এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > গণধর্ষণের অভিযোগ বিজেপি বিধায়কের বিরুদ্ধে, তবুও ক্লিনচিট, জোর চাঞ্চল্য রাজ্যে!

গণধর্ষণের অভিযোগ বিজেপি বিধায়কের বিরুদ্ধে, তবুও ক্লিনচিট, জোর চাঞ্চল্য রাজ্যে!

নির্বাচনী প্রতিশ্রুতিতে নারী সুরক্ষার প্রতিশ্রুতি দেন নেতারা। ভোটকে পাখির চোখ করে নেতাদের মুখ থেকে নারীদরদী নানা কথা শোনা গেলেও, বাস্তবে যে সেই সব অত্যন্ত ফিকে, তা ফের প্রমাণিত হয়ে গেল। মায়ের গর্ভ থেকে জন্ম নিয়ে এবার সেই মাতৃজাতিকেই ধর্ষণের অভিযোগ উঠল বিজেপির বিধায়কের বিরুদ্ধে। সূত্রের খবর, সম্প্রতি উত্তরপ্রদেশের বিজেপি বিধায়ক রবীন্দ্রনাথ ত্রিপাঠীর বিরুদ্ধে অভিযোগ ওঠে যে, গত একমাস ধরে একটি যুবতীকে হোটেলে আটকে রেখে নিজে এবং তার পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে নিয়ে ধর্ষণ করেন তিনি। আর এই ঘটনার পরই রীতিমতো চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে সর্বত্র।

এমনকি 2017 সালে হওয়া সেই ধর্ষণের পরিপ্রেক্ষিতেই নির্যাতিতা মহিলা সেই বিজেপি বিধায়ক এবং তার পরিবারের বিরুদ্ধে এফআইআর পর্যন্ত দায়ের করেন। কিন্তু সব সময় বিচারের বাণী মাথা তুলে দাঁড়াতে পারে না। তাই এক্ষেত্রেও হয়ত বা সেই বিচারের বাণী নীরবে নিভৃতে কাঁদে বলেই মনে করছেন একাংশ।

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর আরও সহজে হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের যে কোনও এক্সক্লুসিভ সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপে। ক্লিক করুন এখানে – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউবফেসবুক পেজ

যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এখানে

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

কেননা বিজেপি বিধায়কের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ উঠলেও, এই ঘটনার তদন্তে নেমে সেই রবীন্দ্রনাথ ত্রিপাঠীকে ক্লিনচিট দিল পুলিশ। যা নিয়েই এখন নানা মহলে তৈরি হয়েছে গুঞ্জন। এদিন এই প্রসঙ্গে এই ধর্ষনের ঘটনায় তদন্তকারী অফিসার ভাদোহি রাম বাদান সিং বলেন, “গত 10 ফেব্রুয়ারি বিজেপি বিধায়ক এবং তার পরিবারের ছয় সদস্যের বিরুদ্ধে এক মহিলা ধর্ষণের অভিযোগ দায়ের করেছিলেন। ঘটনার তদন্তে নেমে আমরা একাধিক ব্যক্তির জবানবন্দি রেকর্ড করেছি। রিপোর্টে দেখা গিয়েছে, ওই বিধায়ক এবং তার পরিবারের 6 জন কোনভাবেই ধর্ষণের ঘটনার সাথে যুক্ত নন‌। তাদের বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ দায়ের হয়েছে। তবে ক্লিনচিট দেওয়া হলেও বিধায়কের ভাইপো সন্দীপ এই ঘটনার সঙ্গে যুক্ত রয়েছে। তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।”

কিন্তু যে বিধায়কের বিরুদ্ধে গুরুতর অভিযোগ উঠল, তিনি কেন ক্লিনচিট পেয়ে গেলেন, এখন তা নিয়েই প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে বিভিন্ন মহলে। একাংশ বলছেন, শাসকের ক্ষমতা বড়ই নিষ্ঠুর। আর সেই নিষ্ঠুর ক্ষমতার জন্যই পুলিশে ক্লিনচিট পেয়ে গেলেন রবীন্দ্রনাথ ত্রিপাঠী। তবে এই ঘটনাকে যে মন থেকে মেনে নিতে পারছেন না উত্তরপ্রদেশের মানুষরা, তা কার্যত পরিষ্কার সকলের কাছেই।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!