এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > এবার সরকারি কোম্পানির সম্পত্তি বিক্রি করে ১ লক্ষ কোটি টাকা কোষাগারে আনতে চায় মোদী সরকার

এবার সরকারি কোম্পানির সম্পত্তি বিক্রি করে ১ লক্ষ কোটি টাকা কোষাগারে আনতে চায় মোদী সরকার

মোদি সরকার এবার সরকারি সংস্থার সম্পত্তি বিক্রির প্রক্রিয়া শুরু করতে চলছে। দ্বিতীয় দফার মেয়াদে নরেন্দ্র মোদী এবার বিনিয়োগের গতি বাড়াতে চান। এর জন্য, সরকার কৌশলগত বিনিময় ও সরকারী জমি বিক্রির মাধ্যমে এক লাখ কোটি টাকার লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছে। অর্থ মন্ত্রক সেন্ট্রাল পাবলিক এন্টারপ্রাইজকে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব এই ধরনের সম্পত্তির তালিকা প্রস্তুত করতে বলেছে। ইতিমধ্যেই এর জন্য সরকার ২৯ টি কোম্পানির তালিকা প্রস্তুত করেছে।

ইনভেস্টমেন্ট পাবলিক অ্যাভেটস ম্যানেজমেন্ট সেক্রেটারি অতনু চক্রবর্তী এক সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, কৌশলগত বিক্রয়সহ আগামী সপ্তাহে সরকার এই সংক্রান্ত তিনটি নতুন প্রস্তাব দিতে পারে। তিনি আরও জানান, বাজেটে এ ধরনের অনেক পদক্ষেপ হয়েছে। এই প্রক্রিয়ায় লিস্টেড কোম্পানিগুলিতে জনসাধারণের শেয়ার বৃদ্ধি হিসাবে ধরতে পারেন। এটি শেয়ার বাজার থেকে অর্থ সংগ্রহ করতে সহায়তা করবে।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

তিনি বলেন, কৌশলগত বিনিয়োগের অধীনে আমরা ধাপে ধাপে এগোব। এয়ার ইন্ডিয়া বিক্রয় ইতিমধ্যে ঘোষণা করা হয়েছে কিন্তু এটি একটি বিষয় মাত্র। এই ধরনের আরও তিনটি বিক্রয় প্রস্তাব আগামী সপ্তাহে উপস্থাপন করা হবে। এটা একটি কনভেয়র বেল্ট-এর মত, যেখানে বিক্রির জন্য পণ্য রাখা হবে। তিনি আরও জানান, প্রথমে কিছু জমি বিক্রি করার প্রস্তাব দিয়ে সরকার বাজারের প্রতিক্রিয়া দেখতে চায়। পরে এই প্রক্রিয়ার গতি আরও বাড়ানো হবে।

প্রসঙ্গত, কৌশলগত বিক্রির জন্য সরকার ইতিমধ্যেই প্রায় ৩৫ টি সিপিএস চিহ্নিত করেছে। এয়ার ইন্ডিয়া, পবনহংস, BEML, স্কুটার ভারত, ভারত পাম্প কম্প্রেসর এবং বিশিষ্ট ইস্পাত কোম্পানি সেলের ভদ্রাবতী, সলেম ও দুরপুর ইউনিট এর মধ্যে অন্যতম। এছাড়াও, হিন্দুস্তান ফ্লুরোকার্বোনস, হিন্দুস্তান নিউজপ্রিন্ট, HLL লাইফ কেয়ার, সেন্ট্রাল ইলেক্ট্রনিক্স, ব্রিজ অ্যান্ড রুফ ইন্ডিয়া, ন্মাদক-এর নগরনার ইস্পাত ইউনিট, সিমেন্ট কর্পোরেশন অফ ইন্ডিয়া ও ITDC-র ইউনিট রয়েছে।

প্রসঙ্গত, কেন্দ্র সরকার এই সব সরকারি কোম্পানির সম্পত্তি বিক্রি করে ১ লক্ষ কোটি টাকা কোষাগারে নিয়ে আসার পরিকল্পনা বাজেটেই জানিয়েছে। নির্বাচনের আগে অন্তর্বর্তীকালীন বাজেটে এই লক্ষ্যমাত্রা ছিল ৯০ হাজার কোটি টাকা। পূর্ণাঙ্গ বাজেটে সরকার তার পূর্বনির্ধারিত লক্ষ্য কিছুটা বৃদ্ধি করেছে। আর এই পদক্ষেপের পরে সম্পদ বৃদ্ধির জন্য সরকার বিভিন্ন পিএসইউতেও তার অংশীদারি বিক্রি, জমির কৌশলগত বিক্রিতে জোর দেবে বলেই মনে করা হচ্ছে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!