এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > মালদা-মুর্শিদাবাদ-বীরভূম > “বিশ্বাসঘাতক” মৌসম নূরকে হারাতে হবে যে কোন মূল্যেই! স্পষ্ট করে দিল মালদা কংগ্রেস

“বিশ্বাসঘাতক” মৌসম নূরকে হারাতে হবে যে কোন মূল্যেই! স্পষ্ট করে দিল মালদা কংগ্রেস

মালদহ কংগ্রেসের গনিখানের গড় বলেই পরিচিত ছিল। কিন্তু সম্প্রতি সেই মালদহের কংগ্রেস গড়কে কিছুটা দুর্বল করে গনি পরিবারেরই অন্যতম সদস্য মৌসম বেনজির নূরকে যোগ দিতে দেখা যায় তৃণমূলে। আর ঘাসফুল শিবিরে যোগ দেওয়ার সাথে সাথেই মৌসম উত্তর মালদহ লোকসভা কেন্দ্রে তৃণমূলের প্রার্থী বলে ঘোষণা করে দেন তৃণমূল নেত্রী তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

আর প্রার্থী হিসেবে দলনেত্রী তাঁকে ঘোষণা করার সাথে সাথেই এই উত্তর মালদহে জোর প্রচার শুরু করে দিয়েছেন তৃনমূলের মৌসম বেনজির নূর। অপরদিকে “দলত্যাগী এবং বিশ্বাসঘাতক” বলে কংগ্রেসের তরফে আখ্যা দেওয়া হচ্ছে সেই মৌসমকে।শুধু তাই নয়, যেন তেন প্রকারেণ সেই মৌসম নূরকে এবার হারাতে হবে বলেও শপথ নিতে দেখা গেল উত্তর মালদহের কংগ্রেস নেতৃত্বকে।

সূত্রের খবর, মালদহ জেলা কংগ্রেসের নতুন সভাপতি হিসেবে মোস্তাক আলম দায়িত্ব নেওয়ার পরই শনিবার মালদহের ইংরেজবাজারের টাউনহলে জেলা কংগ্রেসের পক্ষ থেকে একটি বর্ধিত বৈঠকের আয়োজন করা হয়। আর সেখানেই উপস্থিত মালদহ জেলার সমস্ত ব্লকের কংগ্রেস সভাপতিরা জেলা নেতৃত্বের কাছে দাবি তোলেন যে, প্রকৃত কংগ্রেসী হলে এবার তৃণমূলে যোগ দেওয়া বিশ্বাসঘাতক মৌসম নূরকে যেনতেন প্রকারেণ হারাতে হবে।

আর ব্লক নেতৃত্বর এহেন প্রস্তাবকে গ্রহণ করে আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে “বিশ্বাসঘাতক” মৌসমকে হারানোর শপথ নেন জেলা কংগ্রেস নেতৃত্ব। জানা যায়, এই বৈঠকে মালদহ জেলায় প্রায় প্রতিটি ব্লকের কংগ্রেস সভাপতিরাই মৌসম বেনজির নূরকে হারানোর জন্য শপথ নিতে থাকেন।

তবে শুধু মৌসম বেনজির নূরকে হারানোর জন্য পদক্ষেপ করাই নয়, আসন্ন লোকসভা নির্বাচনের আগে যে সমস্ত কর্মী দলত্যাগ করেছেন, তাদের দলে ফিরিয়ে আনার জন্য এদিনের বৈঠকে বিস্তারিত আলোচনা হয়েছে বলে জানা গেছে। তবে আশ্চর্যজনকভাবে এদিনের বৈঠকে অনুপস্থিত থাকতে দেখা যায় কংগ্রেসের আবু হাসেম খান চৌধুরীকে। তবে তিনি অনুপস্থিত থাকলেও তাঁর ছেলে তথা কংগ্রেসের বর্তমান বিধায়ক ঈশা খান চৌধুরী এদিনের বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

এদিনের বৈঠকে ঠিক কি নিয়ে আলোচনা হল? এদিন এই প্রসঙ্গে মালদহ জেলা কংগ্রেসের সভাপতি তথা কংগ্রেস বিধায়ক মোস্তাক আলম বলেন, “দলের সঙ্গে যেভাবে মৌসম নূর বিশ্বাসঘাতকতা করেছেন তাতে ব্লক নেতৃত্বরা ক্ষোভে ফুঁসছেন। উত্তর মালদহের ব্লক সভাপতির সকলেই স্বতঃস্ফূর্তভাবে মৌসমকে হারানোর জন্য শপথ নিয়েছেন। আর তাদের আবেগের সঙ্গে জেলা কংগ্রেসও সহমত পোষণ করেছে। তাই আমরা ঐক্যবদ্ধভাবেই সেই লক্ষ্যে এগিয়ে যাব। আমরা বুঝিয়ে দেব ব্যক্তি নয়, দল আর প্রতিকই সব থেকে বড় কথা।”

তবে সদ্য কংগ্রেসত্যাগী তথা মালদহ উত্তর লোকসভা কেন্দ্রের তৃণমূল প্রার্থী মৌসম বেনজির নূর অবশ্য কংগ্রেসের এহেন শপথকে খুব একটা পাত্তা দিতে নারাজ। তিনি বলেন, “আমাকে হারানোর শপথ যদি কংগ্রেস নেতৃত্ব নেয় তাতে আমার কোন দুঃখ নেই। তবে বিজেপিকে প্রতিরোধের জন্য যদি তারা কৌশল তৈরি করত তাহলে আমি বেশি খুশি হতাম। রাজনৈতিকভাবে দেউলিয়া হয়ে গেলেই ব্যক্তিগত আক্রমণ আসে। এখানে কংগ্রেসের প্রয়াত গনিখান চৌধুরী যে সমন্বয়ের আদর্শ তৈরি করে দিয়েছিলেন তাঁকে বাঁচাতে ওদের কোনো রাজনৈতিক পদক্ষেপ করার সময় নেই। মানুষের দরবারেই ওরা শেষ বিচার পাবে।”

সব মিলিয়ে এবার একদিকে সদ্য কংগ্রেসত্যাগী মৌসম বেনজির নূরকে হারাতে যখন শপথ নিচ্ছে মালদহের কংগ্রেস নেতৃত্ব, ঠিক তখনই মালদহ জুড়ে আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে দলের প্রচার করতে ব্যস্ত তৃণমূলের উত্তর লোকসভা কেন্দ্রের প্রার্থী মৌসম বেনজির নূর।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!