এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > মোদি সরকারের বিরুদ্ধে ফের একজোট বিরোধীরা, বিরোধী মহাজোটের জল্পনা তুঙ্গে

মোদি সরকারের বিরুদ্ধে ফের একজোট বিরোধীরা, বিরোধী মহাজোটের জল্পনা তুঙ্গে

লোকসভা নির্বাচনের আগে কেন্দ্র থেকে বিজেপিকে সরাতে দেশের প্রায় সমস্ত বিজেপি বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলো এককাট্টা হয়েছিল। কিন্তু শেষ পর্যন্ত সেই বিরোধী মহাজোট ধোপে টেকেনি। তবে রাজনৈতিক পরিস্থিতি কখন কিভাবে দাঁড়াবে, তা নিশ্চিত করে বলতে পারে না কেউই। তবে এবার ফের সপ্তদশ লোকসভা নির্বাচনের পর যখন কেন্দ্রে বিপুল সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে মোদি সরকার রাজ করছে, ঠিক তখনই সেই কেন্দ্রের শাসকদলের বিরুদ্ধে বিজেপি বিরোধী মহাজোট মাথাচাড়া দিয়ে উঠতে দেখা গেল।

কিন্তু হঠাৎ আবার ঠিক কোন ইস্যুতে কেন্দ্রের শাসকদলের বিরুদ্ধে বিরোধীরা একজোট হল! বস্তুত, কিছুদিন আগেই জাতীয় মেডিকেল কমিশন বিল পাস হয়েছে। আর এই বিল পাশের পরই অল ইন্ডিয়া ইনস্টিটিউট অফ মেডিক্যাল সায়েন্স, ইন্দিরা গান্ধী মেডিকেল সায়েন্স ইনস্টিটিউট এবং পাটনা মেডিকেল কলেজ এন্ড হাসপাতালের চিকিৎসকরা ধর্মঘটে সামিল হয়েছেন। যার ফলে স্বাস্থ্য ব্যবস্থার মতো জরুরি পরিষেবা শিকেয় উঠেছে। আর এবার এই ইস্যুতেই মোদি সরকারের বিরোধিতা করে কংগ্রেস, আরজেডি এবং বিজেপির জোটসঙ্গী জেডিইউ সরব হল।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

এদিন এই প্রসঙ্গে ধর্মঘটীদের এই আন্দোলনকে সমর্থন করে বিহার কংগ্রেসের প্রধান মদনমোহন ঝা বলেন, “সরকারের উদ্দেশ্য সঠিক থাকলে পরিস্থিতি এতটা খারাপ হত না। আসলে এই বিল পাস করে সরকার তার অযোগ্যতার পরিচয় দিয়েছে।” একইভাবে আরজেডির তরফেও এই ব্যাপারে সরকারের প্রবল বিরোধিতা করা হয়েছে। কিন্তু ধর্মঘট না করে পরিষেবাকে যাতে সচল করা হয়, তার জন্য আবেদন রেখেছেন তারা। এদিন এই প্রসঙ্গে আরজেডির শিবানন্দ তিওয়ারি বলেন, “বিলটি সংসদে পাস হয়েছে। তবে স্বাস্থ্যব্যবস্থাকে বিকল করে প্রতিবাদ করার কোনো মানে নেই। বিষয়গুলি সঠিক প্লাটফর্মে উত্থাপন করা হোক।”

এদিকে আশ্চর্যজনক ভাবে তারা বিজেপির জোটসঙ্গী হলেও এই ন্যাশনাল মেডিকেল বিলের বিরুদ্ধে মুখ খুলে ধর্মঘটীদের পাশে দাঁড়াতে দেখা গেছে জেডিইউকে। এদিন এই প্রসঙ্গে জেডিইউয়ের মুখপাত্র ডঃ সুনীল বলেন, “প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির নেতৃত্বাধীন এনডিএ সরকারকে বেশ কিছু বিষয় স্পষ্ট করতে হবে। মেডিকেল শিক্ষার্থীদের আস্থা অর্জন করার জন্য যা করণীয়, তাই করতে হবে। বিলটিতে বেশ কিছু বিভ্রান্তি রয়েছে, তা অবিলম্বে দূর করা উচিত।”

রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের মতে, এই ন্যাশনাল মেডিকেল বিল এবার যেন গলায় কাঁটা হয়ে ফুটতে পারে কেন্দ্রীয় সরকারের। আর তাইতো নির্বাচনের আগে বিভিন্ন ইস্যুতে যখন বিরোধীদের একজোট হতে দেখা গিয়েছিল, এবার নির্বাচনের পর ফের আরও একবার বিহারে সেই বিরোধী ঐক্য দেখা গেল। যা নিঃসন্দেহে মোদি সরকারের কাছে বড়সড় চিন্তার কারণ বলে দাবি বিশেষজ্ঞদের।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!