এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > নদীয়া-২৪ পরগনা > আর একটা রাজকুমার রায় কান্ড? তিনদিনেও ডেপুটি ম্যাজিস্ট্রেট অর্নব রায়ের খোঁজ না মেলায় কাঁপছে বুক!

আর একটা রাজকুমার রায় কান্ড? তিনদিনেও ডেপুটি ম্যাজিস্ট্রেট অর্নব রায়ের খোঁজ না মেলায় কাঁপছে বুক!

গত পঞ্চায়েত নির্বাচনে প্রিসাইডিং অফিসার রাজকুমার রায়ের নির্মম মৃত্যুর ঘটনার আতঙ্ক এখনো ভুলতে পারেননি রাজ্যবাসী। আর তাইতো লোকসভা নির্বাচনের দামামা বাজার পরই অনেকেই প্রতি বুথে কেন্দ্রীয় বাহিনী দেওয়ার দাবিতে আন্দোলনে নেমেছেন। আর ভোটকর্মীদের এহেন আন্দোলন দেখে গোটা পরিস্থিতি আয়ত্তে আনতে প্রশাসন ও কমিশনের পক্ষ থেকে সুষ্ঠু অবাধ নির্বাচন হবে বলে এবং অতীতের মতো কোনো বিশৃংখল পরিস্থিতির সৃষ্টি হবে না বলে আশ্বাস দেওয়া হলেও, এবার নদীয়া জেলা প্রশাসনের ডেপুটি ম্যাজিস্ট্রেট অর্ণব রায়ের নিখোঁজের ঘটনায় তীব্র চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ল।

সূত্রের খবর, বৃহস্পতিবার থেকে নিখোঁজ নদীয়ার ওসি ইভিএম অর্ণব রায়। ফোনেও তার সঙ্গে কোনো যোগাযোগ করা যাচ্ছে না। তাঁর দুটি মোবাইল ফোনের সুইচই অফ বলছে। আর ভোটের মরশুমে এবার খোদ প্রশাসনিক আধিকারিকের এভাবে নিখোঁজের ঘটনায় এবার ভোটকর্মীদের একাংশই ফের আন্দোলনে নেমে পড়লেন। জানা গেছে, শনিবার নির্বাচনী আধিকারিক অর্ণববাবুর নিখোঁজ হওয়ার ঘটনার প্রতিবাদে এবং প্রতি বুথে কেন্দ্রীয় বাহিনীর দাবিতে নদীয়ার এভি স্কুল মোড়ে ভোটকর্মী সমন্বয় মঞ্চের তরফে তীব্র প্রতিবাদ জানানো হয়।

কিন্তু কেন এইভাবে এই প্রশাসনিক আধিকারিক নিখোঁজ হলেন তা নিয়ে বিভিন্ন মহলে উঠতে শুরু করেছে প্রশ্ন। সূত্রের খবর, বৃহস্পতিবার নদীয়া জেলা প্রশাসনের এক উচ্চপদস্থ কর্তা অর্ণববাবুকে বকাবকি করেন এবং ওসি ইভিএমের পদ থেকে তাঁকে সরিয়ে দেন। যার কারণে সেদিন দিনভর হতাশাগ্রস্থ দেখা গিয়েছিল অর্ণববাবুকে। আর এর ফলে তিনি নিখোঁজ হয়ে গিয়েছেন বলে দাবি একাংশের। এদিকে স্বামীর খোঁজ না পেয়ে কৃষ্ণনগর কোতোয়ালি থানায় গিয়ে এদিন একটি অভিযোগ দায়ের করেন অর্ণববাবুর স্ত্রী অনিশাদেবী।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

আপনার মতামত জানান -

এর পাশাপাশি অনিশাদেবী নিজের ফেসবুক প্রোফাইলেও আর্নব্বুকে ফিরিয়ে দেওয়ার কাতর আর্তি জানান। প্রসঙ্গত, অনিশাদেবীও নদীয়া জেলা শাসকের দপ্তরে ডব্লিউবিসিএস অফিসার হিসেবে কর্মরত। কেন তাঁর স্বামী এই ভাবে নিখোঁজ হয়ে গেলেন? এদিন এই প্রসঙ্গে অনিশাদেবী বলেন, “আমি চাই প্রকৃত ঘটনা উঠে আসুক। আমি প্রচন্ড চিন্তায় আছি। জেলা পুলিশ ও রাজ্য পুলিশ আমার স্বামীকে খুঁজে আনুক।” তবে জেলাশাসক ধমক দিয়েছেন বা ওসি ইভিএম থেকে সরিয়ে দেওয়ার কারণেই তিনি নিখোঁজ হয়ে গেছেন বলে বিভিন্ন মহলে থেকে যে দাবি করা হচ্ছে, সেই ব্যাপারে তিনি কিছু জানেন না বলে স্পষ্ট ভাষায় জানিয়ে দিয়েছেন সেই নিখোঁজ অর্ণব রায়ের স্ত্রী অনীশাদেবী।

সব মিলিয়ে অতীতের পঞ্চায়েত নির্বাচনে স্মৃতিকে উস্কে দিয়ে এবার নদীয়ায় ডেপুটি ম্যাজিস্ট্রেট অর্ণব রায়ের তিন দিন ধরে খোঁজ না মেলায় প্রবল চাঞ্চল্য তৈরি হল। নির্বাচন শুরুর আগে থেকেই ভোটকর্মীরা যেভাবে জোট বেঁধে বিভিন্ন জায়গায় ১০০% বুথে কেন্দ্রীয় বাহিনীর দাবি জানিয়ে এসেছিলেন – সেই দাবি যেন এই ঘটনার পরে আরও তীব্র হল। ভোটকর্মী ও তাঁদের পরিবারের চোখে এখনও ভাসছে রেললাইনে দুমড়ে থাকা রাজকুমার রায়ের শরীরের তিন খন্ড হয়ে যাওয়া বীভৎস চিত্র। লোকসভা নির্বাচনে – যে দলই জিতুক, যে দলই হারুক – কিন্তু, আরেকটা পরিবারকেও যেন রাজকুমার রায়ের মত মর্মান্তিক মৃত্যুর মুখোমুখি হতে না হয় – এটাই ছিল প্রার্থনা। কিন্তু অর্ণববাবুর এইভাবে হঠাৎ অন্তর্ধান – যেন নতুন আশঙ্কায় বুক কাঁপিয়ে দিচ্ছে সমগ্র রাজ্যবাসীর!

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!