এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > মুকুল-ভারতী জোড়া ফলাতেই কি জঙ্গলমহলে দিশেহারা তৃনমূল?প্রশ্ন দলের অন্দরেই

মুকুল-ভারতী জোড়া ফলাতেই কি জঙ্গলমহলে দিশেহারা তৃনমূল?প্রশ্ন দলের অন্দরেই

রাজ্যের সদ্য সমাপ্ত পঞ্চায়েত নির্বাচনের ফলাফলে সব জেলায় তৃনমূল সবুজ ঝড় তুললেও ব্যতিক্রম জঙ্গলমহলের জেলাগুলি।সেখানে শাসকদল তৃনমূলকে পেছনে ফেলে সামনের সারিতে উঠে এসেছে বিজেপি।কিন্তু জঙ্গলমহলে বিজেপির এই সাফল্যের পেছনে মূল চাবিকাঠি হিসাবে ছিল কে বা কারা!এইসব প্রশ্ন যখন ঘুরপাক খাচ্ছে বিজেপির অন্দরমহলে তখন জঙ্গলমহলে তৃনমূলের ভরাডুবিতে কার অভাব অনুভব করল শাসকদল?রাজনৈতিকমহল সূত্রে খবর,একদা তৃনমূলের সেকেন্ড ইন কমান্ড মুকুল রায় এখন বিজেপিতে।জঙ্গলমহলে শান্তি ফিরিয়ে আনতে যার ভূমিকা অনস্বীকার্য,সেই আইপিএস পুলিশ অফিসার ভারতী ঘোষের সাথেও এখন আদায় কাচকলায় সম্পর্ক মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকারের।

রাজনৈতিক মহল আরও মনে করছে, যে জঙ্গলমহলে প্রভূত উন্নয়নে ছাপ ফেলে দিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার,সেই জঙ্গলমহলে তৃনমূলের থেকে এইভাবে মুখ ফেরানোর পেছনে  রয়েছে একমাত্র মুকুল-ভারতী ম্যাজিকই।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এদিকে তৃনমূল সূত্রে খবর,জঙ্গলমহলের এই খারাপ ফলাফলে ইতিমধ্যেই সেই অঞ্চলের নেতৃত্বকে রিপোর্ট পেশ করতে বলেছে রাজ্য নেতৃত্ব।পুরোনোদের সরিয়ে নতুনদের এনে একগুচ্ছ পরিবর্তনও করা হয়েছে জেলায়।

রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের মতে,তৃনমূলে থাকার সময় গোটা জঙ্গলমহলের সংগঠন একাই সামলাতেন মুকুল রায়।মুকুল বাবু বিজেপি তে আসার পরই তাঁর অনেক অনুগামীরা তৃনমূলে থাকলেও দলের প্রতি আর আগের মত আনুগত্য প্রকাশ করেননি।এই অবস্থায় সরকারের পক্ষ থেকে এত উন্নয়ন করেও দলের এত খারাপ ফলের জন্য এই অঞ্চলে মুকুল প্রভাবকেই বড় করে দেখছেন অনেকে।

আবার অপরদিকে মমতার খুব কাছের আইপিএস অফিসার ভারতী ঘোষের বিরুদ্ধে বিজেপি নেতা মুকুল রায়কে সবংয়ের নির্বাচনে সাহায্য করার অভিযোগ উঠেছিল।তাঁর জেরেই ভারতীকে সেই জেলার দায়িত্ব থেকে সরিয়ে দিয়েছিল সরকার।

সূত্রে খবর,জঙ্গলমহলের এই জেলাগুলিতে মুকুল রায় ও ভারতী ঘোষের প্রভাব অস্বীকার করতে পারেননি তৃনমূলের কোনোও নেতা।ওয়াকিবহাল মহলের মতে 2019 এর লোকসভা ভোটের আগে জঙ্গলমহলে কিভাবে তৃনমূল আবার তাদের আগের ভোটব্যঙ্ক ফিরে পায় সেদিকেই নজড় থাকবে সকলের।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!