এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > জল্পনা বাড়িয়ে মোদী মন্ত্রীসভার হেভিওয়েট সদস্য আর নির্বাচনে লড়তে চাইছেন না

জল্পনা বাড়িয়ে মোদী মন্ত্রীসভার হেভিওয়েট সদস্য আর নির্বাচনে লড়তে চাইছেন না

১৯’এর লোকসভা ভোটে প্রার্থী হতে চান না সুষমা স্বরাজ। এমনটাই এদিন বুঝিয়ে দিলেন তিনি। মধ্যপ্রদেশে সাংবাদিক বৈঠকে তিনি জানিয়ে দিলেন, তিনি মনস্থির করে ফেলেছেন যে তিনি আগামী লোকসভা ভোটে প্রার্থী হতে চান না। তবে এ ব্যাপারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়ার অধিকার রয়েছে দলের।

বিদেশমন্ত্রীর এই ধরণের মন্তব্য প্রকাশ্যে আসার শোরগোল পড়ে গিয়েছে জাতীয় রাজনৈতিক ক্ষেত্রে। দফায় দফায় প্রশ্ন উঠছে কী এমন কারণ যার জন্যে বিদেশমন্ত্রী এমন সিদ্ধান্ত নিলেন? তবে কী এবার ভারতীয় রাজনীতিতে আরো একটি যুগের অবসান হতে চলেছে?

তবে ব্যক্তিগত স্বাস্থ্যজনিত কারণে তিনি এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে। বহুদিন ধরেই ডায়াবেটিসে ভুগছেন তিনি। কিডনিজনিত সমস্যার কারণে স্বাস্থ্যও ক্রমশ খারাপ হচ্ছে তাঁর। এ কারণে বিজেপির নির্বাচনী কার্যকলাপও এড়িয়ে চলছেন তিনি। মন্ত্রকের কাজেও তাঁর বিরুদ্ধে ঢিলেমির অভিযোগ রয়েছে।

শুধু তাই নয়,বিজেপির অন্দরে রাজনৈতিক নানান শলা পরামর্শেও তাঁর সক্রিয় উপস্থিতি দেখা যায়নি। গত এক বছরে লোকসভার অধিবেশনেও হাজির থাকতে দেখা যায়নি তাকে। তাঁর লোকসভা কেন্দ্র বিদিশাতেও বহুদিন যাতায়াত নেই বিদেশমন্ত্রীর। এমনটাই জানা গিয়েছে রাজনৈতিক সূত্রের খবরে।

তবে তাঁর অনুপস্থিতি যে নেহাতই ভগ্ন স্বাস্থ্যের কারণে একথা স্বীকার করে নিয়েছেন খোদ বিদেশমন্ত্রী। তবে এর জন্যে তাকে রাজনৈতিকভাবে নিষ্ক্রিয় বলার তীব্র বিরোধিতা করলেন সুষমা দেবী। বললেন,’এভাবে সক্রিয়তা বিচার করা যায় না।’

বিজেপির নিয়ম অনুযায়ী ৭০ বছর বয়স পর্যন্ত লোকসভায় ভোটে দাঁড়ানোর টিকিট দেওয়া হয়। আর সুষমা স্বরাজের বয়স এখন ৬৬। বর্ষীয়ান নেতার এই লোকসভা ভোট থেকে সরে দাঁড়ানোর সিদ্ধান্তের নেপথ্যে রাজনৈতিক অভিমান তত্ত্ব দেখছেন অনেকে। আদবানীর পদাঙ্ক অনুসরণ করেন তিনি,একথা রাজনীতি সচেতন মানুষের অজানা নেই।

২০১৪ সালে নরেন্দ্র মোদী দিল্লির মসনদে বসার পর থেকেই গুরুত্ব কমতে থাকে তাঁর। তবে যে চড়াই-উতরাই পথ বেয়ে রাজনৈতিক জীবনে এগিয়েছে তিনি,তার কৃতিত্ব হিসাবে সুষমা স্বরাজকে বিদেশমন্ত্রকের দায়িত্বে বসানো হয়। কিন্তু বিরোধীদের অভিযোগ, সুষমা স্বরাজকে বিদেশমন্ত্রীর দায়িত্ব দিলেও আদতে সমস্ত রশি ছিল মোদীর হাতে৷ বিদেশি নেতাদের সঙ্গে কূটনৈতিক আলোচনা হোক বা পররাষ্ট্র নীতি নিয়ে কোনো সিদ্ধান্ত নেওয়া সব ব্যাপারেই ছড়ি ঘুরিয়েছেন মোদী।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

 

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

বিদেশমন্ত্রীর থেকে বেশি বিদেশসফরের রেকর্ড আছে মোদীর৷ এসব নিয়ে চর্চা কম হয়নি জাতীয় রাজনৈতিকমহলে। তাই মনে করা হচ্ছে,সেই অভিমানের জায়গা থেকে লোকসভা ভোটে লড়াই করার থেকে বিরত থাকতে চান সুষমা স্বরাজ। তবে রাজ্যসভার সাংসদ হিসাবে সংসদে ফিরিয়ে আনা হতে পারে এই অভিজ্ঞ রাজনীতিককে,এমনটাই খবর বিজেপি সূত্রের।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!