এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > মোর্চা ক্রমশ তৃণমূলমুখী, জোট সামলাতে আসরে বিজেপি নেতৃত্ত্ব

মোর্চা ক্রমশ তৃণমূলমুখী, জোট সামলাতে আসরে বিজেপি নেতৃত্ত্ব

বিজেপির একাংশের মতে ছবি পাল্টাচ্ছে মোর্চা বাহিনীর। সুপ্রিম কোর্টে বিমল গুরুং-এর আর্জি খারিজের পর দূরত্ব কমছে বিনয় তামাং-অনিত থাপাদের সাথে মোর্চা নেতা বিশাল লামা,রোহিত থাপাদের। এদিন উত্তরবঙ্গের বিজেপি দলের আহ্বায়ক রথীন বসু বলেন, ”পাহাড়-সমতলের নেপালি ভাষীদের বড় অংশই এখনও তাঁর পক্ষে বলে গোর্খা জনমুক্তি মোর্চা নেতা বিমল গুরুঙ্গের দাবি। সে দিক থেকে দুশ্চিন্তার কারণ দেখছি না। তবে রাজনীতিতে অনেক কিছুর জন্যই প্রস্তুত থাকতে হয়। তেমন ভাবেই আমাদের নেতারা প্রস্তুতি নেওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন।” এদিন উত্তরবঙ্গের আরো এক নেতার কথায়,”গুরুঙ্গপন্থীরা শিবির বদলাতে পারেন, এই আশঙ্কায় এর মধ্যেই বাড়তি ঘাম ঝরানো শুরু করেছেন ডুয়ার্সের নেতারা।” সূত্রের খবর, চা বাগান এলাকাগুলিতে ওখানকার আদিবাসীদের পাশে পাওয়ার আশায় ছোট ছোট বৈঠক শুরু করেছেন মনোজ টিগ্গা, জন বার্লা প্রমুখরা। এদিন বিশাল লামা জানান”সে সময়ে আমরা দিনরাত দলের হয়ে, মোর্চা-বিজেপি জোটের হয়ে কাজ করেছি। এখন সরাসরি রাজনীতি করতে চাই না।” গুরুং-এর আর্জি খারিজ হওয়াতে রাজনীতি থেকে আলাদা হওয়ার প্রশ্ন উঠলে তিনি বলেন,”তা কেন! আমি মোর্চা অনুমোদিত দার্জিলিং, তরাই-ডুয়ার্স প্ল্যান্টেশন ইউনিয়নের কাজকর্ম দেখছি। ক’দিন আগেই তো একটা মিটিঙে দলের নেতা বিনয় তামাঙ্গের সঙ্গে কথা হল।” নেপালি ভাষীদের একটি বিশাল অংশ ডুয়ার্সের গুরুং পন্থী হিসাবে বিজেপির সাথে যোগাযোগ বিচ্ছিন্নকরণের প্রসঙ্গে এদিন বিনয় তামাং জানান,”ভোটের সময়ে আলাদা রাজ্যের প্রতিশ্রুতি দিয়ে জেতার পরে যাঁরা বিপদের সময়ে গা ঢাকা দেন, তাঁদের পাশে পাহাড়, ডুয়ার্সের নেপালি ভাষীরা আর থাকবে কেন!”

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!