এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > মুখ্যমন্ত্রীর ডাকে সাড়া দিয়ে এগিয়ে এল রাজ্যের পুজো কমিটিগুলি

মুখ্যমন্ত্রীর ডাকে সাড়া দিয়ে এগিয়ে এল রাজ্যের পুজো কমিটিগুলি


গোটা বিশ্বে করোনা ভাইরাস তার পরিধি বিস্তার করছে দ্রুতহারে। তার মধ্যে ভারতে ইতিমধ্যেই করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা গিয়ে ঠেকেছে 680 তে। জীবন বাজি রেখে রোগীদের চিকিৎসা করে চলেছেন ডাক্তার, স্বাস্থ্যকর্মীরা। এই অবস্থায় ভারতের বিভিন্ন রাজ্যের মধ্যে পশ্চিমবঙ্গেও সংক্রমণ ছড়িয়েছে ভালোরকম। ইতিমধ্যে সংক্রমণে আক্রান্ত হয়ে 10 জন বেলেঘাটা আইডি হাসপাতালে ভর্তি। যদিও একজন ইতিমধ্যে মারা গেছেন করোনার জেরে।

পরিস্থিতির গুরুত্ব বিচার করে ইতিমধ্যে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় 200 কোটি টাকার একটি ফান্ড তৈরি করবেন বলে ঘোষণা করেছেন। অন্যদিকে রাজ্যের স্বাস্থ্য পরিষেবা এবং স্বাস্থ্য কর্মীদের সহায়তায় মুখ্যমন্ত্রী একটি আপৎকালীন ত্রাণ তহবিল তৈরি করেছেন এবং সেখানে ক্রাউডফান্ডিং এর জন্য আবেদন করেছেন। আর সেই আহবানে সাড়া দিয়ে এবার শহরের বিখ্যাত এবং বৃহৎ পূজা কমিটিগুলি এগিয়ে এলো। ইতিমধ্যেই ফোরাম ফর দুর্গোৎসব মুখ্যমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে দু’লক্ষ টাকা দান করেছে বলে খবর।

সারা বিশ্বের মানুষ এই মুহূর্তে লড়াই চালাচ্ছে করোনা সংক্রমণকে আটকানোর। দেশের অর্থনৈতিক পরিস্থিতি আটকাতে গিয়ে রীতিমতো খাদের ধারে গিয়ে দাঁড়িয়েছে। এই পরিস্থিতিতে দুর্গোৎসব ফোরামের কার্যকরী কমিটি দু’লক্ষ টাকার চেক ইতিমধ্যে মুখ্যমন্ত্রীর হাতে তুলে দিয়েছেন। এ ব্যাপারে তথ্য প্রদান করেছেন ফোরামের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শাশ্বত বসু। ফোরামের পাশাপাশি শহরের বিখ্যাত পূজা কমিটিগুলিও এগিয়ে এসে সাধ্যমত সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছে।

WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

ইতিমধ্যে, খবর কাশি বোস লেন দুর্গোৎসব কমিটি এক লক্ষ টাকা মুখ্যমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে তুলে দিয়েছে বলে জানা গেছে কাশি বোস লেন দুর্গোৎসব কমিটির অন্যতম উদ্যোক্তা সৌমেন দত্তর কথায়। পুজো কমিটিগুলি মুখ্যমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে আর্থিক অনুদান দেওয়ার সাথে সাথে এলাকার মানুষজনদের কাছেও আবেদন জানাচ্ছেন রাজ্যের ত্রাণ তহবিলে সাহায্য করার জন্য। এই মুহূর্তে রাজ্যের ছোট-বড় পুজো কমিটি গুলি মুখ্যমন্ত্রী তথা রাজ্য সরকারের সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে ত্রাণ তহবিলে অর্থ জোগাড়ের জন্য বিভিন্নভাবে সাহায্য করছে বলে খবর।

সারা বিশ্বজুড়ে করোনার সংক্রমণ এত ব্যাপক হারে বৃদ্ধি পেয়েছে যেখানে, সেখানে আতঙ্ক ক্রমশ চেপে বসছে জনমানসে। ইতিমধ্যে ভারতের করোনা সংক্রমণকে রুখে দেওয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা অনুযায়ী চলছে লকডাউন পরিস্থিতি। এই লকডাউন চলবে আগামী 14 এপ্রিল মধ্যরাত পর্যন্ত। সারা বিশ্বের কাছে এখন একটাই লক্ষ্য, কিভাবে করোনার হাত থেকে পরিত্রাণ পাওয়া যায়! ইতিমধ্যে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বা হু করোনার ভয়াবহতাকে গুরুত্ব দিয়ে তাকে প্যানডেমিক বা ভয়াবহ মহামারীরূপে ব্যাখ্যা করেছেন।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!