এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > মোদী মমতার ছবি নিয়ে তৃণমূল বিজেপি সংঘর্ষ, উত্তেজনা বনগাঁয়

মোদী মমতার ছবি নিয়ে তৃণমূল বিজেপি সংঘর্ষ, উত্তেজনা বনগাঁয়

বিজেপি-তৃণমূল সংঘর্ষে ফের উত্তপ্ত বনগাঁ। সেখানের সাতভাই কালীতলা এলাকায় পৌষমেলা চলাকালীন একটি জলসত্রকে কেন্দ্র করে দুই যুযুধান গোষ্ঠীর বিবাদ প্রকাশ্যে আসে। লোকসভা ভোট যতোই এগিয়ে আসছে ততোই যেন বিজেপি-তৃণমূল একে অন্যের বিরুদ্ধে মারমুখী হয়ে উঠছে। জনসভা হোক না প্রচারমূলক কর্মসূচি বিজেপি-তৃণমূলের আক্রমণ তথা পাল্টা আক্রমণ লাগাতার উত্তপ্ত রয়েছে রাজ্যের রাজনৈতিক ক্ষেত্র।

এমনকি একে অন্যের বিরুদ্ধে কড়া মন্তব্য করতে শালীনতার সীমাকেও নির্দ্বিধায় অতিক্রম করছে। পশ্চিমবঙ্গে তৃণমূলের প্রতিপক্ষ হিসাবে বামফ্রন্ট,কংগ্রেস থাকলেও লড়াইটা যেমন শুধুমাত্র বিজেপির সঙ্গে,এমনটাই প্রমাণ হয়েছে বহুবার। এদিনের ঘটনা বনগাঁর রাজনৈতিকমহলে শোরগোল ফেলে দিল।

জেলা সূত্রের খবর,জলসত্র ভাঙচুরের প্রতিবাদে আয়োজিত একটি মিছিলকে কেন্দ্র করে গতকাল বিজেপি-তৃণমূলের দ্বন্দ্ব মাথাচাড়া দিয়ে ওঠে। ওই সংশ্লিষ্ট জলসত্র বিজেপির তরফ থেকে আয়োজন করা হয়েছিল বলে জানা গিয়েছে। আর সেজন্যেই সেখানে স্বাভাবিকভাবেই বিজেপির দলীয় পতাকা এবং নরেন্দ্র মোদীর ছবি লাগানো ছিল। ব্যাপারটি মেলা কমিটির নজরে এলে বিজেপি দলীয় পতাকা সরাতে বলে তাঁরা।

একদিকে মেলা অনুসন্ধান কেন্দ্রে মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ছবি লাগানো ছিল অন্যদিকে,জলসত্রে বিজেপি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর ছবি লাগানো ছিল। এটাই সমস্যার তৈরি করে। মেলা কমিটির কথায় ভ্রুক্ষেপ না করে জলসত্র থেকে মোদীর ছবি সরাতে না চাইলে দু পক্ষের মধ্যে তর্কাতর্কি বাঁধে। এবং বচসা ক্রমে সংঘর্ষের রূপ নেয়।

 

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

এরপর শুরু হয় ভাঙচুর। পরে তা বিক্ষোভে পরিনত হয়। এরপর এই ভাঙচুরকে কেন্দ্র করেই প্রতিবাদ মিছিল বের করা হয়। এই মিছিলকে কেন্দ্র করেই বিজেপি-তৃণমূল সংঘর্ষে উত্তেজনা ছড়ায় বনগাঁয়। পরিস্থিতি এতোটাই নিয়ন্ত্রনের বাইরে চলে যায় যে তা সামাল দিতে ঘটনাস্থলে আসতে হয় পুলিশকে। এরপর ধীরে ধীরে পরিস্থিতির স্বাভাবিকতা ফিরে আসে।

উক্ত ঘটনায় বিজেপি-তৃণমূল উভয়ই উভয়ের দিকে অভিযোগের আঙুল তোলে। তৃণমূলের দাবী,বিজেপি তাদের উপর অযথা আক্রমণ করেছে। এমনকি জেলা তৃণমূল সভাপতি সুভাষ শীলকে কটূক্তি এবং মারধোরও করা হয়েছে৷ সুভাষ বাবুর সম্মানহানি করেছে বিজেপি,এমনটাই অভিযোগ। তবে জেলা বিজেপি নেতৃত্বরা আবার এ অভিযোগ তুড়ি মেরে উড়িয়ে দেন। পাল্টা অভিযোগে তাঁরা জানায়,তৃণমূলের দলবলেরা তাঁদের গাইঘাটা পঞ্চায়েত সমিতির সদস্য ঊর্মিলা তরফদারকে মারধোর করে। গতকালের ঘটনায় গন্ডোগোল করার জন্যে দুজনকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

Top
error: Content is protected !!