এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > মন্ত্রীর হাত ধরে ফের বড় সংখ্যক ভাঙন ধরল বিজেপিতে,শক্তিশালী হল তৃণমূল জেনে নিন বিস্তারিত

মন্ত্রীর হাত ধরে ফের বড় সংখ্যক ভাঙন ধরল বিজেপিতে,শক্তিশালী হল তৃণমূল জেনে নিন বিস্তারিত

ফের মন্ত্রীর হাত ধরে বড় সংখ্যক ভাঙ্গন ধরলে বিজেপিতে, শক্তিশালী হল তৃণমূল। লোকসভা ভোটের সময় রামপুরহাট বিধানসভা কেন্দ্রের অন্তর্গত নারায়ণপুর অঞ্চলে তৃণমূলের থেকে বিজেপি এগিয়ে ছিল। বারবারই তৃণমূলে তরফ থেকে টার্গেট করা হয়েছে বিজেপির শক্তি যেখানে বেড়েছে সেখানেই ফের নিজেদের আধিপত্য স্বপন করা। আর এবার তাতে সফল হল তৃণমূল।

জানা যাচ্ছে এদিন যে নারায়নপুর এই বড় রকমের ভাঙ্গন ধরাল তৃণমূল। প্রসঙ্গত, রামপুরহাট বিধানসভা কেন্দ্রের অন্তর্গত সেই নারায়ণপুর অঞ্চলে লোকসভা ভোটের ফলের নিরিখে তৃণমূলের থেকে ১৫২৩ ভোটে এগিয়েছিল বিজেপি। এদিন রাজ্যের মন্ত্রী তথা এলাকার বিধায়ক আশিস বন্দ্যোপাধ্যায় একটি দলীয় অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন আর সেখানে নারায়ণপুর অঞ্চলের খালি ডাঙ্গা, রানীগ্রাম, লাল ডাঙ্গা প্রমুখ এলাকা থেকে বহু বিজেপি কর্মী সমর্থক তৃণমূলে যোগদান করেন। প্রায় ৯০০ জন বিজেপি কর্মী সমর্থক তৃণমূলে যোগদান করেছেন এমনটাই দাবি তুলেছেন তৃণমূল নেতৃত্ব। তাদের হাতে দলের পতাকা তুলে দেন মন্ত্রী আশীষ বন্দ্যোপাধ্যায়।

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর আরও সহজে হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের যে কোনও এক্সক্লুসিভ সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপে। ক্লিক করুন এখানে – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউবফেসবুক পেজ

যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এখানে

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

এই নিয়ে আসিস বাবু দাবি করেন, ‘‘কিছু মানুষ, যাঁরা আগে তৃণমূল করতেন, লোকসভা নির্বাচনে তাঁরা বিজেপি করেছিলেন। তাঁদেরই অনেকে ভুল বুঝতে পেরে তৃণমূলে ফিরে এলেন।’’ এদিকে বিজেপি ছেড়ে যারা তৃণমূলে ফিরেছেন তাঁরা বলেন, লোকসভায় এলাকায় বিজেপির হয়ে ভোট করেছিলাম। কিন্তু পরে প্রয়োজনে দলের নেতৃত্বকে পাইনি। বিজেপি-তে নেতৃত্ব দেওযার মতোও এখানে কেউ নেই। তাই তৃণমূলে ফিরলাম।

এই যোগদান নিয়ে বিজেপির দাবি, এলাকায় তৃণমূল কর্মীরা নানা রকম সন্ত্রাস চালাচ্ছে। বিজেপি কর্মীরা সেই সন্ত্রাস ও পুলিশি জুলুমের ভয়ে এখন তৃণমূলে যোগদান করলেও বিধানসভা ভোটের সময় জবাব দেবেন।

আপনার মতামত জানান -
Top