এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় >  রাজ্যসভা নির্বাচনে কি আদৌ লড়তে পারবেন মৌসম এবং দীনেশ? সংশয় চরমে!

 রাজ্যসভা নির্বাচনে কি আদৌ লড়তে পারবেন মৌসম এবং দীনেশ? সংশয় চরমে!


সম্প্রতি রাজ্যসভার চার আসনে প্রার্থী ঘোষণা করে দিয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস। ইতিমধ্যেই সেই প্রার্থীরা তাদের মনোনয়নও জমা করে দিয়েছেন। যার মধ্যে রয়েছেন, মৌসম নুর, দীনেশ ত্রিবেদী, অর্পিতা ঘোষ এবং সুব্রত বক্সি। অন্যদিকে পঞ্চম আসনে বাম-কংগ্রেসের পক্ষ থেকে মনোনয়নপত্র জমা করেছেন বিকাশ রঞ্জন ভট্টাচার্য। আর নির্দলের পক্ষ থেকে মনোনয়নপত্র জমা করতে দেখা গেছে প্রাক্তন তৃণমূল বিধায়ক দীনেশ বাজাজকে।

সূত্রের খবর, তৃণমূলের তিন প্রার্থী এবং বিকাশ রঞ্জন ভট্টাচার্যের লড়ার ক্ষেত্রে কোনো বিধিনিষেধ না থাকলেও, অসুবিধে তৈরি হবে মৌসম নুর এবং দীনেশ বাজাজের ক্ষেত্রে। জানা গেছে, রাজ্যসভার এই দুই প্রার্থীর মনোনয়ন এবং হলফনামার কাগজপত্রে তথ্য গোপন এবং অসম্পূর্ণতার অভিযোগ উঠতে শুরু করেছে। তাই এই দুজনকেই মঙ্গলবার দিন শুনানিতে ডেকে পাঠিয়েছে নির্বাচন দপ্তর। যার ফলে এখন তৈরি হয়েছে ব্যাপক চাঞ্চল্য। আদৌ মৌসম নুর ও দীনেশ বাজাজ লড়াই করতে পারবেন কিনা, তা নিয়ে তৈরি হয়েছে সংশয়।

জানা গেছে, নির্দল প্রার্থী দীনেশ বাজাজের হলফনামায় কোনোরূপ নোটারির সিল নেই। আর এই ব্যাপারে ইতিমধ্যে প্রশ্ন তুলেছেন বাম কংগ্রেস প্রার্থী বিকাশ রঞ্জন ভট্টাচার্য। তিনি বলেন, “তিন বছর আগে তার অতিরিক্ত হলফনামা দিতে কয়েক মিনিট দেরি হয়েছে। ওই অভিযোগে মনোনয়ন খারিজ করে দেওয়া হয়েছিল। তাহলে এখন মনোনয়ন জমার সময় বেরিয়ে যাওয়ার পরে অন্যদিনে আবার হলফনামা দেওয়া হবে কেন!”

WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

অন্যদিকে তৃণমূল প্রার্থী মৌসম বেনজির নূরের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে, বিভিন্ন মামলা এবং সম্পত্তির তথ্য ঠিক না দেওয়ার ব্যাপারে। কিন্তু এত ত্রুটি হল কেন! দীনেশ বাজাজের দায়িত্ব তৃণমূল না নিলেও, মৌসম বেনজির নূরের দায়িত্ব তৃণমূলের ছিল। সেদিক থেকে তৃণমূলের রাজ্যসভার প্রার্থীদের মনোনয়ন দেখভাল করার দায়িত্ব ছিল তাপস রায়, নির্মল ঘোষ, সমীর চক্রবর্তীর উপরে। কিন্তু কেন তারা সঠিক দায়িত্ব পালন করতে পারলেন না!

এদিন এই প্রসঙ্গে তাপস রায় বলেন, “মৌসম একটা সংস্থার শেয়ারহোল্ডার। যেখান থেকে উনি ডিভিডেন্ড পান না। তাই ওই বিষয়ে আলাদা করে কিছু জানাননি। আশা করছি ওর মনোনয়ন আটকাবে না।” এদিকে মৌসম নুর এবং দীনেশ বাজাজ দুজনেরই মনোনয়নপত্র বাতিল হওয়া উচিত বলে দাবি করেন বাম পরিষদীয় দলের নেতা সুজন চক্রবর্তী। সব মিলিয়ে আজ শুনানিতে তৃণমূলের মৌসুম নূর এবং দীনেশ বাজাজের মনোনয়নপত্র বাতিল হয় কিনা, সেদিকেই নজর থাকবে সকলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!