এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > চলচ্চিত্র জগতের নক্ষত্রপতন – প্রয়াত বিশিষ্ট পরিচালক মৃণাল সেন

চলচ্চিত্র জগতের নক্ষত্রপতন – প্রয়াত বিশিষ্ট পরিচালক মৃণাল সেন

বছর শেষের আগের দিন আবারো অন্ধকার নেমে এল বাংলা চলচ্চিত্র জগতে – প্রয়াত হলেন বিশিষ্ট পরিচালক মৃণাল সেন। মৃত্যকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৯৫ বছর। ১৯২৩ সালে ১৪ মে বর্তমান বাংলাদেশের ফরিদপুরে জন্মগ্রহণ করেন মৃণালবাবু। এরপর, পড়াশুনো সূত্রে কলকাতায় আসা – স্কটিশ চার্চ কলেজ ও কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ে পদার্থবিদ্যা নিয়ে পড়াশোনা।

এরপরেই পুরোপুরি সিনেমার জগতে প্রবেশ। ১৯৫৫ সালে মাত্র ২২ বছর বয়সে ‘রাতভোর’ সিনেমা দিয়ে চলচ্চিত্র জগতে প্রবেশ। তারপর, একে একে উপহার দিয়েছেন – নীল আকাশের নীচে, বাইশে শ্রাবণ, ভুবন সোম, কোরাস, মৃগয়া, আকালের সন্ধানে, পুনঃশ্চ, পরশুরাম, একদিন প্রতিদিন সহ অসংখ্য সিনেমা। প্রতিটিই প্রায় কালজয়ী ও বিশ্ববরেণ্য। ২০০২ সালে তাঁর পরিচালনায় শেষ সিনেমা – ‘আমার ভুবন’।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

আপনার মতামত জানান -

চলচ্চিত্রের জন্য দেশে-বিদেশে একাধিক সম্মানে ভূষিত হয়েছেন। ১৮ টি জাতীয় পুরস্কার ও ১২ টি আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র পুরস্কার রয়েছে মৃণালবাবুর ঝুলিতে। ১৯৮১ সালে ভারত সরকারের পদ্মভূষণ পুরস্কার পান তিনি। ভারতে চলচ্চিত্র জগতের সর্বোচ্চ পুরস্কার ‘দাদাসাহেব ফালকে অ্যাওয়ার্ড’ পান ২০০৫ সালে। মাঝে রাজ্যসভার মনোনীত সদস্যও ছিলেন তিনি।

মৃণালবাবুর পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, র্ঘদিন ধরেই বার্ধক্যজনিত রোগে কষ্ট পাচ্ছিলেন তিনি। আজ সকাল সাড়ে ১০টা নাগাদ বাড়িতেই হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে অমৃতলোকের পথে রওনা হন তিনি। তাঁর মৃত্যুতে শোকের ছায়া নেমে এসেছে বিনোদন জগতে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!