এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > মোদি- শাহের আপন গড়ে বড়সড় ধাক্কা কংগ্রেসের, রাহুল-সোনিয়ার ঘুম উড়িয়ে দল ছাড়লেন দুই হেভিওয়েট

মোদি- শাহের আপন গড়ে বড়সড় ধাক্কা কংগ্রেসের, রাহুল-সোনিয়ার ঘুম উড়িয়ে দল ছাড়লেন দুই হেভিওয়েট

2019 এর সদ্যসমাপ্ত লোকসভা নির্বাচনে বিজেপি ফের দ্বিতীয়বারের জন্য কেন্দ্রের মসনদ দখল করেছে। আর সারাদেশ জুড়ে গেরুয়া শিবিরের এই প্রবল উত্থান ঘটার পরই দিকে দিকে বিজেপির শক্তি বৃদ্ধি হতে শুরু করে। বিভিন্ন বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলোর চিন্তা বাড়িয়ে গেরুয়া শিবিরে নাম লেখাতে শুরু করেন হেভিওয়েট নেতা কর্মীরা। আর এই পরিস্থিতে এবার কংগ্রেসের 2 বিধায়ক হাত শিবির ছেড়ে পদ্ম শিবিরে নাম লেখালেন।

সূত্রের খবর, গুজরাটের দুটি রাজ্যসভার আসনের উপনির্বাচনের দিন অনগ্রসর শ্রেণীর নেতা তথা রাধানপুর বিধানসভা কেন্দ্রের বিধায়ক অল্পেশ ঠাকুর এবং তার ঘনিষ্ঠ বলে পরিচিত বায়ড বিধানসভা কেন্দ্রের বিধায়ক ধবলসিং জ্বালা শুক্রবার কংগ্রেস থেকে পদত্যাগ করেন। কিন্তু হঠাৎ কেন তারা কংগ্রেস ছাড়লেন!

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

এদিন এই প্রসঙ্গে সাংবাদিক সম্মেলন করে অল্পেশ ঠাকুর বলেন, “কংগ্রেস দলে যোগ দেওয়ার পর থেকেই আমরা অবহেলিত এবং অপমানিত। নিজের সম্প্রদায়ের উন্নয়নের লক্ষ্যে রাহুল গান্ধীর উপর ভরসা করে দু’বছর আগে কংগ্রেসে যোগ দিয়েছিলাম। কিন্তু কোনো উন্নয়ন হয়নি।”

অন্যদিকে বায়ড বিধানসভা কেন্দ্রের বিধায়ক ধবলসিং জ্বালা বলেন, “যেদিন থেকে আমি বিধায়ক হয়েছি, সেদিন থেকেই শীর্ষ নেতারা আমাকে ক্রমাগত অপমান করছেন। আর একথা দলের শীর্ষস্তরে জানালেও কাজের কাজ কিছুই হয়নি।”

এদিকে অমিত শাহ এবং স্মৃতি ইরানির ছেড়ে যাওয়ার গুজরাটের দুটি আসনেই উপনির্বাচন হলে এদিন সেখানেও ক্রস ভোটিংয়ের অভিযোগ করেন অল্পেশ ঠাকুর।

রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের মতে, বিজেপির শক্ত ঘাঁটি বলে পরিচিত গুজরাটে কংগ্রেস দাঁত ফোটানোর চেষ্টা করলেও যত দিন যাচ্ছে সেখানে বিরোধীরা ততই পর্যুদস্ত হচ্ছে। আর তাই তো এবার লোকসভা নির্বাচনের পর দুই কংগ্রেস বিধায়কের দলত্যাগ গেরুয়া শিবিরের শক্তি অনেকটাই বৃদ্ধি করল বলেই মনে করছে বিশেষজ্ঞরা।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!