এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > মোদিকে একা করে সঙ্গে ছাড়লেন জিতনরাম মাঝি

মোদিকে একা করে সঙ্গে ছাড়লেন জিতনরাম মাঝি

বিহারের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী এবং হিন্দুস্থান আওয়ামি মঞ্চের প্রধান জিতনরাম মাঝির বাড়িতে যান বিহার বিধানসভার বিরোধী দলনেতা তেজস্বী যাদব। সেখানে রাজস্বী যাদব , নিজেদের ভাগের একটি রাজ্যসভার আসন আরজেডি মাঝির দলকে ছেড়ে দেবার কথা জানায় । আর এই ঘটনার পরই এনডিএ ছাড়ার কথা ঘোষণা করলেন বিহারের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী। এরপরে তিনি রাবড়ি দেবীর সঙ্গেও দেখা করেন । মাঝি জানান অল্প কয়েকদিনের মধ্যেই তিনি রাজ্যসভা নির্বাচনে দলীয় প্রার্থীর নাম ঘোষণা করবেন। বিহারে মুসলিম-যাদব সম্মিলিত ভোট হচ্ছে প্রায় ৩০ শতাংশের মতো। আর ওই রাজ্যে মহাদলিত ভোট রয়েছে ১০ শতাংশ । মাঝি নিজে ও একজন দলিত সম্প্রদায়ের মানুষ। তাই আরজেডি শিবিরের অনুমান ওই মহাদলিত ভোটের একটা বড় অংশ এবার তাদের দিকে আসবে।ফলে, নির্বাচনী লড়াইতে আরজেডির নেতৃত্বে গঠিত মহাজোটকে বাড়তি সুবিধা দেবে। এদিকে বিজেপি শিবির গুলি নিজেদের অবস্থান দৃঢ় প্রমান করতে বলছে জাতপাতের রাজনীতিকে বিহারের মানুষ অনেক আগেই বর্জন করেছেন আর আসন্ন নির্বাচনেও এর অন্যথা হবেনা। সেই কারণে মাঝির এনডিএ ছাড়াতে ভোটের অঙ্কে বিশেষ হেরফের হবে না। ২০১৪ র আগে অবধি রাজ্য রাজনীতিতে মাঝি কোনোভাবেই পরিচিত ছিলেন না । পরবর্তীতে লোকসভা নির্বাচনে সংযুক্ত জনতা দলের শোচনীয় ফলের দায়িত্ব নিজে নিয়ে নীতীশ কুমার মুখ্যমন্ত্রীর পদ ছাড়েন তখন মুখ্যমন্ত্রী পদে জিতন মাঝিকে মনোনীত করা হয়। পরে দুজনের মতানৈক্যের কারণে মাঝি , নীতিশের দল ত্যাগ করে নতুন দল গঠন করেন। এবং এনডিএ জোটে সামিল হন।এরপর বিরোধীতার সূত্রপাত ঘটে নীতীশ ফের এনডিএ জোটে ফিরলে । সম্প্রতি রাজ্যে তিনটি বিধানসভা কেন্দ্রের উপনির্বাচনকে কেন্দ্র করে সেখানে তিনটি আসনের মধ্যে অন্তত একটিতে প্রার্থী দিতে চেয়েছিলেন মাঝি। এনডিএ জোটের দুই বড় দল বিজেপি এবং সংযুক্ত জনতা দল সেই দাবিকে একদমই প্রাধান্য দেয়নি। এমনকি রাজ্যসভার একটি আসন তাঁকে ছাড়তে হবে এই দাবি করলেও সেটা মঞ্জুরী মেলে না। নানা ভাবে অপমানিত বিপর্যস্ত মাঝি অবশেষে এক বন্ধুর মারফত যোগাযোগ করেন লালুর পরিবারের সঙ্গে। রাজস্বীর সাথে আলোচনার পর একটা আসন পেতেই অবিলম্বে এনডিএ ছাড়ার কথা ঘোষণা করেন। মাঝি কে নিজেদের পক্ষে আনার পর আরজেডির লক্ষ্য কেন্দ্রীয় মন্ত্রী উপেন্দ্র কুশওয়ার রাষ্ট্রীয় লোক সমতা পার্টি। প্রসঙ্গত প্রায় একই কারণে মাঝির মতো বিজেপি এবং নীতীশের ওপর ক্ষুদ্ধ কুশওয়া। তবে কুশও্য়া কে এনডিএ তে রাখতে যথেষ্ট তৎপর বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ । এরমধ্যেই অমিত শাহ ও কুশওয়া র এক দফা বৈথক হয়ে গিয়েছে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!