এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > জেলার পদস্থ নেতৃত্বদের উদেশ্যে একাধিক প্রশ্ন করতেই মেজাজ হারিয়ে সভাপতিকে ধমক মন্ত্রীর

জেলার পদস্থ নেতৃত্বদের উদেশ্যে একাধিক প্রশ্ন করতেই মেজাজ হারিয়ে সভাপতিকে ধমক মন্ত্রীর

Priyo Bandhu Media


ফের একবার জেলা তৃণমূলের পদস্থ নেতৃত্বরা রাজ্য নেতৃত্বের ধমকের মুখে পড়লেন। দার্জিলিং জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের ৪২ নম্বর বুথভিত্তিক সাধারণ সভা চলাকালীন জেলা নেতৃত্বদের প্রশ্নের বহর শুনে মেজাজ ধরে রাখতে পারলেন না জেলা সভাপতি গৌতম দেব। ধৈর্য্য হারিয়ে ধমক দিতে শুরু করেন বুথ সভাপতি শ্যামল বর্মনকে।

পাশাপাশি কড়া ভাষায় এই সভায় আর কাউকে বক্তব্য রাখতে হবে না বলেই সাফ কথায় জানিয়ে দেন তিনি। গোটা ঘটনাকে কেন্দ্র করে ফের চাপা গুঞ্জন শুরু হয়েছে রাজনৈতিকমহলে। তবে কি উত্তরবঙ্গের তৃণমূল সংগঠনের মাটি শক্ত নেই? এই স্বাভাবিক প্রশ্নকে ঘিরে জল্পনা শুরু হয়েছে। লোকসভা ভোটের এতো কাছে এসে জেলা সভাপতির কাছ থেকে এভাবে প্রকাশ্যে এভাবে ধমক খাওয়ার জেরে রীতিমতো অস্বস্তিতে পড়ে গেলেন জেলার পদস্থ নেতারা।

প্রসঙ্গত,দার্জিলিংয়ে ৪২ নম্বর ওয়ার্ডের চেকপোস্ট এলাকায় বুথভিত্তিক সম্মেলনের আয়োজন করা হয় এদিন। সেখানেই বিভিন্ন বুথের সভাপতিসহ শিলিগুড়ি টাউনের তিন নম্বর ব্লকের তৃণমূল কংগ্রেস সভাপতি জয়দীপ নন্দী উপস্থিত ছিলেন। সেই সভার মূল বক্তার ভূমিকায় ছিলেন জেলা সভাপতি তথা রাজ্য পর্যটন দপ্তরের মন্ত্রী গৌতম দেব। লোকসভা ভোটের মুখে বুথ ভিত্তিক নেতা-কর্মীদের মনোবল বাড়াতে বুথ সভাপতিদের বক্তব্য রাখতে বলেন তিনি।

জেলা সভাপতির নির্দেশেই বক্তব্য পরিবেশন করছিলেন ১২৩ নম্বর বুথের সভাপতি শ্যামল বর্মণ। তিনি বলেন, “আমাদের ওয়ার্ডে বিভিন্ন সময়ে কর্মী সম্মেলন আয়োজিত হয়। তবে সব সম্মেলনের কর্মসূচি আমাদের কাছে থাকে না। কোনও কোনও ক্ষেত্রে শেষ মুহূর্তে আমাদের খবর দেওয়া হয়। এটা অনেক অসুবিধার।” এরপরই জেলার পদস্থ কর্তাদের উদ্দেশ্য একাধিক প্রশ্নবাণ ছুঁড়তে থাকেন তিনি। আর সেইসময় বুথ সভাপতির প্রশ্নের বহর শুনে মেজাজ ধরে রাখতে পারেন না জেলা সভাপতি গৌতম দেব।

বক্তব্যের মাঝেই বুথ সভাপতিকে থামিয়ে দিয়ে গৌতম দেব বলেন,”যেটুকু নির্দেশ দেওয়া হয় সেইটুকুই কাজ করুন। এর বেশি জানতে হবে না আপনাকে। দলের পদাধিকারীদের এতো প্রশ্ন করবেন না। তাহলে জীবনে কাজ করতে পারবেন না। নতুন নতুন বুথ সভাপতি হয়েছেন তো। আগে বাড়ি বাড়ি যান। সেটাই আপনার কাজ।”


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

এটা বলার পরই এক মুহূর্ত সময় নষ্ট না করে কড়াভাবে তিনি জানিয়ে দেন বুথভিত্তিক এই সভায় আর কাউকে বক্তব্য রাখতে হবে না। এবার যা বলার তিনিই বলবেন। এরপর বক্তব্য রাখতে উঠে বুথ সভাপতিকে আরো একবার ধমক দিতে শুরু করেন গৌতম বাবু। বুথ ভিত্তিকে বেশ কিছু প্রশ্নও ছুঁড়ে দেন তাঁর উদ্দেশ্য। সেসব প্রশ্নের একটা উত্তরও দিতে না পারায় বেশ অস্বস্তিতে পড়ে যান শ্যামল। এটা দেখে আরো রেগে যান শ্যামল।

ফলত নির্ধারিত সময়ের আগে শেষ হয়ে যায় ওই সভা। দার্জিলিংয়ের বুথ ভিত্তিক এই ওয়ার্ড সম্মেলনের পর বাতাস গরম হতে থাকে শাসকশিবিরে। যদিও এই ঘটনার পর গৌতম দেবের বিরুদ্ধে কোনো অসন্তোষ প্রকাশ করেননি বুথের নেতারা। তবুও একটা চাপা গুঞ্জনের আঁচ পাওয়া গিয়েছে দলীয় অন্দরে। এর জেরে উত্তরবঙ্গের শাসকদলের সংগঠন কোনোভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয় কিনা এখন সেটাই দেখার!

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!