এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > মুকুলকে নিয়ে বাক্য বানে জর্জরিত মোদী-অমিত শাহ থেকে গোটা বিজেপি

মুকুলকে নিয়ে বাক্য বানে জর্জরিত মোদী-অমিত শাহ থেকে গোটা বিজেপি

মুকুলকে নিয়ে বাক্য বানে জর্জরিত মোদী-অমিত শাহ থেকে গোটা বিজেপি। বঙ্গ বিজেপিকে চাঙ্গা করতেই মুকুল রায়কে দলে নিয়েছে বিজেপি। অথচ মুকুল রায়কে দলে নেওয়ার পর থেকেই সোশ্যাল মিডিয়াতে নানা প্রশ্নের মুখে পড়তে হচ্ছে স্বয়ং মোদী ও অমিত শাহকে। নানা ব্যাঙ্গ বিদ্রুপের মুখেও পড়তে হচ্ছে। দুর্নীতিমুক্ত ভারত গড়ার এটাই কি পথ? বা বিজেপিতে যোগ দিয়ে কি মুকুল রায় দুর্নীতির সমস্ত অভিযোগ থেকে মুক্ত হলেন?
.মুকুল বিজেপিতে যোগ দেওয়ার পরই সোশ্যাল মিডিয়াতে ঝড় উঠেছে। কেউ লিখেছেন নারায়ণ রানের পর আরও একজন বর্ণময় নেতা বিজেপিতে যোগ দিলেন। দুর্নীতির বিরুদ্ধে লড়াই করার ভাল পন্থা। আবার কেউ লিখেছেন মোদি এবং শাহ দুর্নীতির বিরুদ্ধে লড়াই করতে চাইছেন রানে, মুকুলকে দলে নিয়ে। এটাই হচ্ছে ভারতীয় রাজনীতিকে পরিচ্ছন্ন করার নতুন স্বয়ংস্ক্রিয় মেশিন।সাথে কারুর কটাক্ষ বিজেপিতে যোগ দেওয়ার পর থেকে মুকুল রায় এখন জাতীয়তাবাদী এবং দেশপ্রেমী। সেই কারণে দুর্নীতির সমস্ত অভিযোগ থেকে আজ তিনি মুক্ত।এতেই থেমে থাকেননি সাধারণ মানুষ, আরো যোগ করেছেন যে বিজেপির বৃহত্তম সহযোগী দল সিবিআইয়ের সাহায্যে মুকুল বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন। এখন হঠাত্‍ করেই সিবিআই সারদা-কাণ্ডে মুকুলের বিরুদ্ধে কোনও প্রমাণ পাবে না। আবার কেউ লিখেছেন মিত্রোঁ, মুকুল রায় একজন অতি সত্‍ ব্যক্তি। তাঁর বিরুদ্ধে সারদা এবং নারদ-কাণ্ডে যুক্ত থাকার অভিযোগ খুবই পুরনো কথা। দয়া করে ওই ফাইলগুলি ডিলিট করে দিন।যদিও এর মাধ্যমে নরেন্দ্র মোদিকেই কটাক্ষ করেছেন তা স্পষ্ট বোঝা যাচ্ছে।
যারা এই সব মন্তব্য করেছেন তাদের মধ্যে অনেকেই অতীতে মোদী বা বিজেপির প্রসংসা করেছেন। মুকুল দলে যোগ দেওয়ার পর থেকেই তারা মোদির সমালোচনা শুরু করেছেন। ফলে মুকুলকে দলে নেওয়ার কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই যে বিজেপি অস্বস্তিতে পড়েছে তা স্পষ্ট। আগেও বিজেপিতে নারায়ণ রানে বা সুখরামের অন্তর্ভুক্তি ঘটেছে। কিন্তু তখন সোশ্যাল মিডিয়াতে এমন ঝড় ওঠেনি। দেশ থেকে দুর্নীতি দূর করা যখন বিজেপির একমাত্র হাতিয়ার তখন এই সব দুর্নীতিতে নাম জড়ানো নেতাদের দলে কেন নিচ্ছে এই প্রশ্নের উত্তর চাইছেন অনেকে। তবে যে শুধু বিজেপিই অবস্তিতে পড়েছে তা নয় মুকুল রায়ও বিজেপিতে যোগ দিয়ে কিছুটা হলেও অবস্তিতে রয়েছেন। কেননা তৃণমূল ছাড়ার পর যে সমস্ত সমর্থকরা মুকুল রায়কে সমর্থন করেছিলেন মুকুলবাবু বিজেপিতে যোগ দেবার পর তাদের বড় অংশ সমালোচনায় মুখের হয়েছেন। তছাড়া সোশ্যাল মিডিয়াতেও এই নিয়ে ব্যঙ্গ বিদ্রূপ সইতে হচ্ছে মুকুল রায়কে।সব মিলিয়ে দুদিকেই চরম অস্বস্তির বাতাবরণ চলছে।রাজনৈতিক মহলে কানাঘুসো শোনা যাচ্ছে যে রাজনৈতিক জীবনের প্রায় শুরু থেকেই বিজেপির বিরোধিতা করে-আসা এই সমস্ত নেতার জন্য দলের দরজা উন্মুক্ত করে দেওয়াতেও অসন্তোষ রয়েছে বিজেপির অভ্যন্তরেও। তবে যাই হোক রাজনীতিতে সব কিছুই সম্ভব তা তো বহুবার প্রমাণিত, মুকুল রায়ের বিজেপি যোগে বহুচর্চিত সেই আপ্তবাক্যই আরেকবার প্রমাণিত হল।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!