এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > দুই হেভিওয়েট শীর্ষনেতার মোদী-বন্দনায় অস্বস্তি তীব্রতর হাত শিবিরে

দুই হেভিওয়েট শীর্ষনেতার মোদী-বন্দনায় অস্বস্তি তীব্রতর হাত শিবিরে

রাজনীতিতে সময় বড়ই গুরুত্বপূর্ণ। আর সেই সময়ে কখন যে কোন দিকে কে চলে যাবে, তা নিশ্চিত করে বলতে পারবেন না কেউই। আর তাইতো নচিকেতা একসময় তার গানে বলেছিলেন, “আজকে যিনি দক্ষিণেতে কালকে তিনি বামের..”। এতদিন জাতীয় রাজনীতিতে কেন্দ্রের শাসক দল বিজেপি এবং প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে উঠতে-বসতে কটাক্ষ করতে দেখা যেত তাদের।

কিন্তু এবার তারাই 180 ডিগ্রি ঘুরে রীতিমতো নিজেদের দল কংগ্রেসকে প্রবল অস্বস্তিতে ফেলে দিলেন। একজন কংগ্রেস নেতা অভিষেক মনু সিংভি, আর অপরজন জয়রাম রমেশ। বর্তমানে অর্থনীতি থেকে বিদেশনীতি, বিভিন্ন ইস্যুতে কংগ্রেস হাইকমান্ডের পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির কড়া ভাষায় সমালোচনা করা হচ্ছে। কিন্তু এই ব্যাপারে যেন দলের বেসুরো গাইতে দেখা গেল সেই অভিষেক মনু সিংভি এবং জয়রাম রমেশকে।

সূত্রের খবর, এদিন তারা বলেন, “সব ব্যাপারে ব্যক্তি মোদিকে টার্গেট করা ঠিক নয়। সমালোচনা ইস্যুভিত্তিক হওয়া উচিত। মোদি সরকার গরিব মহিলাদের কাঠ-কয়লার রান্নার বদলে যে উজ্জ্বলা যোজনার গ্যাস সিলিন্ডার এবং ওভেন দিচ্ছে, তা নিঃসন্দেহে ভালো। তাই সরকারের যেটা ভালো, সেটার তারিফ করা উচিত।” আর দুই হেভিওয়েট শীর্ষনেতার এই ধরনের মন্তব্যে এবার প্রবল অস্বস্তিতে পড়েছে কংগ্রেস।

অনেকে বলছেন, অভিষেক মনু সিংভি এবং জয়রাম রমেশের এই মন্তব্য কংগ্রেসের কাছে অনেকটা গলায় কাঁটার মতো বিঁধে আছে। তারা না পারছে, এই গোটা বিষয়টি নিয়ে দুই কংগ্রেস নেতার সমালোচনা করতে, আবার না পাচ্ছে তাদের পাল্টা কোনো মন্তব্য করতে।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

এদিকে রাফাল যুদ্ধবিমান ইস্যুতে প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ তুলে “চৌকিদার চোর” বলে নির্বাচনে রাহুল গান্ধী সরব হলেও তাতে লাভের লাভ কিছুই হয়নি বলে এদিন জানিয়ে দিয়েছেন সেই জয়রাম রমেশ। যা আগুনে ঘৃতাহুতি দিয়েছে বলেই মনে করছে রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা। কিন্তু দলের দুই হেভিওয়েট শীর্ষনেতা কেন এইভাবে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে আক্রমন না করার পক্ষে মত পোষণ করলেন!

এদিন এই প্রসঙ্গে কংগ্রেস সাংসদ মনীশ তিওয়ারি বলেন, “যারা মন্তব্য করেছেন তাদের কাছেই জানতে চান যে তারা কেন এই কথা বলেছেন! আর দল কি করবে না করবে, তা সময়মতো আপনারা দেখতেই পাবেন।” এদিকে সাংবাদিকদের এই ইস্যুতে একের পর এক প্রশ্নে কার্যত বিরক্ত হয়ে “আমার বিমান আছে” বলে সেই সাংবাদিক সম্মেলন ছেড়ে উঠে পড়তে দেখা যায় মনীশ তিওয়ারিকে।

সব মিলিয়ে এবার এককালে প্রধানমন্ত্রীকে জোর কটাক্ষ করা দুই হেভিওয়েট কংগ্রেসের শীর্ষ নেতা অভিষেক মনু সিংভি এবং জয়রাম রমেশ দলের বিপক্ষে এবং প্রধানমন্ত্রীর পক্ষেকার মন্তব্য কংগ্রেসের অস্বস্তিকে বহুগুণে বাড়িয়ে দিল বলে মনে করছে সমালোচক মহল।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!