এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > মালদা-মুর্শিদাবাদ-বীরভূম > জেলা সভানেত্রী হলেও ডানা কি ছাটা গেল মৌসমের! দলের পদক্ষেপে বাড়ছে জল্পনা

জেলা সভানেত্রী হলেও ডানা কি ছাটা গেল মৌসমের! দলের পদক্ষেপে বাড়ছে জল্পনা

লোকসভা নির্বাচনে অনেক আগেই কংগ্রেস ছেড়ে তৃণমূলে যোগ দিয়েছিলেন মৌসম বেনজির নূর। তারপর তাকে প্রার্থী করা হলেও তিনি জয়লাভ করতে পারেননি। তবে মালদার কোনো আসনেই তৃনমূল ভালো ফলাফল না করায় ফলাফল পরবর্তী পর্যালোচনা বৈঠকে সেই মালদহ জেলা তৃণমূলের সভানেত্রী পদে মৌসম বেনজির নূরকে বসিয়ে দেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

তারপর সমস্ত কিছু ঠিকঠাক চললেও সম্প্রতি সুর কাটতে শুরু করে। গত 5 আগস্ট মালদহ জেলায় তৃণমূলের সমস্ত ব্লক কমিটিকে ভেঙে দিয়ে বিভিন্ন ব্লকে নতুন করে মনিটরিং কমিটির ঘোষণা করা হয়েছিল। যেখানে স্বাক্ষর করা ছিল মালদহ জেলা তৃণমূলের সভানেত্রী মৌসম বেনজির নূর এবং মালদহ জেলা তৃণমূলের পর্যবেক্ষক তথা রাজ্যের মন্ত্রী সাধন পান্ডের। তবে এই মনিটরিং কমিটিতে দলের অনেক গুরুত্বপূর্ণ নেতা, কর্মীরা স্থান পাননি বলে তৃণমূলের অনেকেই বিদ্রোহ দেখাতে শুরু করেন।

এমনকি দলের আদি বনাম নব্য নেতাকর্মীদের দ্বন্দ্বে জেলা সভানেত্রী মৌসম বেনজির নূরের বাড়ির সামনেও সেই বিক্ষোভ পৌঁছে যায়। যার ফলে প্রবল চাপে পড়ে জেলা তৃণমূল নেতৃত্ব। আর লোকসভা নির্বাচনে দলের খারাপ ফলাফল হওয়ার পর এবার জেলার বিভিন্ন কমিটি নিয়ে দলের নেতাকর্মীদের অসন্তোষ প্রকাশ্যে আসায় মালদা জেলায় সদ্য ঘোষিত তৃণমূলের সমস্ত ব্লক মনিটরিং কমিটিগুলো বাতিল করে দিল তৃণমূলের শীর্ষ নেতৃত্ব।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

সূত্রের খবর, মঙ্গলবার কলকাতায় “দিদিকে বলো” কর্মসূচি নিয়ে একটি বৈঠক আয়োজিত হয়েছিল। যেখানে প্রতিটি জেলার পাশাপাশি মালদহ জেলার নেতৃত্বরাও উপস্থিত ছিলেন। আর সেখানেই এই বৈঠকের পর তৃণমূলের রাজ্য সভাপতি সুব্রত বক্সী, মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায় এবং তৃণমূল যুবর সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে একান্তে কথা বলেন মালদহ জেলা তৃণমূলের চেয়ারম্যান মোয়াজ্জেম হোসেন। আর এরপরই যে নতুন কমিটিগুলো করা হয়েছে সেগুলো বাতিল করে দেওয়া হয়েছে বলে জানান মোয়াজ্জেম সাহেব।

এদিন এই প্রসঙ্গে তিনি বলেন, “রাজ্য নেতৃত্ব জানিয়েছে যে ওই ব্লক কমিটিগুলো গঠনের ক্ষেত্রে রাজ্য নেতৃত্বের অনুমোদন নেওয়া হয়নি। পরবর্তীকালে সেই অনুমোদন নিয়ে কমিটিগুলো গঠন করতে হবে।” অন্যদিকে এই ব্যাপারে সত্যিই এই কমিটিগুলো বাতিল হয়েছে কিনা, তা জানবার জন্য মালদহ জেলা তৃণমূলের সভানেত্রী মৌসম বেনজির নূরকে জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি বলেন, “এমন ঘটনা আমার জানা নেই। খোঁজ নিয়ে দেখছি।”

তবে যদি মোয়াজ্জেম হোসেনের কথামতো সত্যি সত্যিই জেলায় নতুন গঠিত ব্লক মনিটরিং কমিটিগুলো বাতিল করে দেয় রাজ্য নেতৃত্ব, তাহলে মালদহ জেলায় শেষ কথা যে মৌসম বেনজির নূর বলবে না, তা একপ্রকার স্পষ্ট করে দিল তৃণমূলের শীর্ষ নেতৃত্ব বলে মত বিশেষজ্ঞদের।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!