এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > নোট বাতিলের ফলে ধরা পড়তে শুরু করল কালো টাকা, দাবি আয়কর দপ্তরের

নোট বাতিলের ফলে ধরা পড়তে শুরু করল কালো টাকা, দাবি আয়কর দপ্তরের

গত বছরের নভেম্বর মাসে গোটা দেশকে তোলপাড় করে দেওয়া মোদী সরকারের নোট বাতিলের সিদ্ধান্তের ফল আয়কর দফতরের হাতে এলো বলে দাবি। আয়কর দফতর সূত্রে জানা যাচ্ছে নোট বাতিলের পরেই কে জি মর্গের কোটাক মাহিন্দ্রা ব্যাঙ্কের একটি শাখায় পুরানো দিল্লির নয়া বাজার এলাকার বাসিন্দা জনৈক রমেশ চাঁদ শর্মা বাতিল হয়ে যাওয়া ৫০০ ও ১০০০ টাকার নোটের মাধ্যমে প্রায় ১৬ কোটি টাকা জমা করেন, এমনকি আয়কর দপ্তরের চোখ পড়ার সাথে সাথেই ওই টাকা কিছু ব্যক্তির নামে ডিমান্ড ড্রাফ্ট করা হয় সরিয়ে ফেলার উদ্দেশ্যে বলেও দাবি। তবে সেই লেনদেন স্থগিত করে তহবিল বাজেয়াপ্ত করা হয় এবং লেনদেন প্রতিরোধ সংক্রান্ত সংশোধিত আইন রূপায়ণের দায়িত্বে থাকা বিশেষ আদালতে এই বিষয়টি জানানো হলে তাঁরাও আয়কর দফতরের সিদ্ধান্ত মেনে নেন বলে সূত্রের খবর।

বিশেষ আদালতের ডিভিশন বেঞ্চের চেয়ারপার্সন মুকেশ কুমার ও আইন বিষয়ক সদস্য তুষার ভি শাহ রায় বলেছেন, অনুসন্ধানের পরে হাতে আসা নথি থেকে বোঝা যাচ্ছে ১৫.৯৩ কোটি টাকা যে বেনামী সম্পত্তি, তা নিয়ে সন্দেহ নেই, রমেশ চাঁদ শর্মা এক্ষেত্রে ‘বেনামিদার’। যাঁকে তিনি টাকা পাঠাতে চেয়েছিলেন তাঁর পরিচয় এখনো জানা যায়নি। প্রসঙ্গত , রমেশ শর্মার বিরুদ্ধে পর্যাপ্ত অভিযোগ সহ আদালতে চার্জশিট দাখিল করা হলেও রমেশ চাঁদ এখনো আয়কর দফতরের হাতের নাগালে আসেননি। আয়কর দপ্তরের দাবি এটি একটি মাত্র ঘটনা যা সামনে এসেছে, আগামী দিনে এরকম আরো বহু কালো টাকার ঘটনা সামনে আসবে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!