এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > আবার পুরানো শরিক হারাতে চলেছে বিজেপি? মোদী-শাহ চিন্তা বেড়েই যাচ্ছে!

আবার পুরানো শরিক হারাতে চলেছে বিজেপি? মোদী-শাহ চিন্তা বেড়েই যাচ্ছে!

এবার রাজ্যসভার ডেপুটি চেয়ারম্যান নির্বাচনকে কেন্দ্র করে জোট নিয়ে ঝামেলায় জড়ালো বিজেপি। এক জোটসঙ্গী জেডি(ইউ) কে সন্তুষ্ট করতে গিয়ে অন্য আরেক জোট সঙ্গী অকালি দলের অন্তোষের কারণ হল পদ্মশিবির। এখন অসন্তোষের পারদ এমন চড়েছে দলীয় অন্দরে যে পরশুদিন নির্বাচনে এনডিএ প্রার্থীকে ভোট না দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তারা।

এনডিএ -র অন্দরে রাজ্যের ডেপুটি চেয়ারম্যান নির্বাচন নিয়ে জটিলতা তুঙ্গে এখন। বিজেপির দীর্ঘদিনের জোটসঙ্গি অকালি দলের দাবী ছিল,তাঁদের দলের সাংসদ নরেশ গুজরালকে এই পদটি দেওয়া হোক। কিন্তু গেরুয়াশিবির বিহারের মুখ্যমন্ত্রী নীতীশ কুমারকে সন্তুষ্ট করার জন্য  এনডিএ শরিক জোট জেডি(ইউ)-কে ছেড়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়। এতেই বেজায় চটে যায় অকালি দল। ক্ষুব্ধ হয়ে তাঁরা ডেপুটি চেয়ারম্যান নির্বাচনের ভোট দানে অংশগ্রহন করবে না বলেই সাফ জানিয়ে দিয়েছে। এদিন প্রাক্তন উপমুখমন্ত্রী সুখবীর সিখ বাদলের বাড়িতে বৈঠকে বসেন দলের শীর্ষ নেতারা। বৈঠকের পরই তাঁরা এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। এদিকে শিবসেনাও অকালিদের সমর্থন করে ভোটদান থেকে বিরত থাকার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। উল্লেখ্য,রাজ্যসভায় মোট তিন জন সদস্য রয়েছে অকালি দলের।

আরো পড়ুন : রাজ্য সরকারের চাপ বাড়িয়ে বঞ্চনার প্রতিবাদে কলকাতায় প্রাথমিক শিক্ষকদের মহামিছিল

জানা গিয়েছে, ডেপুটি চেয়ারম্যান পদ নির্বাচনে জয় নিয়ে তেমন আত্মবিশ্বাসী নয় বিজেপি,যতটা রাষ্ট্রপতি এবং উপরাষ্ট্রপতি পদের নির্বাচন নিয়ে ছিল। পরিসংখ্যান বলছে, ২৪৫ টি আসনের রাজ্যসভসয় ডেপুটি চেয়ারম্যান পদে জয় হাসিল করার জন্য ১২৩ টি আসন করায়ত্ত্ব করা প্রয়োজন।  এনডিএ জোটের হাতে রয়েছে আপাতত ৯২ জন সাংসদ। তবে তামিলনাডুর এআইডিএমকে, কেসিআরের ওয়াইএসআর কংগ্রেস বিজেপির পাশে থাকবে বলেই একরকম আশা করে আছে পদ্মশিবির। তাতেও যদি জয়ের লক্ষ্যমাত্রায় পৌছানো না যায়,তখন প্রয়োজন পড়বে নবীন পট্টনায়কের বিজু জনতা দলের সমর্থন।  

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

——————————————————————————————-

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে।

তবে আপাতত শরিক দলের মন কষাকষির জেরে নাস্তানাবুদ অবস্থা বিজেপির। এদিকে অকালি দলের নিদেনপক্ষে দুজন সঙ্গির ভোট না পেলে চাপে পড়ার সম্ভাবনা আছে বিজেপির। পুরানো জোট সঙ্গি অকালি-কে যদি অবিলম্বে শান্ত করা না যায়,তবে বিজেপি ফের হারাতে পারে পুরানো জোটসঙ্গীকে।

এরকম অবস্থার সামনে দাঁড়িয়ে কী পদক্ষেপ নেবেন মোদীজি-অমিত শাহ? দফায় দফায় প্রশ্ন উঠছে রাজনৈতিক মহল থেকে। তীব্র চাপানউতোর চলছে বর্তমানে গেরুয়াশিবিরে এমনটাই জানা যাচ্ছে রাজনৈতিক সূত্রের খবর থেকে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!