এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > চাকরি দেওয়ার নামে লক্ষ লক্ষ টাকা প্রতারণার অভিযোগ যুব তৃণমূল সভাপতির বিরুদ্ধে

চাকরি দেওয়ার নামে লক্ষ লক্ষ টাকা প্রতারণার অভিযোগ যুব তৃণমূল সভাপতির বিরুদ্ধে

ফের দুর্নীতিকান্ডে নাম জড়ালো শাসকদলের। চাকরি দেওয়ার নাম করে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন বাগদা ব্লকের যুব তৃণমূল কংগ্রেস সভাপতি হিবজুল রহমান,এমনটাই অভিযোগ। ঘটনার খবর সামনে আসতেই ব্যাপক শোরগোল পড়ে গিয়েছে এলাকায়। তবে অভিযুক্তের দাবী তাকে ষড়যন্ত্র করেই ফাঁসানো হয়েছে এবং এই চক্রান্তে সামিল রয়েছেন দলীয় কয়েকজন নেতাই। অভিযুক্তের নিশানা দলীয় কর্মীদের দিকে হওয়ায় স্বাভাবিকভাবেই গোষ্ঠীকোন্দলের দিকেই ইশারা করে।

তাছাড়া গত বিধানসভা নির্বাচনেও দলীয় আভ্যন্তরীন মতবিরোধের জেরে বাগদার তৃণমূল প্রার্থী তথা মন্ত্রী উপেন বিশ্বাস পরাজিত হয়েছিলেন। জয়ী হয়েছিলেন কংগ্রেস-সিপিএম জোটের প্রার্থী। সেই পুরানো মন কষাকষি ফের চাঙ্গা হয়ে উঠেছে। ঘটনায় তীব্র অস্বস্তিতে তৃণমূলের দলীয় নেতৃত্ব।

বারাসাত জেলা পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, বিগত দুদিন মিলিয়ে হিবজুল রহমান মন্ডলের বিরুদ্ধে মোট ছটি অভিযোগ দায়ের হয়েছে। আর সবগুলোই চাকরির প্রতারণা বিষয়ক। সবমিলিয়ে ১২ লক্ষ টাকারও বেশি প্রতরণার অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে।অভিযোগ কাউকে পিএইচই, কাউকে কিষাণমান্ডি,কাউকে প্রাথমিক শিক্ষক পদে,কাউকে অঙ্গনওয়াড়িতে চাকরি দেওয়ার কথা দিয়ে তাদের কাছ থেকে প্রচুর পরিমানে অর্থ নিয়েছেন যুব তৃণমূল কংগ্রেস সভাপতি।

অভিযোগের বিষয়ে হিবজুল রহমান তাঁর দিকে ওঠা সমস্ত  অভিযোগ একেবারেই অস্বীকার করেন। বরং উল্টে আবার নিজের দলের দিকেই অভিযোগের আঙুল তুলে বলেন, তৃণমূলেরই কিছু দলীয় কর্মীরা ষড়যন্ত্র করে তাকে ফাঁসিয়েছেন। তার এই অভিযোগের কারণ জানতে চাইলে জবাবে তিনি বলেন, দলের যুব সভাপতি হওয়ায় দিন কয়েক আগে তিনি একটি বক্তৃতা প্রতিযোগিতার আয়োজন করেছিলেন।

কিন্তু দলের কিছু নেতাই ওই অনুষ্ঠানে কর্মীদের আসতে বাধা দিয়েছিলেন। এদের নামে তিনি দলীয় নেতৃত্বের কাছে লিখিত অভিযোগও জমা দিয়েছিলেন। আর এই রাগেই তাঁর বিরুদ্ধে চাকরি পাইয়ে দেওয়ার নামে প্রতারণার অভিযোগ তোলা হয়েছে। আর দ্বিতীয় কারণ হিসাবে জানালেন, দিন দুয়েক আগে কৌটো বোমায় একজন স্কুলের শিশু আহত হয়েছিলেন। হিবজুল রহমান তার সঠিক তদন্ত করার দাবী করার জেরেই তাঁর বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র শুরু করে দলীয় কর্মীরা। গোটা ঘটনাটাই তিনি দলীয় নেতৃত্বকে জানিয়েছেন বলেই বললেন এদিন।

