিয়ে সকলে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!