এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > মৌসমের তৃণমূলে যাওয়া নিয়ে কী প্রতিক্রিয়া গান্ধী পরিবারের? জানালেন ডালু

মৌসমের তৃণমূলে যাওয়া নিয়ে কী প্রতিক্রিয়া গান্ধী পরিবারের? জানালেন ডালু

লোকসভা ভোটের মুখে সদ্য কংগ্রেস ছেড়ে মৌসমের তৃণমূলে চলে যাওয়ায় বেশ শোরগোল শুরু হয়েছে উত্তর মালদার রাজনৈতিকমহলে। জেলায় এবার মৌসমের বিরুদ্ধে কংগ্রেসের পক্ষ থেকে ভোটে দাঁড়িয়েছেন তাঁর দাদা ঈশা খান চৌধুরী। এদিকে কংগ্রেসের হয়ে জেলায় প্রচার কর্মসূচিতে আসছেন জাতীয় কংগ্রেস সুপ্রিমো রাহুল গান্ধী, প্রিয়াঙ্কা গান্ধী সহ কংগ্রেসের হেভিওয়েট নেতা-কর্মীরা। এমনটাই জানালেন দক্ষিণ মালদা লোকসভা কেন্দ্রের সাংসদ আবু হাসেম খান চৌধুরী ওরফে ডালু মিঞা।

কংগ্রেসের এই সুদিনে দলের পাশে থাকার সৌভাগ্য হল না মৌসমের। এমনটা বলেই দুঃখপ্রকাশ করলেন তিনি। এদিকে ঈশা খানও ডালু মিঞার মতো একই সুরে কথা বলে মৌসমকে বিশ্বাসঘাতক বলেই ব্যাখ্যা করলেন। এবং একই কেন্দ্র থেকে ভাই-বোনের এই লড়াইকে আদর্শগত দ্বন্দ্ব বলেই উল্লেখ করলেন তিনি।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

 

দীর্ঘ এক সপ্তাহের কিছু বেশি সময় ধরে জেলার বাইরে ছিলেন ডালু বাবু। জেলায় ফিরেই ইনাডুকে একটি একান্ত সাক্ষাৎকার দিয়ে ফেললেন তিনি। এই মুহূর্তে রাজ্যরাজনীতির সবথেকে চাঞ্চল্যকর টপিক হল উত্তর মালদার সাংসদ মৌসমের তৃণমূলে যোগদান। সে বিষয়ে ডালুবাবুকে প্রশ্ন করা হলে তিনি বললেন,মৌসমের রাজনীতিতে কোনো নির্দিষ্ট দিশা নেই। তাকেই হাতে গড়ে তৈরি করেছিলেন তিনি।

প্রথমে বিধায়ক,তারপর সাংসদ এবং রাজ্য যুব কংগ্রেসের সভানেত্রী,জেলা কংগ্রেস সভাপতিও করা হয়েছিল মৌসমকে। তারপরও কীকরে কংগ্রেসে থেকে সে হতাশ হল সেটাই বড় আশ্চর্যের! আগামী লোকসভা ভোটে কংগ্রেস ক্ষমতায় আসবে বলে আগাম জানিয়ে তিনি বললেন,মৌসম যদি দলে থাকতো তাহলে তাঁর রাষ্ট্রপতি হওয়ারও পূর্ণ সম্ভাবনা ছিল। কিন্তু লোকসভা ভোটের আগে এভাবো ভাগ্নি বিরোধী শিবিরে যোগ দেওয়ায় অত্যন্ত দুঃখ পেয়েছেন বলেই জানালেন তিনি।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

 

তবে কংগ্রেস শতাব্দী প্রাচীন একটা দল। এমন আঘাত বহুবার পেয়েছে। আবার শক্ত হয়ে উঠেও দাঁড়িয়েছে। মৌসমের বিরুদ্ধে তাঁর দাদা ঈশা খানকে ভোটে দাঁড় করানো হয়েছে,কাজেই ভোটারদের হতাশ হওয়ার কোনো কারণ নেই। তবে আগামী লোকসভা ভোটে উত্তর মালদা কেন্দ্রে যে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হতে চলেছে ভাই-বোনের মধ্যে তা নিয়ে কোনো সন্দেহ প্রকাশ করলেন না ডালুবাবু। লড়াই টা সম্পত্তি বা ক্ষমতার নয়,হবে নীতি ও আদর্শের,এমনটাই গর্জে উঠে জানিয়ে দিলেন ডালু।

তবে মৌসমের এভাবে তৃণমূলে যোগ দেওয়া ডালু বাবুকে যে ভেতর থেকে নাড়িয়ে দিয়েছে তা তাঁর বক্তব্যেই ফুটে উঠল বারবার। কংগ্রেসের থেকে এতো ক্ষমতা পাওয়ার পরও লোকসভা ভোটের আগে এভাবে তৃণমূলে যোগদান করার জন্য নিজের ভাগ্নীকে প্রকাশ্যে বিশ্বাসঘাতক বলতেই পিছপা হলেন না তিনি। তবে মৌসমের আঘাতে সাময়িকভাবে ভেঙে পড়লেও আবার শক্ত হয়ে উঠে দাঁড়িয়েছেন তিনি। প্রতিশ্রুতি দিলেন আরো শক্ত হাতে লড়াই করার,দলকে ভালোবেসে মানুষের সেবা করার।

এদিন একটি সংবাদমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলার সময় মাঝে মাঝে ভাগ্নী মৌসমের প্রতি সহানুভূতিশীলও হয়ে পড়ছিলেন মামা ডালু মিঞা। বললেন,মৌসমকে তিনি তৃণমূলে যোগ দেওয়ার জন্যে চাপ দেওয়া হচ্ছিল। বাড়তি চাপ সহ্য করতে পেরেই দলবদল করতে বাধ্য হয়েছেন স্নেহের ভাগ্নী। তবে এটা করে তিনি ভুল করেছেন বলেই জানান তিনি। লোকসভা ভোটের প্রচারে আসবেন জেলায় আসবেন রাহুল-প্রিয়াঙ্কা গান্ধী৷ তাঁরা এই মৌসমের পরিবারকে খুব ভালোবাসতেন বলেই জানালেন তিনি। মৌসমের দলবদলের কথা শুনে তাঁরা দুঃখ পাবেন বলে তিনি আগে থেকে তাঁদের এ ব্যাপারে কিছু জানাননি। এ খবর শুনলে তাঁরাও দুঃখ পাবেন বলেই জানালেন ডালু মিঞা।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!