উল্লেখ্য,লোকসভা ভোট যতোই এগিয়ে আসছে ততোই যেন গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব মাথাচাড়া দিয়ে উঠছে শাসকদলের। তৃণমূল সুপ্রিমোর বারবার ধমক সত্ত্বেও এই সমস্যা থেকে মুক্তি মিলছে না দলের। তার উপর আবার চাপ বাড়িয়ে দলীয় নেতৃত্বরাই দলের যুব সভাপতির বিরুদ্ধে প্রতারণার অভিযোগ তুলেছে। গোটা ঘটনাটাই শাসকদলের পক্ষে যথেষ্ট উদ্বেগের।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

 

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

বিরোধীরা এই ইস্যুকেই সামনে রেখে আক্রমণ শানানোর পাশাপাশি দলীয় প্রচার কর্মসূচি জোরদার করবে। এই প্রেক্ষিতে কী হবে মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূল সুপ্রিমোর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের স্ট্র্যাটাজি সেটা নিয়েই এখন জোর চর্চা শুরু হয়েছে শাসকদলের অন্দরে। এমনটাই মনে করছেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা।

দিন ধরেই নেওয়া হচ্ছিল না। পরিস্থিতি এতোটাই বিগড়ে গিয়েছিল যে,কলেজে অধ্যাপিকারাও কলেজে থাকাকালীন আক্রান্ত হচ্ছিলেন। লজ্জায়-অপমানে ভেঙে পড়েছেন অধ্যাপিকারা। সংসদের ঘরে বহিরাগতরা অনেক রাত পর্যন্তই থাকেন। এটা চলতে পারেনা। এর বিহিত করার অনুরোধ করেন গোপাল বাবুর কাছে।

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে এই ধরণের আচরণ বরদাস্ত করা হবে না,এমনটাই অধ্যক্ষাকে আশ্বস্ত করে জানান তৃণমূল ছাত্র পরিষদের জেলা সভাপতি গোপাল রায়। ছাত্রীদের সঙ্গে শিক্ষিকাদের সম্পর্ক স্বাভাবিক থাকাই বাঞ্ছনীয় এমনটাই বলেন তিনি। এই কলেজে পরিচালন কমিটির পাশাপাশি ছাত্র ইউনিয়নও নেই। গোলমাল এড়াতে ছাত্র ইউনিয়নের ঘর বন্ধ করে দেওয়াই উচিৎ বলে মনে করছেন তিনি। এবং তিনি এটাও জানান,এই অশান্তির ঘটনায় তাঁদের তরফের কোনো সমর্থক যুক্ত থাকলে তাঁদের বিরুদ্ধেও কড়া শাস্তিযোগ্য ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এর পাশাপাশি গোপালবাবু এই ঘটনার জন্যে অভিযোগের আঙুল বামপন্থী অধ্যাপিকার দিকেই তোলেন। বলেন,তাঁর উস্কানিতেই এরকম ধরনের ন্যাক্কারজনক ঘটনা ঘটে গেল কলেজে। এদিনের বৈঠক প্রসঙ্গে অধ্যক্ষা সীমা দেবী জানান,তৃণমূল ছাত্র পরিষদ নেতৃত্বে বৈঠকে বসে তাঁদের প্রতিশ্রুতি পূরণ করেছেন। এবং আলোচনায় সমস্যা সমাধান হয়েছে। অভিযুক্তদের কড়া শাস্তি দেওয়া হবে,এমনটাই জানান তিনি।

 

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

 

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

উল্লেখ্য,এদিন আবার শাসকদলের ছাত্রসংগঠনের হামলা করেছে শিক্ষাঙ্গনে,এই ইস্যুকে হাইলাইট করে অভিযুক্তদের শাস্তির দাবীতে কলেজের সামনে থেকে ঘড়ির মোড় পর্যন্ত প্রতিবাদ মিছিল করে বিজেপি। তৃণমূলের বিরুদ্ধে অভিযোগের আঙুল তোলার আরো একটা সু্যোগ পাওয়ায় সেটাকেই নিজেদের প্রচারমূলক কর্মসূচির অস্ত্র হিসাবে ব্যবহার করল গেরুয়াশিবির,এমনটাই মনে করছেন ওয়াকিবহালমহল।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!