এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > মুকুল রায়ের চাপ বাড়াচ্ছে কি ম্যাথু স্যামওয়েলের “ঘোরালো জবাব”? বাড়ছে জল্পনা

মুকুল রায়ের চাপ বাড়াচ্ছে কি ম্যাথু স্যামওয়েলের “ঘোরালো জবাব”? বাড়ছে জল্পনা

হঠাৎই একদিন এক ভিডিওতে দেখা যায়, রাজ্যের শাসকদলের অনেক হেভিওয়েট নেতা প্রকাশ্যে টাকা নিচ্ছেন। যা নিয়ে তোলপাড় হয়ে যায় রাজ্য রাজনীতি। তারপর গঙ্গা-যমুনা-সরস্বতী দিয়ে অনেক জল বয়ে গেছে। যতদিন এগোচ্ছে, ততই নারদ কান্ডে গতি বাড়াচ্ছে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা।

কিছুদিন আগেই নারদ কান্ডে সর্বপ্রথম গ্রেপ্তার করা হয়েছে প্রকাশ্যে ফুটেজে টাকা নিতে দেখা দেখা যাওয়া আইপিএস অফিসার এসএমএইচ মির্জাকে। আর এবার এই নারদ কান্ড নিয়ে নারদ কর্তা ম্যাথু স্যামুয়েলের বক্তব্যে প্রবল জল্পনার সৃষ্টি হল। সূত্রের খবর, এদিন সিবিআই দপ্তর থেকে বেরিয়ে ম্যাথু স্যামওয়েল বলেন, “তদন্তের জট এখন পুরোপুরি খুলে গিয়েছে। কোন নেটওয়ার্কে, কিভাবে লেনদেন হয়েছে তা তদন্তকারীদের কাছে স্পষ্ট।”

পাশাপাশি তৎকালীন তৃণমূল নেতা তথা বর্তমান বিজেপি নেতা মুকুল রায় সম্পর্কেও এদিন মন্তব্য করেন নারদ কর্তা। তিনি বলেন, “মুকুল সরাসরি টাকা নেয়নি। কিন্তু মির্জার মারফত টাকা নিয়েছেন। সুতরাং মুকুল রায়কে বাইরে রেখে এই তদন্ত সঠিক ভাবে এগিয়ে নিয়ে যাওয়া সম্ভব না। এটা খুব স্পর্শকাতর মামলা। আমি একজন ফাইটার। এর শেষ দেখে ছাড়ব।”

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর আরও সহজে হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের যে কোনও এক্সক্লুসিভ সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপে। ক্লিক করুন এখানে – টেলিগ্রাম, হোয়াটস্যাপ, ফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউবফেসবুক পেজ

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

আর নারদ কান্ডের তদন্ত নিয়ে জটিলতা অনেকটাই কমে গেছে বলে ম্যাথু স্যামুয়েলের এই মন্তব্যেই এবার ছড়িয়ে পড়েছে জল্পনা। তাহলে কি ধীরে ধীরে এবার নারদ কান্ডে প্রকাশ্যে ফুটেজে টাকা নিতে দেখা যাওয়া হেভিওয়েট নেতা নেত্রীরা সিবিআইয়ের জালে ধরা পড়বে!

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, কি হবে, তা সময় বলবে। জানা যায়, বুধবার সিবিআইয়ের ডাকে বেলা বারোটা নাগাদ সাদামাটাভাবে একটি ক্যাবে করে ম্যাথু স্যামওয়েল নিজাম প্যালেসে উপস্থিত হন। আর এরপরই বাইরে বেরিয়ে এসে এই ঘটনায় তদন্তের জন্য তার ল্যাপটপ এবং আইফোনের পাসওয়ার্ড সিবিআইয়ের পক্ষ থেকে চাওয়া হয়েছে বলে জানান এই সাংবাদিক।

কিন্তু যেহেতু তার পাসওয়ার্ড একান্তই ব্যক্তিগত ব্যাপার, তাই তিনি তা কোনোমতেই কাউকে দেবেন না বলেও জানিয়ে দিয়েছেন স্যামুয়েল। সব মিলিয়ে এবার নিজাম প্যালেসে গিয়ে সিবিআইয়ের জেরার মুখোমুখি হয়ে বাইরে বেরিয়ে তদন্তের জটিলতা অনেকটাই কমে আসছে বলে নারদকর্তার গন্তব্যে তীব্র জল্পনা ছড়িয়ে পড়ল।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!