এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > দলীয় নেতাকর্মীদের কাছে ছেড়ে না যাওয়ার জন্য কাতর আবেদন মন্ত্রীর, জেনে নিন

দলীয় নেতাকর্মীদের কাছে ছেড়ে না যাওয়ার জন্য কাতর আবেদন মন্ত্রীর, জেনে নিন

Priyo Bandhu Media

 

লোকসভা নির্বাচনে 42 এ 42 এর স্লোগান তুলে 22 টি আসন দখল করেছে তৃণমূল কংগ্রেস। যেখানে বিজেপি 18 টি আসন দখল করে তৃণমূলের ঘাড়ে নিঃশ্বাস ফেলতে শুরু করেছে‌। আর এই পরিস্থিতিতে লোকসভায় তৃণমূলের ফলাফল খারাপ হওয়ার পর প্রশান্ত কিশোর “দিদিকে বলো” কর্মসূচি দিয়ে গোটা তৃণমূল দলের নেতা, মন্ত্রীদের ময়দানে নামিয়ে দিয়েছেন। যে কর্মসূচির মাধ্যমে তৃণমূলের হেভিওয়েট নেতা, মন্ত্রী, বিধায়করা সাধারণ মানুষের কাছে গিয়ে তাদের অভাব-অভিযোগ শুনছেন।

আর এবার “দিদিকে বলো” কর্মসূচিতে গিয়ে সাধারণ মানুষকে অভিমান না করার আর্জি জানালেন ডাবগ্রাম ফুলবাড়ীর বিধায়ক তথা রাজ্যের মন্ত্রী গৌতম দেব। বস্তুত, সদ্য সমাপ্ত লোকসভা নির্বাচনে এই বিধানসভা কেন্দ্রে তৃণমূল 86 হাজার ভোটে পিছিয়ে ছিল। হাতে আর মাত্র কিছুদিন বাকি। তারপরেই 2021 সালের বিধানসভা নির্বাচন। আর তাই সেই বিধানসভা নির্বাচনে নিজের আসনটিকে সুরক্ষিত রাখতে এখন থেকেই “দিদিকে বলো” কর্মসূচীর মধ্যে দিয়ে সাধারণ মানুষের অভিমান ঘোচানোর চেষ্টা করছেন রাজ্যের মন্ত্রী বলে বিশ্লেষকদের।

এদিন নিজের বিধানসভার একটি অংশে এই দিদিকে বলো কর্মসূচিতে যান গৌতম দেব। যেখানে স্থানীয় বাসিন্দাদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, “কোনো সমস্যা বা অভিমান হলে রাগারাগি করুন, গালাগালি করুন। ইচ্ছে করলে গালে দুটো চড় মারতে পারেন। কিন্তু আমাদের ছেড়ে যাবেন না। ভুল হলে বলুন, মাথা পেতে শুধরে নেব।” আর মন্ত্রীর এই কথাতেই এদিন ছড়িয়ে পড়েছে জল্পনা। জানা যায়, মঙ্গলবার সকালে প্রাতঃভ্রমণ করতে রাস্তায় নেমে সাধারন মানুষের বাড়ি বাড়ি গিয়ে এবং দোকানে গিয়ে মানুষের অভাব অভিযোগ শোনেন গৌতম দেব। যেখানে ডেঙ্গি এবং জঞ্জাল নিয়ে সাধারণ মানুষের করা অভিযোগের ভিত্তিতে সেই সমস্যা সমাধানের আশ্বাস দেন তিনি।

WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

বিশ্লেষকদের একাংশ বলছেন, যেভাবে গৌতম দেব সাধারণ মানুষের কাছে গিয়ে ভুল হলে প্রয়োজনে তাদের গালে চড় মারার কথা বললেন, তাতে তার মানবদরদী ভাবমূর্তিই প্রকাশ পেল। কিন্তু লোকসভা নির্বাচনের আগে সাধারন মানুষ তৃণমূলের প্রতি যখন বীতশ্রদ্ধ হয়ে পড়েছিল, তখন যদি গৌতমবাবু এবং তার দলের কর্মীরা যদি এই কাজটা করতেন, তাহলে বিজেপির এই উত্থান ঘটত না বলে দাবি একাংশের।

আর এখন বিধানসভা নির্বাচনে নিজের বিধানসভা কেন্দ্রে লোকসভা ভিত্তিক ফল খারাপ হওয়ায়, তা মেকআপ করতেই গৌতম দেব এই কথা বলছেন বলে মনে করছে সমালোচক মহল। এদিন এই প্রসঙ্গে গৌতম দেব বলেন, “দিদিকে বলো কর্মসূচিটি তৈরি হয়েছে মানুষের কাছে যাওয়ার জন্য। তাদের সমস্যার কথা কলকাতায় কিভাবে পৌঁছে দেওয়া যায়, তা আমরা দেখছি। তাছাড়া নিজেদের সাধ্যমত সাহায্য করার চেষ্টা করছি। গত লোকসভা ভোটের ফলাফলে পিছিয়ে রয়েছি, এটা অস্বীকার করার জায়গা নেই। কিছু মানুষ হয়তো কোনো কারনে আমাদের থেকে সরে গিয়েছেন। তাদের কাছ থেকে অভাব, অভিযোগ শুনে তা আমরা শুধরে নেওয়ার প্রক্রিয়া চালাচ্ছি। মানুষকে আমাদের পাশে থাকতে অনুরোধ করছি।”

তবে সাধারণ মানুষের কাছে গিয়ে এখন গৌতম দেব মানবদরদী ভাবমূর্তি দেখালেও বাসিন্দারা ভোটবাক্সে আদৌ তৃণমূলের পক্ষে সমর্থন দেয় কিনা, সেদিকেই তাকিয়ে সকলে।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!