এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > মোদী-শাহের সবুজসঙ্কেত মিলতেই উত্তরপ্রদেশে এনকাউন্টারের ভয়ে কাঁপছে কুখ্যাত দুষ্কৃতীরা

মোদী-শাহের সবুজসঙ্কেত মিলতেই উত্তরপ্রদেশে এনকাউন্টারের ভয়ে কাঁপছে কুখ্যাত দুষ্কৃতীরা

উওরপ্রদেশে প্রশাসনিক কড়া মূর্তির সামনে থরহরিকম্প কুখ্যাত দুষ্কৃতিরা। দেখতে পেলেই এনকাউন্টারে প্রাণ যাবে দুষ্কৃতিদের এমনই নির্দেশ দিলেন উওর প্রদেশের পুলিশ বিভাগকে মোদীজি এবং অমিত শাহ। এই সবুজ সংকেতের জেরে নড়েচড়ে বসেছে উওরপ্রদেশের অপরাধ দুনিয়ার বাঘা বাঘা ব্যক্তিত্বরা। তার প্রমাণ মিলল রাজ্যের আমরোহায় এলাকায়।সম্বল জেলার এক গ্রামের কুখ্যাত গুন্ডা ফাইজান ওরফে খান্নার ঝুলিতে রয়েছে মার্ডার থেকে ডাকাতির মতো একাধিক অপরাধের মামলা। তাকে নিয়ে চিরুনি তল্লাসি চলছিলো উওরপ্রদেশের পুলিশ বিভাগের ২০১৪ সাল থেকেই। জানানো হয়েছিলো কেউ এই ব্যক্তির খোঁজ দিতে পারলেই মিলবে ১২০০০ টাকা পুরস্কার হিসাবে।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

তাকে আর খুঁজতে হল না। এদিন সে নিজে এসেই ধরা দিল আমরোহার এসপি অফিসে। গলায় তাঁর প্ল্যাকার্ড ঝোলানো যাতে লেখা,’ আমাকে মারবেন না। আর কোনোদিন অপরাধমূলক কাজকর্ম করবো না।’এসপি ব্রিজেশ সিংয়ের কাছে এসে ফাইজান জানান যে,বাকি জীবন সে জেলে কাটাতে রাজি। তবে তাকে যেন প্রাণে মারা না হয়। গলায় প্ল্যাকার্ড ঝোলানোর কারণ জানতে চাওয়া হলে উওরে সে জানায় পুলিশ যাতে তাক না মেরে ফেলে তাই সে এমন করেছে।

জানা গেছে, পুলিশি এনকাউন্টারের ভয়েই তাঁর গলা শুকিয়ে গেছিলো। তাই প্রথমে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলে প্রকাশ্যে আসেন তিনি এবং তারপর করেন আত্মপক্ষ সমর্পণ। পুলিশ বিভাগের তরফ থেকে জানা গেছে  আপাতত ফাইজান আছেন কারাবন্দী অবস্থায়।’‌ফাইজান একজন কুখ্যাত দুষ্কৃতী। বিভিন্ন জেলায় অপরাধ করে বেরিয়েছে সে। হাসানপুর থানায় তার নামে ডাকাতি ও হত্যার মামলা দায়ের রয়েছে। পুলিস দীর্ঘদিন ধরেই ওকে খুঁজছিল। এখন মৃত্যুভয় পেয়ে সে নিজেই আত্মসমর্পণ করেছে।’‌ এমনটাই জানালেন এক পুলিশ প্রশাসনিকক কর্তা।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!