এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > মোদিকে নিয়ে মন্তব্য করে বিতর্কে বিজেপি সাংসদ, জেনে নিন কি বললেন তিনি

মোদিকে নিয়ে মন্তব্য করে বিতর্কে বিজেপি সাংসদ, জেনে নিন কি বললেন তিনি



সারা দেশে স্বাধীনতার প্রাক্কালে চলছে খুশীর হাওয়া । দেশের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর ৩৭০ ধারা তুলে কাশ্মীর বিতর্কের অবসান ঘটানোয় তার জনপ্রিয়তা এখন আকাশছোঁয়া । সমগ্র দেশের নাম তিনি বিশ্বের কাছে উজ্জ্বল করেছেন। সামনের দিনে প্রধানমন্ত্রী দেশের জন্য যে আরও বড় পদক্ষেপ নেবেন তা বলাই যায় । বিজেপি শিবিরের সকল সদস্যই এখন প্রধানমন্ত্রীর গর্বে গর্বিত ।
এই উৎসাহের ফলেই গর্বিত বিজেপি সাংসদ হংস রাজ হংস দাবি জানিয়েছেন জে এন ইউ অর্থাৎ জওহরলাল নেহেরু বিশ্ববিদ্যালয়ের নাম বদলে হোক প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর নামে যা নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় বিতর্কের সৃষ্টি হয়েছে ।

শনিবার দিল্লির জে এন ইউ তে এক অনুষ্ঠানে অথিতি হয়ে গিয়েছিলেন তিনি । সেখানেই তিনি এই প্রস্তাব রাখেন । প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর ৩৭০ ধারা বিলোপ নিয়ে বিজেপি সাংসদ হংস রাজ হংস উচ্ছ্বসিত প্রশংসা করে বলেন, “৩৭০ ধারা উঠে যাওয়ায় কাশ্মীর এবার আক্ষরিক অর্থেই স্বর্গে পরিণত হবে। প্রার্থনা করি, সকলে শান্তিতে থাক। ভাল থাক। আমি তো শুধু এটাই চায় যে আর কোনও বোমাবাজি যেন না হয়। কারণ ওই প্রান্তে কারও প্রাণ যাক বা এপ্রান্তে, মারা যান একজন মায়ের সন্তানই ।” বিজেপি সাংসদ এই প্রসংগে কংগ্রেসের সমালোচনা করতেও পিছপা হননি । তিনি বলেন, “আমাদের পূর্বপুরুষরা ভুল করেছেন। যার ফল এখন আমরা ভোগ করছি ।”

WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

এবং এর সাথে সাথে তিনি জে এন ইউ এর নাম বদলে প্রধানমন্ত্রীর নামে এম এন ইউ রাখার প্রস্তাব দেন । তিনি বলেন, “তিনি যা করেছেন, প্রত্যেকেই প্রশংসা করছেন। তাই তো সবাই বিশ্বাস করে মোদি থাকলে সবই সম্ভব। সুতরাং তাঁর নামেও তো কিছু হওয়া উচিত। জেএনইউ বদলে এমএনইউ হয়ে যাক ।”

নেটিজেনরা ইতিমধ্যে এই বিষয়ে বিরোধিতার সুর চড়িয়েছেন । অনেকেই বলছেন বিজেপি সাংসদ হংস রাজ হংস অবিবেচকের মত কথা বলেছেন । জে এন ইউ আমাদের দেশের এক ইতিহ্য বলে পরিচিত তাই তার নাম বদলের পরামর্শ দেওয়া আর মূর্খামি করা সমার্থক বলেই গণ্য হবে ।

দেশের এই চরম খুশীর সময়ে উত্তর-পশ্চিম দিল্লি কেন্দ্র থেকে জয়ী সাংসদ হংস রাজ হংসের এই বিতর্কিত বক্তব্যকে কেন্দ্রীয় বিজেপি শিবির কিভাবে সামলায় এখন তা দেখার ।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!