এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > মুখ্যমন্ত্রীর বিরুদ্ধে বিস্ফোরক অভিযোগ মুকুল রায়ের , জেনে নিন

মুখ্যমন্ত্রীর বিরুদ্ধে বিস্ফোরক অভিযোগ মুকুল রায়ের , জেনে নিন

দলবদল নিয়ে উত্তাল রাজ্য রাজনীতি। লোকসভা ভোটের পর এই রাজ্যে তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেওয়ার ঝড় উঠেছিল। রাজ্যজুড়ে নেতা কর্মীরা পদ্মশিবিরে যোগ দেওয়ার ফলে একের পর এক পুরসভা, পঞ্চায়েত বিজেপির হাতে যাচ্ছিল. এর পরেই গত সপ্তাহ থেকে পরিস্থিতি কিছুটা আলাদা হয়।পাল্টা দলবদল করে বিজেপি ছেড়ে তৃণমূলে ফিরে আসেন কিছু নেতা, কাউন্সিলর, পঞ্চায়েত প্রধানরা। এভাবেই ফের কিছু পুরসভা ও পঞ্চায়েত বিজেপির থেকে ছিনিয়ে পুনর্দখল করতে সফল হয়েছে তৃণমূল।

এই ধরনের নজিরবিহীন ঘটনার সাক্ষী থেকেছে হালিসহর পুরসভা। মুকুল রায়ের হাত ধরে বেশ কিছু কন্সিলার বিজেপিতে যোগ দেন,যার ফলে পুরবোর্ড গঠনে বিজেপি সংখ্যাগরিষ্ঠ হয়ে ওঠে। কিন্তু কিছুদিন যেতে না যেতে এদের মধ্যে অনেকেই তৃণমূলে ফিরে যাওয়ায় ফের পুরসভার দখল নেই ঘাসফুল শিবির। এই প্রসঙ্গে ব্যারাকপুরের সাংসদ অর্জুন সিং জানিয়েছেন যে তিনি আগেই মুকুল রায়কে জানিয়েছিলেন ওই কাউন্সিলরদের দলে না নিতে। কিন্তু, মুকুল বাবু শোনেননি।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

অর্জুন সিংয়ের বক্তব্যের প্রেক্ষিতে হাওড়ার একটি সভা থেকে মুকুল রায় জানিয়েছেন, “তাঁরা বিজেপি-তে আসবেন বলে আমার কাছে আবেদন জানিয়েছিলেন। সেই জন্যই তাঁদের দলে যোগদান করানো হয়েছিল। আমি যেহেতু দলের প্রবীণ নেতা তাই আমি একটু নরম। অর্জুন যুবক তাই ও টাফ। সেই জন্যই ও এই কথা বলেছে।”

পাশাপাশি হাওড়ার এই সভা থেকে তৃণমূলের পরামর্শদাতা প্রশান্ত কিশোরকে পারিশ্রমিক দেওয়া নিয়ে মুকুল রায় প্রশ্ন তোলেন যে “মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলছেন প্রশান্ত কিশোরকে পেমেন্ট করা হচ্ছে সিএসআর ফান্ড থেকে । কিন্তু, সিএসআর ফান্ড কম্পানির ক্ষেত্রেই থাকে। তাহলে কি তৃণমূল কংগ্রেস একটি কম্পানি ? যদি তাই হয় তাহলে তৃণমূল কংগ্রেসের ম্যানেজিং ডাইরেক্টর কে ?”

এই প্রশ্ন তুলে মুকুল রায় আর্থিক কেলেঙ্কারির অভিযোগ আনলেন বলেই রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন। এবং স্বভাবসিদ্ধ ভাবে মুকুল এই বিষয়ে জড়িয়ে দিতে চাইলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জিকে।

Top
error: Content is protected !!