এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > দলে এসে দলকে তছনছ করে দিতে চান এই বিধায়ক? কর্মীদের বিস্ফোরক অভিযোগে টালমাটাল তৃণমূল শিবির

দলে এসে দলকে তছনছ করে দিতে চান এই বিধায়ক? কর্মীদের বিস্ফোরক অভিযোগে টালমাটাল তৃণমূল শিবির

Priyo Bandhu Media

ক্ষমতায় আসার পরই বিরোধীদলের হেভিওয়েট নেতা, বিধায়কদের নিজেদের দিকে টানতে শুরু করেছিল তৃণমূল। যা নিয়ে তৃণমূলের পুরনো কর্মীরা নতুনদের দলে আসায় দলের ভাবমূর্তি খারাপ হচ্ছে বলে সুর চড়াতে শুরু করেছিল। তবে সেইভাবে তৃণমূলের শীর্ষ নেতৃত্ব এই ব্যাপারে কোনো পদক্ষেপ গ্রহণ করেনি। কিন্তু এবার এক সময় বিরোধী দল কংগ্রেসে থাকা বর্তমানে তৃণমূল বিধায়ক সমর মুখোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে সরব হল সেই তৃণমূলের একাংশ।

জানা গেছে, সম্প্রতি মালদহের রতুয়াতে পুরনো কমিটি ভেঙে তৃণমূলের নতুন কমিটি গঠন হওয়ার পরই বিভিন্ন জায়গায় ক্ষোভ-বিক্ষোভ দেখা গেছে। দুর্নীতিগ্রস্ত নেতাদের নতুন কমিটিতে রাখা হয়নি বলে জানিয়ে দিয়েছিলেন বিধায়ক সমর মুখোপাধ্যায়। কিন্তু এবার সেই বিধায়কের বিরুদ্ধেই দুর্নীতির অভিযোগ তুলে প্রশাসনের দ্বারস্থ হতে দেখা গেল তৃণমূলের একাংশকে।

সূত্রের খবর, রতুয়া 1 ব্লকে তৃণমূলের এই নতুন কমিটিতে ফজলুল হক। এমনকি জেলা পরিষদের 3 সদস্যেরও সেই কমিটিতে ঠাঁই হয়নি। আর এরপরই তৃণমূল বিধায়ক সমর মুখোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে নানা দুর্নীতির অভিযোগ তুলে সরব হন তৃণমূলের একাংশ।

WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

ঘাসফুল শিবিরের কর্মীদের দাবি, গত 2015 সালে এই রতুয়া 1 ব্লকের মহানন্দটোলায় প্রধানমন্ত্রী গ্রাম সড়ক যোজনায় তৈরি পাকা রাস্তায় মাটি ভরাট করার ভুল হিসাব দেখিয়ে সমরবাবু 28 লক্ষ টাকা আত্মসাৎ করেছেন বলে প্রশাসনের কাছে অভিযোগ জানানো হয়েছিল। আর শুক্রবার ফের সেই দলীয় বিধায়কের বিরুদ্ধে প্রশাসনের কাছে অভিযোগ জানান এই ব্লকেরই সদ্য-প্রাক্তন ব্লক সভাপতি তৃণমূলের ফজলুল হক।

এদিন এই প্রসঙ্গে সেই ফজলুল হক বলেন, “রতুয়ায় তৃণমূলকে ভাঙতেই উনি কংগ্রেস ছেড়ে এসেছেন। আমরা এই সমস্ত কিছু রাজ্য নেতৃত্বকে জানাব। উনি মালদা জেলার সব থেকে দুর্নীতিগ্রস্ত বিধায়ক। তার চুরির বিরুদ্ধেই আমরা দীর্ঘদিন লড়াই করেছিলাম। একাধিক অভিযোগ করা হলেও ক্ষমতার জোরে তিনি তা ধামাচাপা দিয়েছেন। কিন্তু পুরনো অভিযোগগুলো আমরা আবার প্রশাসনকে জানাচ্ছি। প্রয়োজনে অনশনে বসব।”

যদিও বা এই প্রসঙ্গে দলের একাংশ নেতাকর্মীর মন্তব্যকে গুরুত্ব দিতে নারাজ তৃণমূল বিধায়ক সমর মুখোপাধ্যায়। এদিন তিনি বলেন, “এই বিষয়ে আমার কোনো প্রতিক্রিয়া নেই। যে যা বলছেন বলুন। মাথার ওপরে দিদি আছে, ব্যস মিটে গেল।”

কিন্তু বিধায়ক দিদির ভরসায় সব ছেড়ে দিলেও দলের কর্মীরাই যেখানে দলের সম্বল বলে সব সময় দাবি করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, সেখানে সেই দিদি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দলের কর্মীদের মূল অভিযোগ থাকা দলীয় বিধায়ক সমর মুখোপাধ্যায়কে আদৌ রক্ষা করবেন কিনা! তা নিয়ে প্রশ্নটা থেকেই যাচ্ছে।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!