এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > মুকুল রায়কে নিয়ে আদালতে গোপন রিপোর্ট জমা দিল স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক, বাড়ছে জল্পনা

মুকুল রায়কে নিয়ে আদালতে গোপন রিপোর্ট জমা দিল স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক, বাড়ছে জল্পনা

বিজেপি নেতা মুকুল রায়ের নিরাপত্তা সংক্রান্ত জনস্বার্থ মামলায় গোপন রিপোর্ট জমা দিল স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক। এই মামলার বয়ান অনুয়ারী গত ২৪ শে নভেম্বর ২০১৭ সালে বিজেপি নেতা মুকুল রায়ের ওয়াই ক্যাটেগরির নিরাপত্তা কেন এই প্রশ্ন উত্থাপন করে  পুরসভার সাত নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর দেবরাজ চক্রবর্তী কলকাতা হাইকোর্টে একটি জনস্বার্থ মামলা দায়ের করেন। তাঁর আবেদন ছিলো মূলতঃ রাজ্যের মানুষের টাকায় কেন একজন রাজনৈতিক ব্যাক্তিকে এই নিরাপত্তা দেওয়া হবে? উল্লেখ্য এই মামলা দায়ের করার এক মাসের মধ্যেই অর্থাৎ গত ডিসেম্বর মাসে কলকাতা হাইকোর্টের ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চে মামলার শুনানিতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের কাছে রিপোর্ট পেশ করার আদেশ করে বিচারপতি মুকুল রায়কে ওয়াই ক্যাটেগরির নিরাপত্তা দেওয়ার যথার্থ কারণ জানতে চাওয়া হয়। সেই শুনানিতে অ্যাডিশনাল সলিসিটর জেনারেল কৌশিক চন্দ্র জানিয়েছিলেন, মুকুল রায় নিজেই কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকে চিঠি দিয়ে জানিয়েছিলেন তাঁর উপর প্রাণঘাতী হামলা হতে পারে। বৃহস্পতিবার  প্রধান বিচারপতি জ্যোতির্ময় ভট্টাচার্য এবং বিচারপতি অরিজিত্‍ বন্দ্যোপাধ্যায়ের ডিভিশন বেঞ্চে মামলার শুনানিতে মুকুল রায়ের আইনজীবী পার্থ ঘোষ আদালতে জানান, বিজেপি নেতা মুকুল রায় যখন তৃণমূল কংগ্রেসে ছিলেন তখন রাজ্য সরকার তাঁকে নিরাপত্তা দিয়েছিল।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

সেইসময়ে দেবরাজবাবু কেনও এই ওয়াই ক্যাটেগরির নিরাপত্তার বিষয়ে প্রশ্ন তোলেননি ? মামলাকারীর আইনজীবী অবশ্য আদালতে জানিয়েছেন, যখন মুকুল রায়ের ওয়াই ক্যাটেগরির নিরাপত্তা ছিল তখন তিনি রাজ্যসভার সদস্য ছিলেন। তাই রাজ্য সরকার তাঁর নিরাপত্তার ব্যবস্থা করেছিল। কিন্তু বর্তমান সময়ে মুকুল রায় একজন রাজনৈতিক কর্মী ছাড়া আর কিছু নয়। তা হলে এখন কেন ও তাঁর জন্যে সরকারী অর্থের অপচয় করে এই নিরাপত্তা ব্যবস্থা? এই মামলা সংক্রান্ত বিষয়ে কেন্দ্রীয় সরকারের তরফে অ্যাডিশনাল সলিসিটর জেনারেল কৌশিক চন্দ্র বললেন,”মুকুল রায়কে প্রথমে রাজ্য সরকার জেড ক্যাটেগরির নিরাপত্তা দিয়েছিল। পরে সেটা ওয়াই ক্যাটেগরির নিরাপত্তা করা হয়। এবং, সর্বশেষে মুকুল রায় পেতেন ওয়াই প্লাস ক্যাটেগরির নিরাপত্তা। সমস্ত বিষয় মূল্যায়ণের পর কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক তাঁর নিরাপত্তা দিয়েছে।”  এ দিন অ্যাডিশনাল সলিসিটর জেনারেল কৌশিক চন্দ্র মুখ বন্ধ খামে প্রধান বিচারপতি জ্যোতির্ময় ভট্টাচার্য এবং বিচারপতি অরিজিত্‍ বন্দ্যোপাধ্যায়ের ডিভিশন বেঞ্চে কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা রিপোর্ট জমা দেন। । জুন মাসে এই মামলার পরবর্তী শুনানি হবে বলে জানা গিয়েছে।

আজ থেকে প্রিয় বন্ধু বাংলার অফিসিয়াল ফেসবুক আইডি হল – Priyo Bandhu Bengali

আমাদের সব খবর, সমস্ত আপডেট পাওয়া যাবে এখানেই – https://www.facebook.com/pbmediaofficial/

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!